মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ১৭

ভারতের সঙ্গে থাকলেই কাশ্মীরিদের ভালো হবে, বলল মুসলিম সংগঠন, স্বস্তি মোদীর

দ্য ওয়াল ব্যুরো : আমরা মনে করি, কাশ্মীরের জনসাধারণের গণতান্ত্রিক ও মানবিক অধিকার রক্ষা করা আমদের জাতীয় দায়িত্ব। কিন্তু আমাদের দৃঢ় বিশ্বাস, কাশ্মীরিরা যদি ভারতের সঙ্গে যুক্ত থাকেন, তবেই তাঁদের ভালো হবে। আমাদের শত্রুরা এবং প্রতিবেশী দেশ কাশ্মীরকে ধ্বংস করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। সম্প্রতি এই বিবৃতি দিয়েছে জমিয়ত-উলেমা-ই-হিন্দ নামে এক সংগঠন। গত ৫ অগস্ট সংবিধানের ৩৭০ ও ৩৫এ ধারা অবলুপ্ত করা হয়। তারপরে দেশের প্রথম সারির একটি মুসলিম সংগঠন সরকারের ওই পদক্ষেপকে সমর্থন জানাল।

এর আগে নানা মহল থেকে অভিযোগ উঠেছিল, মোদী সরকার তড়িঘড়ি ৩৭০ ধারা লোপ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তারা সংশ্লিষ্ট সব পক্ষের সঙ্গে আলোচনা করেনি। তার চেয়েও বড় কথা, জম্মু-কাশ্মীরের বিধানসভায় বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়নি।

৫ অগস্টের পরে যাতে জম্মু-কাশ্মীরে অশান্তি না হয়, সেজন্য বাড়তি কয়েক হাজার আধা সেনা পাঠানো হয়েছিল। কাশ্মীর জুড়ে জারি হয়েছিল কার্ফু। মোবাইল, ল্যান্ডলাইন ফোন ও ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। এক মাস বাদে কাশ্মীর ক্রমশ স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসছে। সেখানে বিনিয়োগ হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।

পর্যবেক্ষকদের মতে, এই পরিস্থিতিতে যেভাবে জমিয়তের মতো সংগঠন সরকারের পাশে দাঁড়িয়েছে, তাতে সুবিধা হবে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর। প্রবীণ বিজেপি নেতা সুব্রহ্মণ্যম স্বামী ইতিমধ্যে জমিয়তের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন।

পাকিস্তান আগেই রাষ্ট্রপুঞ্জে ভারতের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছে। যদিও চিন ছাড়া অপর কোনও দেশের সমর্থন পায়নি। ভারত বরাবরই বলে এসেছে, সংবিধানে ৩৭০ ধারা থাকবে না লোপ করা হবে, তা তাদের অভ্যন্তরীণ ব্যাপার।

Comments are closed.