বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ১৭

বৃষ্টিতে ভিজে ছ’ঘণ্টা হোটেলের সামনে, শিবকুমারকে আটক করল মুম্বই পুলিশ

দ্য ওয়াল ব্যুরো : কর্ণাটকের সরকার থাকবে না যাবে, এই নিয়ে বুধবার রীতিমতো নাটক হয়ে গেল মুম্বইয়ে। পুলিশের হাতে আটক হলেন কর্ণাটক কংগ্রেসের ডি কে শিবকুমার এবং আরও কয়েকজন।

ঘটনার সূত্রপাত এদিন সকালে। কর্ণাটকের বিদ্রোহী বিধায়করা এখন রয়েছেন মুম্বইয়ের রেনেসাঁস হোটেলে। মঙ্গলবার রাতে তাঁরা পুলিশকে চিঠি লিখে বলেন, কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী এইচ ডি কুমারস্বামী ও কংগ্রেসের ট্রাবলশুটার বলে পরিচিত ডি কে শিবকুমার জোর করে হোটেলে ঢুকে পড়তে পারেন। তাতে আমাদের বিপদ হতে পারে।

মহারাষ্ট্রের বিজেপি সরকারের পুলিশ সঙ্গে সঙ্গে হোটেল ঘিরে কড়া পাহারার ব্যবস্থা করে। বুধবার সকালে হোটেলের সামনে সত্যিই হাজির হন শিবকুমার। পুলিশ তাঁকে গেটেই আটকে দেয়। তিনি বলেন, হোটেলে আমার ঘর বুক করা আছে। আমার বন্ধুরা এই হোটেলে আছেন। আমি ভিতরে গিয়ে তাদের সঙ্গে গল্প করব, কফি খাব।

পুলিশ পরিষ্কার জানিয়ে দেয়, হোটেলের কয়েকজন বোর্ডার তাঁকে ভয় পাচ্ছেন। তাঁকে ঢুকতে দেওয়া সম্ভব নয়। হোটেল কর্তৃপক্ষও বলে, শিবকুমারের নামে একটা রুম বুক করা ছিল বটে কিন্তু বিশেষ কারণে বুকিং ক্যানসেল করে দেওয়া হয়েছে।

পুলিশের সঙ্গে যখন শিবকুমারের তর্ক চলছে, এমন সময় মুষলধারে বৃষ্টি শুরু হয়। তার মধ্যেই শিবকুমার দাঁড়িয়ে থাকেন। বিদ্রোহীদের সঙ্গে দেখা করার জন্য তিনি টানা ছ’ঘণ্টা অপেক্ষা করেন। তাঁর সঙ্গে যোগ দেন মুম্বই কংগ্রেসের দুই নেতা সঞ্জয় নিরুপম ও মিলিন্দ দেওরা।

পরে পওয়াই অঞ্চলে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়। হোটেল রেনেসাঁস ওই অঞ্চলে অবস্থিত। হোটেলের সামনে থেকে শিবকুমার ও অপর কংগ্রেস নেতাদের পুলিশ আটক করে।

হোটেলের ভিতরে রয়েছেন কংগ্রেসের বিদ্রোহী বিধায়ক বি বাসবরাজ। তিনি বলেন, আমরা শিবকুমারকে অপমান করতে চাই না। তাঁর প্রতি আমাদের আস্থা আছে। কিন্তু আমরা যা করছি ভেবেচিন্তেই করছি। আমরা তাঁকে যথাযোগ্য সম্মান দিয়েই জানাচ্ছি, বুধবার তাঁর সঙ্গে দেখা করতে পারব না।

Comments are closed.