শনিবার, সেপ্টেম্বর ২১

কালোজামের জবাব নেই, কত যে তার উপকার, জানেন কি?

দ্য ওয়াল ব্যুরো: চকচকে। ভেলভেটের মতো মসৃন। কুচকুচে কালো। শাঁসে ভর্তি খুব হাল্কা টক আর মিষ্টি, আর একটু কষা। বিট নুন লাগিয়ে শেষ দুপুরে খেতে ভালোবাসেন না, এমন মানুষ কম আছে।

কিন্তু শুধু স্বাদ নয়, আমাদের শরীরের জন্য কত গুন, ভাবা যায় না। নিয়মিত খেলে আমাদের চেহারাতেও আসে জেল্লা।

হ্যাঁ, ঠিক ধরেছেন, কালো জামের কথাই বলা হচ্ছে।

জামে কী নেই? প্রোটিন, ফাইবার, অ্যান্টি অক্সিডেন্ট, ক্যালসিয়াম, আয়রন, পসফরাস, পটাশিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ, ভিটামিন বি সিক্স, ভিটামিন সি। সব পাবেন এতে। আবার ক্যালোরি তে খুব কম । সাধে একে সুপার ফুড বলা হয়? রোজ খান কালোজাম।

জানুন ঠিক কী কী ভাবে উপকারি এই ফল….

রক্ত পরিষ্কার করে:

কালো জামের আয়রন আমাদের রক্ত শোধন করে আর ত্বককে দেয় জেল্লা।
শরীরে হিমোগ্লোবিন এর মাত্রা ঠিক রেখে রক্তাল্পতাহতে দেয় না । পিরিয়ডের সমস্যায় যে মেয়েদের রক্ত বেরোয় বেশি, জাম তাঁদের জন্য খুব দরকারি।

ত্বকের যত্ন নেয়:

ত্বককে মসৃন ও স্বাস্থ্যবান করতে এর অনেক ভূমিকা, বিশেষ করে যাঁদের অয়েলি স্কিন।ডার্ক স্পট দূর করতে আর ত্বকেরঅন্যান্য কিছু কমন প্রবলেমের উপশমে জামুন প্যাক খুব কাজ দেয়।

দাঁত ও মাড়ির সুরক্ষা:

জামের অ্যান্টি ব্যাকটিরিয়াল কোয়ালিটি মুখের স্বাস্থ্য ঠিক রেখে, মুখে দুর্গন্ধ আটকায়।জামের ভিটামিন সি মাড়ির রোগ, বা মাড়িথেকে রক্ত বেরোনো আটকায়। শুকনো জামপাতা পুড়িয়ে যে ছাই হয়, তা দিয়ে হালকা করে দাঁত মাজলে, দাঁত ঝকঝক করে।

হজম করায়:

ডায়েরিয়া হোক, কিংবা বদহজম, জামের কোনো জুড়ি নেই। এর অ্যান্টি ব্যাকটিরিয়াল গুনই এর কারণ।পেটের অসুখে প্রাচীনআয়ুর্বেদ ও ইউনানি চিকিৎসা তাই অনেকটা জাম-নির্ভর। জাম নিয়মিত খেলে কোষ্ঠ পরিষ্কার হয়।

হার্ট ভাল রাখে:

জামে থাকে tritepenoid, যে জিনিস শরীরে কোলেস্টেরল জমতে দেয় না ।এতে পর্যাপ্ত পটাশিয়াম থাকে যা উচ্চ রক্তচাপকে নিয়ন্ত্রণে রেখে স্ট্রোকের সম্ভাবনা কমায়।

ডায়াবেটিসের শত্রু:

ডায়াবেটিকদের রোজ জামের শরণাপন্ন হওয়া উচিত।জাম রক্তে সুগারের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখে।পরিমান মতো জাম রোজ খেলে সুগার থাকবে একটা লিমিট-এর মধ্যে। তাঁরা আরও একটা টোটকা ব্যবহার করতে পারেন, শুকিয়ে ফেলা জামের বীজের গুঁড়ো সকালে রাতে এক চা চামচ করে নিয়ে জলে গুলে খেয়ে নেবেন।

প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়:

অনেকেই আছেন যাঁদের সর্দি কাশির ধাত। অল্পতেই ঠান্ডা লাগিয়ে ভুগছেন। এঁদের জন্য নিয়মিত জাম খাওয়া খুব দরকারি।অন্তত যত দিন বাজারে জাম পাওয়া যায়। জাম এঁদের প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।

এত কিছু ছাড়াও লিভার, হাড়ের শক্তি বাড়াতে আর গলার কষ্ট দূর করতে জামের ভূমিকা ফেলনা নয়।

তাই জামে আসক্ত হোন, বছরে যত দিন জাম পাওয়া যায়।

Comments are closed.