Latest News

Madhya Pradesh Tourism: পাহাড় থেকে জঙ্গল, বেড়ানোর ঠিকানা হোক মধ্যপ্রদেশ

দ্য ওয়াল ব্য়ুরো: বন-জঙ্গল, ইতিহাস, স্থাপত্য, লোকশিল্প— এমন নানা আকর্ষণে ভরপুর ভারতবর্ষের হৃদয় মধ্যপ্রদেশ (Madhya Pradesh Tourism)। ঘন অরণ্যের আদিমতা থেকে স্থাপত্য় শিল্প, মধ্য়প্রদেশ মুগ্ধ করবেই। আর মধ্যপ্রদেশ পর্যটনের যথেষ্ট সুনাম আছে। গত ১১ থেকে ১৩ মার্চ কলকাতায় রমরম করে হয়ে গেল বেঙ্গল ট্য়ুরিজম ফেস্ট। এই পর্যটন মেলার অন্যতম আকর্ষণ ছিল মধ্য়প্রদেশ ট্যুরিজম।

বাঙালির ঘুরতে যাওয়ার তালিকায় যে যে পর্যটন স্থলের লিস্ট আছে তার মধ্য়ে মধ্যপ্রদেশ (Madhya Pradesh Tourism) একটি তাতে কোনও সন্দেহই নেই। দুর্গা পুজোর সময় ব্যাগপত্র গুছিয়ে মধ্যপ্রদেশের কানহা ন্যাশনাল ফরেন্ট বা খাজুরাহোর স্থাপত্য, বাঙালির তালিকায় একবার না একবার থাকবেই। মধ্য়প্রদেশ ট্যরিজম বোর্ড পর্যটকদের জন্য ভাল বন্দোবস্তও রেখেছে। অন্তত ৬২টি হোটেল রয়েছে। পকেট বুঝে লাক্সারি ট্যুরের জন্য বেশ ভাল। তাছাড়া লোকাল ট্যুরের জন্য নানারকম হোম স্টে রয়েছে। ভিলেজ ট্যুর, গ্রাম স্টে, ফার্ম স্টে–যা চাই পাবেন।

বাঘের দেশ মধ্যপ্রদেশ। কানহা-বান্ধবগড়ের খ্যাতি বিশ্ববিদিত (Madhya Pradesh Tourism)। সময় পেলে অবশ্যই ঘুরে দেখতে পারেন পেঞ্চ। কানহা-র দু’টি প্রধান প্রবেশপথ— খাটিয়া ও মুক্কি, এদের ঘিরে রয়েছে নানা হোটেল, রিসর্ট। মধ্যপ্রদেশ স্টেট ট্যুরিজম ডেভেলপমেন্ট কর্পোরেশনের (এমপিএসটিডিসি) ট্যুরিস্ট লজ আছে দুই জায়গাতেই। 

International Forest Day: নাচের তালে প্রকৃতির আবাহন, আন্তর্জাতিক অরণ্য দিবস মাতিয়ে দিলেন ওঁরা

সকাল-বিকেল চলুন সাফারি-তে। এখন বাফার জোনেও সাফারির ব্যবস্থা করেছে ট্য়ুরিজম বোর্ড। নাইট সাফারির বন্দোবস্তও আছে। জঙ্গলের ফাঁক দিয়ে বা রাস্তার উপর এক ঝলক হলুদ-কালো ডোরাকাটার দেখা পাওয়ার মজাই আলাদা। কপাল ভাল থাকলে হয়তো দেখলেন আপনার গাড়ি যাওয়ার রাস্তার ওপরেই বসে রয়েছে বাঘ বা বাঘিনি ও তাদের শাবকেরা।

মধ্যপ্রদেশের রাজধানী ভোপাল শহর জুড়ে নানা আকর্ষণ (Madhya Pradesh Tourism)। এখান থেকে ঘুরে নিতে পারেন ইতিহাস বিখ্যাত বেশ কয়েকটি জায়গা, যেমন সাঁচি, ভীমবেটকা ইত্যাদি। ভোপালের জন্য দু’দিন রাখতেই হবে, তার সঙ্গে আরও দিন তিনেক বাকি জায়গাগুলি দেখার জন্য। সাঁচি বলতেই চোখের সামনে ভেসে ওঠে এক সুদৃশ্য তোরণ আর মহাস্তূপের ছবি। সাঁচিকে কেন্দ্র করে ঘুরে নিতে পারেন বিদিশা, উদয়গিরি এবং গৈরাসপুর। চান্দেলা রাজবংশের হাতে ৯৫০-১০৫০ খ্রিস্টাব্দে তৈরি অপূর্ব মন্দিররাজি দেখতে ঘুরে আসুন খাজুরাহো। খাজুরাহো নিয়ে লেখা হয়েছে অজস্র, বহু আলোচিত হয়েছে সেখানকার মিথুন ভাস্কর্য। পাথর কুঁদে তৈরি দেবতা থেকে মানুষ, পশু-পাখি চিত্রায়িত ওই নিখুঁত শিল্পকলার সামনে দাঁড়ালে মুগ্ধ হতেই হয়। তাহলে আর দেরি নয়, হাতে ছুটিছাটা পেলেই ঘুরে আসুন মধ্য়প্রদেশে।

You might also like