রবিবার, আগস্ট ১৮

আপনিও চেনেন এই স্টেশন, পরিচয় জানলে সত্যিই অবাক হবেন

দ্য ওয়াল ব্যুরো: স্টেশনের নাম অপটা। এই রেল স্টেশনে আপনার পা পড়ুক আর নাই পড়ুক চোখ পড়েছে। মহারাষ্ট্রের এই রেল স্টেশনটি অধিকাংশ সময়েই জনমানবশূন্য হয়ে থাকে। অথচ টেলিভিশনে বা সিনেমায় একাধিকবার এই স্টেশনটিকে দেখেছেন ভারত তো বটেই বিশ্বের বহু দেশের মানুষ। এমনিতে ঝিমিয়ে থাকা এই স্টেশনে মাঝে মাঝেই চূড়ান্ত ব্যস্ততা শুরু হয়ে যায়।

পনবেল শহরের কাছেই এই স্টেশনটি প্রথম শিরোনামে এসেছিল ‘দিলওয়ালে দুলহানিয়া লে জায়েঙ্গে’ ছবির সৌজন্যে। এবার নিশ্চয়ই মনে পড়ে গিয়েছে বিখ্যাত সেই দৃশ্য। ছবির শেষ দৃশ্যে রাজের হাত ধরতে সিমরনের সেই বিখ্যাত দৌড়ের দৃশ্য তো এই স্টেশনেই শুট করা হয়েছিল।


আপটা স্টেশেন শ্যুট হওয়া সেই বিখ্যাত দৃশ্য।

সেটাই ছিল শুরু। এর পরে এখানেই ‘কুছ কুছ হোতা হ্যায়’, ‘খাকি’ এবং ‘গুরু’ ছবির শ্যুটিং হয়েছে। মহারাষ্ট্রের আপটা স্টেশনকে বেছে নেওয়া হয়েছে ছোট, বড় অনেক অ্যাড ফিল্ম এবং ছবির শ্যুটিঙের জন্য।

‘কুছ কুছ হোতা হ্যায়’ ছবির দৃশ্য।

মহারাষ্ট্রের কোঙ্কন রেলপথে এই আপটা স্টেশন। কিন্তু কেন বারবার এই স্টেশনটিকেই বেছে নেওয়া হয় শ্যুটিঙের জন্য তার পিছনে আছে এক বড় কারণ। এই স্টেশনটির চারপাশ সবুজে মোড়া, চার দিকেই রয়েছে পাহাড়। তার উপরে ফাঁকা স্টেশন হওয়ায় শুটিংয়ের সময়ে সাধারণ মানুষের ভিড় বিশেষ সামলাতে হয় না। আর এই স্টেশনে খুব কম ট্রেনই দাঁড়ায়। ফলে শ্যুটিংয়ে ব্যাঘাত হয় কম।

কাছেই পনবেল শহর থাকায় গ্রামীণ আপটায় সহজেই শ্যুটিংয়ের ব্যবস্থা করা যায়। তবে সব থেকে বড় সুবিধাটা অন্য। আপটা স্টেশনে ঢোকার আগে রেল লাইনে এমন বাঁক রয়েছে যে স্টেশন থেকে প্রায় গোটা ট্রেনটিকে ক্যামেরায় ধরা যায়। পাহাড়কে পিছনে রেখে ট্রেন এগিয়ে আসার সেই দৃশ্য পছন্দ করেন পরিচালক থেকে সিনেমাটোগ্রাফার সকলেই। তাই তো আপটার এত কদর।

Comments are closed.