রবিবার, ডিসেম্বর ১৫
TheWall
TheWall

চোখ দিয়ে রক্ত ঝরছে, স্ত্রী কেঁদে বলছেন, আমাকে স্বামীর হাত থেকে বাঁচান…

দ্য ওয়াল ব্যুরো : রক্তাক্ত অবস্থায় সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের ভিডিও পোস্ট করেছেন এক মহিলা। তাঁর অভিযোগ, স্বামী মারধর করেছেন তাঁকে। তিনি ভারতীয় নাগরিক। থাকেন শারজায়। ভিডিও দেখে তাঁর স্বামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গত ১২ নভেম্বর টুইটারে নিজের ভিডিও পোস্ট করেন জেসমিন সুলতান। তাঁর বয়স ৩৩। ভিডিওতে দেখা যায়, তাঁর একটি চোখ থেকে রক্ত পড়ছে। কাঁদতে কাঁদতে তিনি বলেন, স্বামী তাঁকে মারধর করেছেন। গালফ নিউজ সংবাদপত্রের খবর অনুযায়ী, ওই টুইট দেখেই তৎপর হয় শারজা পুলিশ। গত বুধবার রাতে তাঁর স্বামী গ্রেফতার হন। স্বামীর নাম মহম্মদ খিজার উল্লা। বয়স ৪৭ বছর।

জেসমিন টুইট করেছেন, “আমাকে এখনই সাহায্য করুন। আমার নাম জেসমিন সুলতান। আমি সংযুক্ত আরব আমিরশাহির শারজায় বাস করি। আমাকে স্বামী প্রচণ্ড মারধর করেছেন… আমাকে বাঁচান।”

তিনি জানান, তাঁদের বিয়ে হয়েছে সাত বছর আগে। তাঁদের দু’টি সন্তান। একটির বয়স পাঁচ বছর, অপরটির ১৭ মাস। স্বামী তাঁকে রোজ মারধর করেন। স্বামী জেসমিনের পাসপোর্ট কেড়ে নিয়েছেন। তাঁর কাছে যে গয়নাগাটি ছিল তাও কেড়ে নিয়েছেন। তিনি সরকারের কাছে আবেদন জানিয়েছিলেন, তাঁকে বেঙ্গালুরুতে ফিরিয়ে দেওয়া হোক। সেখানে তাঁর বাপের বাড়ি। শারজায় থাকলে তিনি সন্তানদের মানুষ করতে পারবেন না।

শারজা পুলিশ জানিয়েছে, জেসমিনকে দেশে ফিরে যেতে সাহায্য করা হবে কিনা, তা নিয়ে উপযুক্ত কর্তৃপক্ষ সিদ্ধান্ত নেবে। তবে ভবিষ্যতে কেউ যেন জেসমিনের মতো ভিডিও পোস্ট না করেন। কারণ তাতে সমাজের ওপরে নেতিবাচক প্রভাব পড়ে।

Comments are closed.