বুধবার, অক্টোবর ১৬

আমি সাহস হারাইনি, সনিয়া, মনমোহনের সঙ্গে দেখা করার পরে বললেন চিদম্বরম

দ্য ওয়াল ব্যুরো : গত ৫ সেপ্টেম্বর থেকে তিহাড় জেলে বন্দি আছেন প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরম। সোমবার জেলে গিয়ে তাঁর সঙ্গে দেখা করেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং ও কংগ্রেসের সভানেত্রী সনিয়া গান্ধী। কংগ্রেস বরাবরই বলে আসছে রাজনৈতিক কারণেই মামলায় ফাঁসানো হয়েছে চিদম্বরমকে। পর্যবেক্ষকদের মতে, এদিন তিহাড়ে গিয়ে সনিয়া ও মনমোহন আরও একবার বুঝিয়ে দিলেন, দল এখনও চিদম্বরমের পাশেই আছে।

সোমবার ছিল চিদম্বরমের ৭৪ বছরের জন্মদিন। জন্মদিনে চিদম্বরমের পক্ষ থেকে তাঁর পরিবার টুইট করে বলে, আজ সনিয়া গান্ধী ও মনমোহন সিং আমার সঙ্গে দেখা করতে আসায় নিজেকে সম্মানিত বোধ করছি। যতদিন আমার দল সাহসী ও শক্তিশালী থাকবে, আমিও সাহসী ও শক্তিশালী থাকব।

এদিন কংগ্রেস নেতাদের সঙ্গে তিহাড়ে যান চিদম্বরমের ছেলে কার্তি চিদম্বরম। পরে তিনি বলেন, সনিয়া গান্ধী আমার বাবার পাশে দাঁড়িয়েছেন। মনমোহন সিং-এর সঙ্গে আমার বাবা অনেকক্ষণ দেশের অর্থনীতি নিয়ে আলোচনা করেছেন।

গত সপ্তাহে কংগ্রেসের অপর দুই নেতা গুলাম নবি আজাদ ও আহমেদ পটেল জেলে চিদম্বরমের সঙ্গে দেখা করেন। চিদম্বরমের বিরুদ্ধে অভিযোগ, ২০০৭ সালে অর্থমন্ত্রী থাকাকালীন তিনি আইএনএক্স মিডিয়া নামে এক সংস্থাকে বিপুল পরিমাণ বিদেশী অর্থ পাইয়ে দিয়েছিলেন। বিনিময়ে অর্থমন্ত্রী নিজে মোটা টাকা কিকব্যাক পান।

আইএনএক্স মিডিয়ার দুই প্রতিষ্ঠাতা পিটার মুখার্জি ও ইন্দ্রাণী মুখার্জি বলেন, তাঁরা নিজেরা দিল্লিতে গিয়ে চিদম্বরমের সঙ্গে কথা বলেছিলেন। অর্থমন্ত্রীর কাছে তাঁদের নিয়ে গিয়েছিলেন কার্তি। গত বৃহস্পতিবার দিল্লি কোর্টে চিদম্বরমের কৌঁসুলি বলেন, জেলে প্রাক্তন অর্থমন্ত্রীকে কোনও বালিশ দেওয়া হয়নি। তাঁর বসার জন্য একটি চেয়ারও নেই। সেজন্য বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতার পিঠে ব্যথা হয়েছে। আদালত চিদম্বরমের আর্জি মতো বালিশ বা চেয়ার দিতে রাজি হয়নি। তাঁকে ৩ অক্টোবর পর্যন্ত জেল হেপাজতে রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

Comments are closed.