মঙ্গলবার, জুন ২৫

রাহুল গান্ধীর মাথা লক্ষ্য করে লেসার গান, রাজনাথকে অভিযোগ কংগ্রেসের

দ্য ওয়াল ব্যুরো : কপালে ও মাথার ডানদিকে এসে পড়ছে লেসার গানের সবুজ আলো। একবার নয় সাতবার। বুধবার কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী যখন অমেঠীতে মনোনয়ন পত্র জমা দিতে গিয়েছিলেন, তখন তাঁর মাথার দিকে লেসার গান তাক করা হয়েছিল। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং-এর কাছে চিঠি দিয়ে এমনই অভিযোগ জানিয়েছে কংগ্রেস। চিঠিটি লিখেছেন কংগ্রেসের তিন প্রথম সারির নেতা। সরকার অবশ্য জানিয়েছে, এসপিজি-র ডিরেক্টরের সঙ্গে আমরা কথা বলেছি। তিনি জানিয়েছেন, রাহুলের মাথায় কোনও মোবাইল ফোনের আলো পড়েছিল।

অমেঠীতে মনোনয়ন জমা দিতে যাওয়ার আগে রোড শো করেন রাহুল। সঙ্গে ছিলেন তাঁর বোন প্রিয়ঙ্কা বঢরা ও তাঁর স্বামী রবার্ট বঢরা। কংগ্রেসের চিঠিতে লেখা হয়েছে, রোড শো চলার সময় যখনই রাহুল দাঁড়িয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলছিলেন, তখনই তাঁর মাথায় এসে পড়ছিল লেসার গানের সবুজ রশ্মি। সম্ভবত কোনও স্নাইপার গান তাক করা হয়েছিল তাঁর মাথা লক্ষ করে।

রাজনাথ সিং-এর কাছে আবেদন জানানো হয়েছে, কেন্দ্রীয় সরকারের উচিত তদন্ত করে দেখা, সত্যিই কেউ রাহুল গান্ধীর ক্ষতি করতে চাইছে কিনা। যদি তেমন হয়ে থাকে, তাহলে সেই বিপদ দূর করা উচিত। রাহুলের বাবা রাজীব গান্ধী ও ঠাকুমা ইন্দিরা গান্ধীর মৃত্যুর কথা উল্লেখ করে চিঠিতে বলা হয়েছে, অমেঠীতে যেভাবে কংগ্রেস সভাপতির নিরাপত্তা বিঘ্নিত হয়েছিল, তা অত্যন্ত উদ্বেগের বিষয়।

নিরাপত্তায় ‘গাফিলতি’-র জন্য উত্তরপ্রদেশের যোগী আদিত্যনাথ সরকারকে দায়ী করেছে কংগ্রেস। তাদের বক্তব্য, কারও সঙ্গে রাজনৈতিক বিরোধ থাকতে পারে। কিন্তু রাহুল গান্ধীর নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা সরকারের দায়িত্ব। রাহুল গান্ধী একজন হাই রিস্ক টার্গেট। বিশেষত নির্বাচনের প্রচার চলার সময় তাঁর বিপদ আরও বেড়েছে।

চিঠিতে সই করেছেন কংগ্রেস নেতা রণদীপ সিং সুরজেওয়ালা, আহমেদ পটেল ও জয়রাম রমেশ।

এর আগে কর্ণাটকে বিধানসভা নির্বাচনের সময় রাহুলের বিমানে অন্তর্ঘাত করা হয়েছিল বলে অভিযোগ করে কংগ্রেস। প্রচারের জন্য কংগ্রেস সভাপতি যখন দিল্লি থেকে হুবলিতে যাচ্ছিলেন, তখন আচমকা তাঁর বিমান প্রচণ্ড কাঁপতে থাকে। ডিরেক্টর জেনারেল অব সিভিল এভিয়েশান তদন্ত করে বলেন, ফ্লাইট কন্ট্রোল কম্পিউটারের ভুলে ওই গোলযোগ ঘটেছিল।

সেদিন বিমানে রাহুলের সহযাত্রী ছিলেন কংগ্রেস নেতা কৌশিক বিদ্যার্থী। তিনি হুবলি বিমানবন্দরে অভিযোগ করেছিলেন, আমাদের প্লেন দিল্লি থেকে সকাল ন’টা বেজে ২০ মিনিটে টেক অফ করে। পৌনে ১১ টা নাগাদ অজ্ঞাত কারণে বিমানে যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা যায়।

ঠিক কী হয়েছিল, তার বর্ণনা দিয়ে কৌশিক বিদ্যার্থী লেখেন, প্লেনটি একদিকে হেলে পড়েছিল। প্রচণ্ড শব্দ হচ্ছিল। আমরা সকলে সেই শব্দ শুনেছি। তিনবারের চেষ্টায় প্লেনটি হুবলি বিমান বন্দরে নামতে পেরেছিল।

Comments are closed.