এনআরসি রুখতে কাছাকাছি মোর্চা-জিএনএলএফ, পাহাড়ে তীব্র জাতিসত্ত্বা

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

দ্য ওয়াল ব্যুরো, দার্জিলিং এনআরসি ইস্যু কাছাকাছি আনল দুই মেরুতে থাকা পাহাড়ের দুই রাজনৈতিক দল জিএনএলএফ ও গোর্খা জনমুক্তি মোর্চাকে। নাগরিকত্ব আইন রুখতে পাহাড়ে আইএলপি (ইনারলাইন পারমিট) চালুর দাবিতে সরব হয়েছিল গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা (বিনয়পন্থী)। মঙ্গলবার জিএনএলএফ এই আইন রুখতে সামনে আনল ষষ্ঠ তফশিলের দাবি।

এ দিন এনআরসি নিয়ে দলের স্টিয়ারিং কমিটির বৈঠকের পরে জিএনএলএফ মুখপাত্র মহেন্দ্র ছেত্রী জানান, নাগরিকত্ব আইন নিয়ে আতঙ্কিত গোর্খারা। কারণ এই আইন খতিয়ে দেখার পর তাঁদের মনে হয়েছে এই আইন লাগু হলে নিজেদের নাগরিকত্ব প্রমাণে অসুবিধায় পড়বেন গোর্খারা। তিনি বলেন, “বাংলাদেশ, আফগানিস্তান ও পাকিস্তান থেকে আসা অ-মুসলমানদের নাগরিকত্ব দেওয়ার কথা বলা হলেও নেপাল, ভুটান, বা শ্রীলঙ্কা থেকে আসা লোকেদের সম্পর্কে আইনে কিছু বলা নেই। এনআরসির প্রাথমিক পর্যায়ে এনপিআর নোটিস জারি হলে, সরকারি কর্মীরা ঘরে ঘরে গিয়ে প্রত্যেকের বাবা মার জন্মস্থান জানতে চাইলে তার উত্তর নেই গোর্খাদের অনেকের কাছেই। তাই আগে ষষ্ঠ তপশিল লাগু করে গোর্খাদের নিরাপত্তা দেওয়া হোক। তারপর বাকি কথা হবে।”

জিএনএলএফের এই বক্তব্যের সঙ্গে তাঁরা সম্পূর্ণ সহমত বলে জানান গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার (বিনয়পন্থী) নেতা কেশব পোখরেল। তিনি বলেন, “আমরা তো প্রথম থেকেই বলছি, এনআরসি লাগু হলে গোর্খাদের ভাল হবে না। এই লড়াইয়ে ওঁরাও আমাদের পাশে থাকুক।” এক কদম এগিয়ে পাহাড়ের বিজেপি নেতৃত্বকেও এনআরসির বিরুদ্ধে আন্দোলনে সামিল হওয়ার ডাক দেন তিনি। বলেন, “জাতির যখন সঙ্কট আসে তখন দলকে সরিয়েই এগোতে হয়। তাই গোর্খাদের সঙ্কটে পাহাড় বিজেপিও তাঁদের পাশে দাঁড়াক।”

এক মাস আগে নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে গর্জে উঠেছিল দার্জিলিং, কালিম্পং, কার্শিয়াং ও মিরিক। গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার (বিনয়পন্থী) ডাকা সেই প্রতিবাদের সুরেও মিশে ছিল গোর্খাদের জাতিসত্তা রক্ষার দাবি। ১৯৯০ সালে বাতিল হওয়া ইনার লাইন পারমিট (আইএলপি) ফের চালুর দাবি উঠেছিল। কারণ আইএলপি চালু থাকলে সেই ভূখণ্ডে নাগরিকত্ব আইন লাগু করা যায় না। আজ গোর্খাদের রক্ষাকবচ হিসেবে ষষ্ঠ তফসিল চাইলেন জিএলএফ নেতারা। তবে মোর্চার বক্তব্য ষষ্ঠ তফসিল লাগু হলেই এনআরসি থেকে বাঁচা যাবে, বিষয়টা এমন নয়। তাই জাতিসত্ত্বা রক্ষার লড়াইটাই এখানে প্রধান।

নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে বুধবার দার্জিলিঙে মিছিল করবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই মিছিলে অবশ্য তাঁরা পা মেলাবেন না বলেও জানিয়ে দিলেন জিএনএলএফ নেতৃত্ব।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More