Latest News

কলকাতায় খুলল হাটারির নতুন কন্টিনেন্টাল আউটলেট, ক্যাফেতে বসে বই পড়ার মজাও পাবেন

দ্য ওয়াল ব্যুরো: কলকাতার প্রাচীন ঐতিহ্যবাহী চাইনিজ রেস্তরাঁ হাটারি এবারে ‘হাটারি গ্রিলস’ (Hatari Grillz) নামে ক্যাফে কাম কন্টিনেন্টাল রেস্তোরাঁ চালু করল। দক্ষিণ কলকাতার বিবেকানন্দ পার্কের পাশে লেক টেরেস ,পি-৫৫৭ , হেমন্ত মুখোপাধ্যায় সরণিতে ১১০০ স্কোয়ার ফুটের জায়গা জুড়ে চোখ ধাঁধানো অন্দরসজ্জায় সুসজ্জিত এই রেস্তোরাঁর উদ্বোধন হল। ৩৫টি আসন বেষ্টিত রেস্তোরাঁর মনোগ্রাহী অন্দরসজ্জা মানসিক প্রশান্তি দেয়। এই রেস্তোরাঁর আবার বুক সেকশনও আছে। সেটা বইপ্রেমীদের জন্য বাড়তি আকর্ষণের জায়গা। রেস্তোরাঁর উদ্বোধনের আগেই দ্য ওয়ালের মুখোমুখি হলেন কর্ণধার তথা ডিরেক্টর সমরেন্দ্র মুখোপাধ্যায়। কথা বললেন চৈতালি দত্ত।

কলকাতার হেরিটেজ রেস্তোরাঁ হাটারি সুদীর্ঘ পথ অতিক্রান্ত করার পর এবারে ক্যাফে কাম কন্টিনেন্টাল রেস্তোরাঁ হাটারি গ্রিলস এর জন্ম হল। এই চিন্তা ভাবনা কতদিনের?

সমরেন্দ্র: আমরা ছ’ মাস অধিক সময় ধরে এই ধরনের রেস্তোরাঁ (Hatari Grillz) চালু করব বলে চিন্তাভাবনা করেছি। বেশ কয়েক বছর ধরে মানুষের জীবনধারা, খাদ্যাভাসের পরিবর্তন ঘটেছে। কর্মব্যস্ত জীবনে মানুষ এখন কাজের ফাঁকেই ‘স্মল বাইটসের’ খোঁজ করেন যেখানে সুস্বাদু খাবার পাওয়া যাবে। খাবারের কোয়ালিটিও হবে খাঁটি। সেই চিন্তাভাবনা থেকেই এই রেস্তোরাঁ খোলা।

Image - কলকাতায় খুলল হাটারির নতুন কন্টিনেন্টাল আউটলেট, ক্যাফেতে বসে বই পড়ার মজাও পাবেন

আমি হাটারির দ্বিতীয় প্রজন্মের মানুষ। ১৯৯৫ থেকে আমি প্রত্যক্ষভাবে এই রেস্তোরাঁর সঙ্গে সম্পৃক্ত। তাই গত ২৭ বছর ধরে দেখছি মানুষের লাইফস্টাইলের আমুল পরিবর্তন ঘটেছে। আমাদের ছেলেবেলায় জন্মদিনে কোনও রেস্তোরাঁয় খেতে যাওয়া মানে ছিল বিলাসিতা। জন্মদিন সেলিব্রেশন করতে রেস্তোরাঁয় যাওয়া মানে বছরের ওই দিনটি স্মরণীয় হয়ে থাকত। আমার বয়সী কমবেশি সকলেরই সেই অভিজ্ঞতা আছে। আজ থেকে বহু বছর আগের কথাই বলছি। কিন্তু বর্তমান সময় দাঁড়িয়ে রেস্তোরাঁয় খেতে যাওয়া যেন রোজনামচার মতো। গত পাঁচ- সাত বছরে হঠাৎই কলকাতায় ক্যাফে কালচার উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পেয়েছে। দীর্ঘ ২৭ বছর ধরে ওতপ্রোতভাবে ফুড সেক্টরের সঙ্গে যুক্ত থাকার ফলে আমাদের একটা নিজস্ব অভিজ্ঞতা রয়েছে । তখন মনে হল যে এই সেক্টরে আমরা যদি কন্টিনেন্টাল ফুডের রেস্তোরাঁ চালু করি এবং খাদ্য রসিকদের সঠিক খাবার পরিবেশন করতে পা,রি তবে আমাদের ব্র্যান্ডের একটা অন্য দিগন্ত খুলে যাবে। সেই চিন্তা ভাবনা থেকেই এই হাটারি গ্রিলস এর জন্ম।

উষ্ণতা ছড়াবে কাফতান, ইন্দো-ওয়েস্টার্নে নানা রঙের খেলা, এবার পুজোয় নতুন কী করছেন অদিতি

হাটারি গ্রিলস (Hatari Grillz) শুধুমাত্র ক্যাফে নয়, ক্যাফের ধাঁচে তৈরি করা হয়েছে। বিভিন্ন স্বাদের চা ,কফি ,শেকস, বেভারেজ ইত্যাদি নানা রকমের প্রচুর ভ্যারাইটি আছে। পাশাপাশি আবার আমাদের এখানে রয়েছে প্রচুর ‘স্মল বাইটস’ ডিশ। যাতে কাজের ফাঁকে অল্পসময়ের জন্য এখানে এসে মানুষ স্মল বাইটস খেতে পারেন। এখানে ইলাবোরেট কন্টিনেন্টাল ডিশ রয়েছে যা খুব কম রেস্তোরাঁতে থাকে। আমরা কোনও দেশভিত্তিক কন্টিনেন্টাল ডিশ সার্ভ করব না।

Image - কলকাতায় খুলল হাটারির নতুন কন্টিনেন্টাল আউটলেট, ক্যাফেতে বসে বই পড়ার মজাও পাবেন

কী কী ধরনের খাবার এখানে মিলবে?

সমরেন্দ্র : এখানে ভেজ ননভেজ দু’রকমই আইটেম রয়েছে। উল্লেখযোগ্য স্টেক, বার্গার, পিৎজা, পাস্তা, সিজলার, স্যালাড, স্প্যাগেটি, গ্রিলড আইটেম, মকটেল ইত্যাদি । প্রতিটি আইটেমে প্রচুর অপশন রয়েছে । কন্টিনেন্টাল ডিশ চাখতে চাখতে বই পড়ার মজাও নিতে পারবেন বইপ্রেমীরা। খাবারের পাশাপাশি যাতে রক্ষণশীল পরিবারের মানুষজনও এখানে নির্দ্বিদায় আসতে পারেন সেজন্য রয়েছে আকর্ষণীয় বুক সেকশন।

নতুন এই রেস্তোরাঁর গুণগত মান বজায় রাখতে কী ধরনের পদক্ষেপ নিয়েছেন?

সমরেন্দ্র: দেখুন আমাদের ৫৭ বছরের হেরিটেজ রেস্তোরাঁ আজও গুণগত মানের জন্যই স্বমহিমায় দাঁড়িয়ে আছে। কখনওই আমরা কিন্তু প্রতিযোগিতার দৌড়ে সামিল হইনি। তাই এই মুহূর্তে হাটারির সমগ্র কলকাতায় ১১টি আউটলেট রয়েছে। আমাদের কাছে এখন প্রধান লক্ষ্য মানুষকে যথার্থ অর্থে প্রকৃত খাবার পরিবেশন করা । রেস্তোরাঁ থেকে কতটা লাভ করব সেই চিন্তা ভাবনা আমাদের নেই। মানুষের কাছে যাতে আমাদের গ্রহনীয়তা বাড়ে সেটাই এখন আমাদের মূল ধ্যানজ্ঞান। স্বাস্থ্য সচেতন মানুষ এখন খাঁটি খাবার খেতেই পছন্দ করেন।
চাইনিজ খাবারের পাশাপাশি প্রায় ১৫ বছর ধরে মানুষের চূড়ান্ত চাহিদার কারণে হাটারির সব শাখাতে চাইনিজের পাশাপাশি ইন্ডিয়ান, নর্থ ইন্ডিয়ান, তন্দুর সেকশন চালু করেছি। এত বছর ধরে প্রজন্মের পর প্রজন্ম আমাদের খাবারের ভক্ত। তাই মাথায় রেখেছি একই রকম গুণগত মানসম্পন্ন কন্টিনেন্টাল খাবারও যাতে যথার্থ ভাবে পরিবেশন করতে পারি। ফলে আমরা খাঁটি উপকরণ থেকে শুরু করে যাবতীয় সেটআপ সেভাবে তৈরি করেছি। লোকসংখ্যা বাড়িয়েছি। এই রেস্তোরাঁকে কেন্দ্র করে অনেক মানুষের কর্মসংস্থান হয়েছে। যাতে মানুষ এখানে এক কাপ চা, কফি খেলেও মনে রাখেন যেন আমরা খাঁটি জিনিসটাই পেলাম।

Image - কলকাতায় খুলল হাটারির নতুন কন্টিনেন্টাল আউটলেট, ক্যাফেতে বসে বই পড়ার মজাও পাবেন

এখানে খাবারের খরচ কমপক্ষে কী রকম?

সমরেন্দ্র: কমপক্ষে ১০০০ টাকা+কর(২জন)।

আগামী দিনে হাটারি গ্রিলসকে ঘিরে আপনাদের ব্যবসায়িক পরিকল্পনা কীরকম রয়েছে?

সমরেন্দ্র: এটা সম্পূর্ণ সময়ের ওপর নির্ভর করবে। যাতে আমাদের কোনও রকম দুর্নাম না হয় সেই চিন্তাভাবনাও মাথায় রয়েছে। আমাদের হাটারি রেস্তোরাঁর ঐতিহ্য আজও বহমান। আমরা যাতে সব সময় আপডেট থাকতে পারি সেই পদক্ষেপও আমরা নিতে শুরু করছি। সেটা নিয়েও এখন রিসার্চ চলছে। যদি আমরা সাফল্য পাই তবে এই রেস্তোরাঁর ভবিষ্যতে আরও আউটলেট কলকাতায় খুলবে।

প্রতিদিন কটা পর্যন্ত রেস্তোরাঁ খোলা থাকবে?

সমরেন্দ্র: ১১.৩০- রাত ১১টা।

You might also like