রবিবার, সেপ্টেম্বর ২২

আমার কাছে কেরল আর বারাণসীর মধ্যে তফাৎ নেই, গুরুবায়ুরে বললেন মোদী

দ্য ওয়াল ব্যুরো : সারা দেশে যে দু’-একটি রাজ্যে বিজেপি এবার ভালো ফল করতে পারেনি, তার অন্যতম কেরল। কিন্তু দ্বিতীয় এনডিএ সরকার শপথ নেওয়ার পরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী প্রথমেই গেলেন কেরলে। শনিবার তিনি তিন দিনের মলদ্বীপ ও শ্রীলঙ্কা সফরে যাচ্ছেন। তার আগে গিয়েছেন কেরলের বিখ্যাত গুরুবায়ুর মন্দিরে। পরে এক জনসভায় তিনি বলেন, আমার কাছে কেরল আর বারাণসীর মধ্যে কোনও ফারাক নেই। এই নিয়ে দ্বিতীয়বার বারাণসী থেকে বিপুল ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন মোদী। তিনি বলতে চেয়েছেন, কেরলে খারাপ ফল হলেও তিনি বারাণসী কেন্দ্রের সঙ্গে কেরলের ভোটারদের কোনও পার্থক্য করেন না।

কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীও এখন কেরলে আছেন। তিনি শুক্রবার এক রোড শো-য় বলেন, মোদীর সরকার যাদের ওপরে আক্রমণ চালাবে, আমরা তাঁদের রক্ষা করব। এনডিএ সরকার ও মোদীর হাত থেকে মানুষকে রক্ষা করার জন্য আমরা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। এরপরে শনিবার কেরলে গিয়ে মোদী জোর দিয়ে বলেছেন, তাঁর সরকার কাউকে বঞ্চিত করবে না। সকলের ভালোর জন্য কাজ করবে। যাঁরা বিজেপিকে ভোট দেননি, তাঁরাও উন্নয়নের সুফল পাবেন। যদিও ভাষণে তিনি একবারও রাহুলের নাম করেননি।

মোদীর কথায়, অনেকে আমাদের জিততে সাহায্য করেছেন, অনেকে করেননি। যাঁরা বিজেপিকে ভোট দিয়েছেন, তাঁরা আমাদের লোক। যাঁরা ভোট দেননি তাঁরাও আমাদের লোক। আপনারা ভাবতে পারেন, বিজেপি তো কেরলে একটিও আসন পায়নি। তাহলে মোদী জেতার পরে প্রথম জনসভা করতে কেরলে এসেছে কেন? বারাণসী যেমন আমার প্রিয়, কেরলও তাই। নির্বাচন ব্যাপারটা আলাদা। কিন্তু সরকার সারা দেশের মানুষের জন্য কাজ করবে।

মানুষ যেভাবে ‘গণতন্ত্রের উৎসব’ পালন করেছেন, সেজন্য তাঁদের ধন্যবাদ দেন প্রধানমন্ত্রী। তাঁর কথায়, আমি জনগণকে কুর্নিশ জানাই। তাঁরাই আমার ভগবান। মোদী জোর দিয়ে বলেন, তাঁর সরকার সকলের জন্য সমানভাবে কাজ করবে। কারও প্রতি বৈষম্য করবে না। তাঁর কথায়, আমি সকলের সেবক। আমি চাই, দেশ গৌরবের আসনে প্রতিষ্ঠিত হোক। আমরা জিতি বা হারি, জনগণের সেবা করে যাব। বিজেপি হল ‘জন সেবক’। বিজেপি কর্মীরা সারা জীবন জনগণের সেবা করার জন্য প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। শুধু পাঁচ বছর ধরে তাঁরা মানুষের সেবা করবেন, এমন নয়।

কেরলে সম্প্রতি নিপা ভাইরাসের সংক্রমণ দেখা দিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, অযথা আতঙ্কিত হবেন না। সরকার মানুষের পাশে আছে। রাজ্য ও কেন্দ্রীয় সরকার যৌথভাবে এর বিরুদ্ধে লড়াই করবে। আমরা পরিস্থিতির ওপরে নজর রাখছি।

Comments are closed.