সোমবার, আগস্ট ১৯

কুলভূষণকে বাঁচিয়েছেন তারকা আইনজীবী হরিশ সালভে, জানেন তাঁর পারিশ্রমিক?

দ্য ওয়াল ব্যুরো: আন্তর্জাতিক আদালতে ফের আটকে গিয়েছে কুলভূষণ যাদবের মৃত্যুদণ্ড। তবে এর পিছনে রয়েছে একটি মানুষের ক্ষুরধার বুদ্ধি এবং দীর্ঘ দিনের পরিশ্রম। এবং এর বিনিময়ে তিনি নিয়েছেন মাত্র এক টাকা! তিনি হরিশ সালভে, কুলভূষণের আইনজীবী। তাঁর এই কীর্তির কথা সামনে আসার পরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রশংসার বন্যা বয়ে গিয়েছে।

নেটিজেনরা বলছেন, আইনজীবী তো আনেকেই হন। কিন্তু প্রকৃত আইনজীবী হওয়া কাকে বলে, সেটাই দেখিয়ে দিয়েছেন ভারতের বিখ্যাত আইনজীবী হরিশ সালভে। তাঁর মক্কেলদের তালিকায় রয়েছেন মুকেশ আম্বানি, ললিত মোদী, মুলায়ম সিং যাদব, মায়াবতী, অমরিন্দর সিং, প্রকাশ সিং বাদল, ভোডাফোন ইন্ডিয়া দিল্লি পুলিশ ইত্যাদি। সুপ্রিম কোর্টের এই আইনজীবী কোনও মামলার এক বার শুনানিতে উপস্থিত হলেই ৩০-৩৫ লক্ষ টাকা পারিশ্রমিক নেন। এ হেন হরিশ সালভেই কুলভূষণের মামলা লড়েছেন মাত্র এক টাকার বিনিময়ে।

কয়েক বছর ধরে টানাপড়েনের পরে আন্তর্জাতিক ন্যায়বিচার আদলতে মৃত্যদণ্ড আপাতত রদ হয়েছে কুলভূষণ যাদবের। সালভের জোরাল সওয়ালেই নিজেদের যুক্তি দাঁড় করাতে পারেনি পাকিস্তান। এতেই বুধবার পাকিস্তানের মুখে রীতিমতো চুনকালি পড়েছে। আর সেই কাজটাই মাত্র এক টাকার বিনিময়ে করেছেন হরিশ সালভে। এ কথা জানিয়েছেন, প্রাক্তন বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ নিজেই। জানিয়েছেন, কেবল দেশের স্বার্থে কুলভূষণের মামলা মাত্র ১ টাকায় লড়তে রাজি হয়েছেন দেশের অন্যতম সেরা এই আইনজীবী।

তবে হরিশ সালভের মতো হেভিওয়েট আইনজীবীর পক্ষেও এই মামলা লড়া মোটেও সহজ ছিল না। কারণ পাকিস্তানের তরফে একাধিক বার বাধা দেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছে তাঁকে। পাশাপাশি সওয়ালও তোলা হয় তাঁর নিয়োগ নিয়ে। কিন্তু পরে সুষমা নিজেই জানিয়েছিলেন, মাত্র ১ টাকার বিমিময়ে এই মামলা লড়বেন হরিশ সালভে।

চার্টার্ড অ্যাকাউন্টট্যান্ট হিসেবে নিজের পেশাগত জীবন শুরু করেছিলেন সালভে। এর পরে ১৯৯৯ সালে দেশের সলিসিটার জেনারেল হন তিনি। তারপর থেকেই সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী হিসেবে খ্যাত তিনি। প্রয়াত কংগ্রেস নেতা এনকেপি সালভের পুত্র হরিশ সালভে। দেশের সবচেয়ে দামী আইনজীবীদের মধ্যে তাঁর নাম উঠে আসে একবারে প্রথম দিকে।

সলমন খানের হিট অ্যান্ড রান মামলায় তাঁকে জামিন করিয়ে দিয়ে খবরে এসেছিলে সালভে। তার পরে, কুলভূষণ মামলায় তাঁর অকাট্য সওয়ালের জেরেই বুধবার আন্তর্জাতিক আদালতে ১৬ বিচারকের মধ্যে ১৫ জনই ভারতের পক্ষে রায় দিয়েছেন বিচারকেরা। এর ফলে কুলভূষণের মৃত্যুদণ্ড পুনর্বিবেচনা করতে হবে পাকিস্তানকে।

Comments are closed.