শুক্রবার, নভেম্বর ১৫

পরীক্ষা হলে টুকলি রুখতে ছেলেদের মাথায় পরিয়ে দেওয়া হল কার্ডবোর্ডের বাক্স

দ্য ওয়াল ব্যুরো : সারি সারি বেঞ্চে বসে লেখালেখি করছে কয়েকটি তরুণ। তাদের মাথায় পরানো কার্ডবোর্ডের বাক্স। বাক্সের সামনের দিকটা খোলা। সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ছবি দেখে চমকে উঠেছেন অনেকে। পরে জানা যায়, কর্ণাটকের হাভেরিতে ভগত প্রি ইউনিভার্সিটি কলেজে ছাত্ররা ওইভাবে পরীক্ষা দিচ্ছিল। টোকাটুকি বন্ধ করতে তাদের মাথায় কার্ডবোর্ডের বাক্স পরিয়ে দিয়েছিল কলেজ কর্তৃপক্ষ। ছেলেরা শুধু নিজের খাতা দেখতে পাচ্ছিল। পাশে কারও খাতা দেখে লেখা বা লুকোন টুকলির কাগজ দেখে লেখা সম্ভব হয়নি এর ফলে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় ছবিতে দেখা যাচ্ছে, পরীক্ষা হলে ইনভিজিলেটর রয়েছেন। তিনি নজর রাখছেন ছাত্রদের ওপরে। অর্থাৎ মাথায় বাক্স পরিয়েও পুরোপুরি নিশ্চিন্ত হতে পারেনি কলেজ।

এই ছবি দেখে কলেজ কর্তৃপক্ষের তীব্র সমালোচনা করেছেন অনেকে। কলেজও পালটা সাফাই দিয়েছে। কর্ণাটকের শিক্ষামন্ত্রী এস সুরেশ কুমার বলেছেন, কলেজ কর্তৃপক্ষের আচরণ কখনই মেনে নেওয়া যায় না। কারও সঙ্গে এমন পশুর মতো আচরণ করা উচিত নয়। এমন আচরণের জন্য শাস্তি হওয়া উচিত। সোশ্যাল মিডিয়ায় একজন লিখেছেন, পুরো ব্যাপারটাই হাস্যকর। ছাত্রদের পক্ষে ব্যাপারটা অপমানজনকও বটে। টোকাটুকি নিশ্চয় বন্ধ করা উচিত। তা বলে এমন ব্যবস্থা নেওয়া ঠিক নয়।

কলেজের পক্ষ থেকে অধ্যক্ষ এম বি সতীশ বলেন, আগে বিহারের একটি কলেজেও এইভাবে পরীক্ষা নেওয়া হয়েছিল। তখন অনেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রশংসা করেছিলেন। তাঁর কথায়, ছেলেদের ভালোর জন্যই আমরা ওই ব্যবস্থা নিয়েছিলাম। আমরা চাইনি পরীক্ষা হলে ছেলেরা অমনোযোগী হোক। বাক্সের সামনের দিকটা খোলা ছিল। এটা আমাদের এক নতুন এক্সপেরিমেন্ট। অনেকে প্রশংসা করছেন। কেউ কেউ নিন্দাও করেছেন।

ডেপুটি ডিরেক্টর অব পাবলিক ইনস্ট্রাকশনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ১৬ অক্টোবর ছাত্ররা ওইভাবে পরীক্ষা দিচ্ছিল। আমরা পুরো ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দিয়েছি।

সাইকেল ব্রহ্মচারীর আমেরিকানামা

Comments are closed.