রবিবার, মার্চ ২৪

উচ্চশিক্ষায় হাত মেলালো ভারত-ভুটান

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ভারতের সঙ্গে ভুটানের সম্পর্ক দীর্ঘদিনের। ভালোবাসার বন্ধনে আবদ্ধ রয়েছে এই দুই রাষ্ট্র। ভুটানের প্রতিরক্ষা, বাণিজ্য এবং পররাষ্ট্র নীতির ক্ষেত্রে ভারত সবসময় সাহায্য করে, পরামর্শ দেয়। আর এ বার শিক্ষা দফতরের মাধ্যমে আরও ঘনিষ্ঠ হতে চলেছে এই দুই দেশ।

ভারতে বিদেশি পড়ুয়াদের জন্য বেশ কয়েকটি মেধাবৃত্তি চালু রয়েছে। তবে এবার ভুটান থেকে আসা পড়ুয়াদের জন্য সেই বৃত্তির পরিমাণ বাড়িয়ে দেওয়া হলো। এই উপলক্ষে ভুটান সরকারের উচ্চশিক্ষা এবং পরিকল্পনা দপ্তরের আধিকারিকরা জেআইএস–এর অনেকগুলি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঘুরে দেখলেন। তাঁরা এসেছিলেন ৬ জুলাই। সে দেশ থেকে মেধাবৃত্তি নিয়ে পড়তে আসা পড়ুয়ারা এখানে কী কী সুযোগ সুবিধা পাচ্ছেন তা দেখে গেলেন তাঁরা। গত ৬ জুলাই ভুটান সরকারের রয়াল সিভিল সার্ভিস কমিশনের সাত প্রতিনিধির দল এসেছিলেন এ দেশে। জেআইএস গোষ্ঠীর জিএনআইটি, এনআইটি এবং জেআইএস বিশ্ববিদ্যালয় এবং অন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঘুরে দেখে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন এই প্রতিনিধি দল। প্রতিনিধিদলের সদস্যরা জেআইএস গোষ্ঠীর অধিকর্তা এস এস দত্তগুপ্তের সঙ্গে কথা বলেন। তাঁরা যে পরিকাঠামো নিয়ে সন্তুষ্ট সে কথাও জানান। তাঁরা ঠিক করেছেন ভুটানের শিক্ষা এবং রয়াল সিভিল সার্ভিস কমিশনের ৩০ জন পড়ুয়াকে এ দেশে উচ্চশিক্ষার জন্য পাঠাবেন। বিশেষ করে বায়োটেকনোলজি, মাইক্রোবায়োলজি, জেনেটিক্স, বিবিএ, অঙ্ক, হোটেল অ্যান্ড হসপিটালিটি–র মতো বিষয় পড়ার জন্য আগ্রহ দেবেন এই পড়ুয়াদের।

উচ্চ শিক্ষার জন্য বিদেশ থেকে ভারতে আসার চাহিদা ক্রমশ বাড়ছে। এ দেশের উন্নত উচ্চ শিক্ষার মান, পড়ুয়াদের পঠনপাঠনের ক্ষেত্রে বিভিন্ন সুবিধা, ভালো শিক্ষক-শিক্ষিকা এবং কম খরচে পড়াশোনার সুযোগ—-এই সবের জন্য বিদেশ থেকে ভারতে পড়তে আসছেন ছাত্র-ছাত্রীরা। ডেপুটি চিফ হিউম্যান রিসোর্স অফিসার ডেচেন ইয়াডন বলেছেন, ‘শ্রীলঙ্কা এবং বাংলাদেশে অনেকে পড়তে গেলেও কম খরচ এবং কম দূরত্বের জন্য ভারতকেই বেশি পছন্দ করেন পড়ুয়ারা।’ জেআইএস গোষ্ঠীর এমডি সর্দার তরণজিৎ সিং জানিয়েছেন, দক্ষতা উন্নয়ন, বিগ ডেটা, ইন্টারনেট, রোবোটিক্সের মতো বিষয়গুলি ভারতে বেশ উন্নত। আর সেই জন্য পড়ুয়াদের মধ্যে এ দেশে আসার আকর্ষণ বাড়ছে। যাঁরা ভারতে পড়তে আসছেন তাঁদের সবাইকে স্বাগত। জেআইএস গোষ্ঠী তাঁদের পাশেই রয়েছে।

Shares

Leave A Reply