মোদীর বন্ধু ‘বিবি’ জিতলেন, পঞ্চমবারের জন্য ইজরায়েলে ক্ষমতায় ফিরছেন নেতানিয়াহু

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

    দ্য ওয়াল ব্যুরো : ভারতে লোকসভা ভোট শুরু হতে যখন মাত্র একদিন বাকি, ঠিক তখনই পরিষ্কার হয়ে গেল ইজরায়েলে জাতীয় নির্বাচনের ফলাফল। তাতে দেখা যাচ্ছে, বিপুল ভোটে জিতে পঞ্চমবারের মতো ক্ষমতায় আসতে চলেছেন লিকুদ পার্টির নেতা বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু তথা ‘বিবি’ (আন্তর্জাতিক কূটনীতিতে তিনি ওই নামেই পরিচিত)। তিনি ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বন্ধু। উভয়ের দৃষ্টিভঙ্গিতে যথেষ্ট মিল আছে। তাঁরা পরস্পরকে বন্ধু বলে সম্বোধন করেন। ইজরায়েলের ভোটাররা যেভাবে দক্ষিণপন্থী নেতানিয়াহুকে পছন্দ করেছেন, ভারতেও তার পুনরাবৃত্তি হতে পারে বলে পর্যবেক্ষকদের ধারণা।

    ২০১৭ সালে মোদী যখন ইজরায়েল সফরে যান, তখন অভ্যর্থনা জানিয়ে নেতানিয়াহু বলেছিলেন, আমরা এই দিনটির জন্য ৭০ বছর অপেক্ষা করছি। নেতানিয়াহু টুইটারে ভারতের প্রধানমন্ত্রী সম্পর্কে লেখেন, মাই ফ্রেন্ড নরেন্দ্র। মোদী লেখেন, মাই ফ্রেন্ড বি বি। মোদী যেমন হিন্দুত্ববাদী রাজনীতি করেন, তেমন নেতানিয়াহুও জায়নবাদে বিশ্বাসী। দুই মতাদর্শের মধ্যে অনেক মিল খুঁজে পেয়েছেন পর্যবেক্ষকরা।

    আরও পড়ুন: Breaking: মোদী ক্ষমতায় ফিরলে ভারত-পাক শান্তি আলোচনার সম্ভাবনা বাড়বে: ইমরান খান

    গত কয়েক দশক ধরেই বিশ্ব জুড়ে দক্ষিণপন্থী রাজনীতিকদের রমরমা শুরু হয়েছে। ন’য়ের দশকের শুরুতে সোভিয়েত ইউনিয়নের পতনের পরেই আন্তর্জাতিক রাজনীতিতে এই প্রবণতা দেখা দেয়। বর্তমানে আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প, জার্মানির অ্যাঞ্জেলা মার্কেল, ফ্রান্সের ইমানুয়েল মাকরঁ, সকলেই রক্ষণশীল মতাদর্শে বিশ্বাসী। ফলে ভারতেও মানুষ যদি হিন্দুত্ববাদকে ফের বেছে নেন তাতে আশ্চর্যের কিছু দেখছেন না পর্যবেক্ষকরা।

    ইজরায়েলে আনুষ্ঠানিকভাবে ভোটের ফল প্রকাশিত হবে শুক্রবার। কিন্তু বুধবারের মধ্যেই ৯৭ শতাংশ ভোট গণনা হয়ে গিয়েছে। নেতানিয়াহুর বিপক্ষে ছিলেন ব্লু অ্যান্ড হোয়াইট পার্টির নেতা বেনি গ্রান্তজ। এই দলটি মধ্যপন্থী বলে পরিচিত।

    ৬৯ বছরের নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে কয়েকটি দুর্নীতির অভিযোগ আছে। তিনি অবশ্য সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

    মঙ্গলবার গভীর রাতে লিকুদ পার্টির সদর দফতরের সামনে জড়ো হন সমর্থকরা। নেতানিয়াহু তাঁদের সামনে ভাষণে বলেন, আজ জয়ের রাত।

    ইজরায়েল রাষ্ট্রের ৭১ বছরের ইতিহাসে রেকর্ড গড়তে চলেছেন নেতানিয়াহু। তিনি সবচেয়ে বেশিদিন ধরে প্রধানমন্ত্রীর পদে থাকছেন। তবে এবার সম্ভবত তাঁর দল একাই সরকার গড়তে পারবে না। সেজন্য নেতানিয়াহু ইতিমধ্যে অন্য দলের সঙ্গে জোট করার উদ্যোগ নিয়েছেন।

    ভোট শেষ হওয়ার পরে এক্সিট পোলে কিন্তু দেখা গিয়েছিল, গ্রান্তজ জিতছেন। তিনি নিজেও দাবি করেছিলেন, আমরা জিতছি। নেতানিয়াহু এতদিন যেভাবে দেশকে সেবা করেছেন, সেজন্য তাঁকে ধন্যবাদ জানাই। কিন্তু ভোটগণনা কিছুদূর এগনোর পরেই দেখা যায়, নেতানিয়াহুর জয় অবধারিত।

    আরও পড়ুন

    Breaking: মোদী ক্ষমতায় ফিরলে ভারত-পাক শান্তি আলোচনার সম্ভাবনা বাড়বে: ইমরান খান

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

You might also like

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More