শুক্রবার, অক্টোবর ১৮

বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস: অবসাদে ভুগছেন ১০ কোটি, প্রতি বছর আত্মঘাতী ২ লক্ষেরও বেশি

দ্য ওয়াল ব্যুরো: প্রতি বছর ২ লক্ষ ২০ হাজার মানুষ আত্মঘাতী হন এ দেশে! বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবসে সামনে এল এই চাঞ্চল্যকর তথ্যই।

প্রতি বছর ১০ অক্টোবর ওয়ার্ল্ড ফেডারেশন ফর মেন্টাল হেল্থের উদ্যোগে বিশ্ব জুড়ে পালিত হয় মানসিক স্বাস্থ্য দিবস। অবসাদ ও আত্মহত্যা মুক্ত পৃথিবী গড়ার জন্য মানসিক স্বাস্থ্যের খেয়াল রাখা যে কতটা গুরুত্বপূর্ণ, তা আলোচনা হয়েছে বারবার। এ বছরের বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবসের থিম ছিল, আত্মহত্যা প্রতিরোধ।

ওয়ার্ল্ড হেল্থ অরগানাইজেশনের (হু)-এর তথ্য অনুয়ায়ী ১৩৫ কোটি জনসংখ্যার দেশে ৭.৫ শতাংশ মানুষেরই মানসিক স্বাস্থ্য অত্যন্ত খারাপ। এই সংখ্যাটা নেহাত কম নয়, ১০ কোটি। সারা দেশের ১০ কোটি মানুষ দুশ্চিন্তা ও অবসাদের মতো সমস্যায় ভুগছেন বলে জানিয়েছে হু। এবং তার চেয়েও খারাপ বিষয় হল, এই সংখ্যাটা দ্বিগুণেরও বেশি বেড়ে যাওয়ার দিকে এগোচ্ছে ২০২০ সালের মধ্যে। মানসিক স্বাস্থ্যের এই অবনতিই যে আত্মহত্যার সংখ্যা বাড়াচ্ছে, তা নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই। দিনের পর দিন মানসিক স্বাস্থ্যের দিকে নজর না দিয়েই এই অবস্থায় দাঁড়িয়ে আছে দেশ।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এ দেশের একটা বড় অংশের মানুষের কাছে মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে কথা বলা এখনও একটা ট্যাবু। যখন কেউ জানান যে তিনি দুশ্চিন্তায় আক্রান্ত বা অবসাদে ভুগছেন, তখনই আশপাশের মানুষের তৎপর হওয়া উচিত তাঁর সমস্যা নিয়ে। অনেক সময়েই সেই সমস্যা নিজে মেটাতে না পেরে আত্মহত্যার পথ বেছে নেন মানুষ।

মনোরোগের চিকিৎসকেরা বলছেন, এখন প্রত্যেকের জীবনে অজস্র প্রতিযোগিতা। যত প্রতিযোগিতা, তত পরাজয়ও বটে। সে সব কিছুই সোশ্যাল মিডিয়ার আড়ালে চলে যায় আজকাল। মানুষ সেখানে নিজেকে যা দেখায়, বাস্তবে অনেক সময়েই তেমনটা সত্যি হয় না। ফলে দূরত্ব বাড়তে থাকে মানুষের সঙ্গে মানুষের। এই অবস্থায় আরও বেশি দুর্বল হয়ে মানসিক স্বাস্থ্য। এক দিকে উচ্চাকাঙ্ক্ষা, অন্য দিকে নানা পরাজয়, আবার সেই সঙ্গে বন্ধুহীনতা– চরম সমস্যা তৈরি হয় প্রায়ই।

তাঁরা বলছেন, সমস্যা বুঝতে পারলেই কাউন্সেলিং করানো উচিত। কেউ করানোর না থাকলে নিজেই যাওয়া উচিত। তারও আগে নিজেকে স্ট্রেস-মুক্ত করতে হবে। ভাল গান বা সিনেমা বা ভাল লাগার যে কোনও শখ পূরণ করতে হবে এই অবস্থায়। তবেই মানসিক স্বাস্থ্যের উন্নতি সম্ভব। তবেই এ দেশে আত্মহত্যার হার সমানো সম্ভব।

Comments are closed.