সোমবার, সেপ্টেম্বর ২৩

থ্যাঙ্ক ইউ মিস্টার মোদী, টুইট ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রীর

দ্য ওয়াল ব্যুরো : রাষ্ট্রপুঞ্জে ইজরায়েলের পক্ষে ভোট দিয়েছে ভারত। তাই টুইট করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে ধন্যবাদ জানালেন ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু। রাষ্ট্রপুঞ্জের অর্থনৈতিক ও সামাজিক পরিষদে পরিদর্শক হতে চেয়ে আবেদন জানিয়েছিল প্যালেস্তাইনের স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা শাহেদ। ইজরায়েলের দাবি, সংস্থাটি প্যালেস্তিনীয় জঙ্গি সংগঠন হামাসের ঘনিষ্ঠ। কিন্তু তারা সেকথা গোপন করছে।

শাহেদ নামে সংগঠনটি যাতে রাষ্ট্রপুঞ্জের ওই সংস্থায় না ঢুকতে পারে, সেজন্য আবেদন জানিয়েছিল ইজরায়েল। ভারত তাদের সমাধান করেছে। শাহেদের প্রস্তাব নিয়ে রাষ্ট্রপুঞ্জে ভোটাভুটি হয় মঙ্গলবার। তখন ভারতের প্রতিনিধি ভোট দিয়েছেন ইজরায়েলের পক্ষে।

তার পরেই নেতানিয়াহু টুইট করেন, থ্যাঙ্ক ইউ নরেন্দ্র মোদী। থ্যাঙ্ক ইউ ইন্ডিয়া। আপনারা রাষ্ট্রপুঞ্জে আমাদের পক্ষে দাঁড়িয়েছেন। তাতে আমাদের সুবিধা হয়েছে।

এই প্রথমবার রাষ্ট্রপুঞ্জে ইজরায়েলের পক্ষে ভোট দিল ভারত। পশ্চিম এশিয়ার সমস্যা নিয়ে ভারতের অবস্থান খুব স্পষ্ট। তার মতে, আলোচনার মাধ্যমে স্বাধীন, সার্বভৌম প্যালেস্তাইন রাষ্ট্রের সৃষ্টি করতে হবে। তার রাজধানী হবে ইস্ট জেরুজালেম। ইজরায়েলের সঙ্গে তার সীমানা নির্দিষ্ট করা থাকবে। দুই প্রতিবেশী দেশ শান্তিতে বসবাস করবে। অতীতে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক মঞ্চে ভারত স্বাধীন প্যালেস্তাইন রাষ্ট্র সৃষ্টির পক্ষে জনমত তৈরি করেছে।

২০১৫ সালে রাষ্ট্রসঙ্ঘের মানবাধিকার কমিশনে গাজায় হিংসা নিয়ে এক প্রস্তাবের ওপর ভোটাভুটি হয়। ভারত ভোটদানে বিরত থাকে। গাজায় হিংসার জন্য ইজরায়েলকে দায়ী করা হয়েছিল। মোদীর সঙ্গে নেতানিয়াহুর বন্ধুত্বের জন্যই ভারত ওই প্রস্তাবে ভোট দেয়নি বলে পর্যবেক্ষকদের ধারণা। পরে অবশ্য ভারত প্যালেস্তিনীয় কর্তৃপক্ষকে বুঝিয়ে বলে, কেন তারা ভোটদানে বিরত ছিল। প্যালেস্তাইনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস দিল্লির অবস্থানকে সমর্থন করেছেন বলে জানা যায়।

রাষ্ট্রপুঞ্জের অর্থনৈতিক ও সামাজিক পরিষদে যখন শাহেদকে নিয়ে ভোটাভুটি হয়, তখন ইজরায়েলের পক্ষে ভোট দিয়েছিল আমেরিকা, ফ্রান্স, জার্মানি, ভারত, জাপান, ব্রিটেন, দক্ষিণ কোরিয়া ও কানাডা। অন্যদিকে প্যালেস্তাইনের পক্ষে ভোট দেয় চিন, রাশিয়া, সৌদি আরব এবং পাকিস্তান।

Comments are closed.