Latest News

পেটের গড়ন বলবে কেমন পোশাক মানাবে আপনাকে

এই মুহূর্তে ফ্যাশনে যা ইন, তাই কিন্তু আপনার জন্য নয়। পেটের গড়ন যেমন, আপনাকে ড্রেস বাছতে হবে তেমন। পরামর্শ দিলেন বিশিষ্ট এস্থেটিশিয়ান, মেকআপ ডিজাইনার ও এডুকেটর গৌরী বোসমডেলের নাম মৌমিতা। ওকে দেখে আমার সেই বিখ্যাত লাইনটা মনে পড়ে “তন্বী শ্যামা শিখর দশনা”। গায়ের রংটা অদ্ভূত। ফর্সা, কালো বা গম রং কোনওটাই নয়। কালো আর গম রঙের মাঝামাঝি একটা রং। সাধারণ ভাষায় চুলের রং কালো বলা হয়। কিন্তু কালো ও সাদা অনেক রকমের হয়। নিজেদের যদি একাধিক কালো ও সাদা ড্রেস থাকে তাহলে সেগুলো দেখলেই এটা বোঝা যায়। মৌমিতার চুলের রং কালো শেডের মাঝামাঝি। গায়ের রঙের সঙ্গে চুলের রঙের সামঞ্জস্য থাকায় সব মিলিয়ে বেশ ভালোই লাগে। লম্বা ও ছিপছিপে গড়ন। কিন্তু ছিপছিপে হলেও বেশ ভরাট, কাষ্ঠ-সুন্দরী নয়। সাজগোজ করার খুবই শখ। নানানরকম জামাকাপড় পরার জন্য এক পা এগিয়ে থাকে।দীর্ঘ ২ বছর প্যান্ডামিকের ভেতর আছি সবাই। এর ভেতর যখন যখন লক্‌ডাউন হয়েছে, তখন প্রতিদিন রবিবার। সাধারণত রবিবার মানেই জমিয়ে খাওয়া দাওয়া। ‘ওভার ইটিং’ অর্থাৎ পেটে যা ধরে তার থেকে বেশ বেশি খানিকটা খেয়ে নিয়ে হাঁসফাঁস করা। একেই বলে ‘জমিয়ে ছুটি’। বেশিরভাগ মানুষই লক্‌ডাউনে খাওয়া ও রেস্টের কারণে ‘পুট অন’ করেছেন। মৌমিতাও তার ব্যতিক্রম নয়। শরীরের প্রধান জায়গা হল পেট। পেটের গঠনের ওপর জামাকাপড় পরার সমস্ত ফ্যাশন নির্ভরশীল। পেটে যদি ফ্যাট জমে বাল্কি হয়ে যায়, তাহলে খুব ভেবেচিন্তে পোশাক পরতেই হবে। মৌমিতার পেটের স্বাভাবিক গঠনের তুলনায় সামান্য হলেও ফ্যাট জমে একটু চোখে লাগছিল। ও কোনওদিনই ডায়েট করে না। খাবার অভ্যেস ও রুটিনটা স্বাভাবিক, তাই কিছু এক্সারসাইজ দিলাম যাতে বাড়তি ফ্যাট কমে যায়। সাত-আট সপ্তাহ পর ফলাফল খুবই ভালো অর্থাৎ পেটটা প্রোপরশনেট্‌ হল।ফ্যাশন টিপস ১: কাছের ক’জন বন্ধুবান্ধবের ‘ইভনিং পার্টি’। ফিটিংস স্কার্ট আর স্লিভলেস হাফনেক টপ। এরসাথে ১৬” চেন ও ফ্যাশানেবল্‌ পেন্ডেন্ট পরা যেতে পারে। এছাড়া কানে হ্যাঙ্গিং খুব বড় সাইজের দুলও খুব অ্যাট্রাক্টিভ লাগবে। সেক্ষেত্রে গলায় কিছু পরা যায় না। দুলটাই হবে হাইলাইটেড্‌ পার্ট। বাঁ হাতে একগোছা (রিস্ট থেকে চার বা পাঁচ ইঞ্চি) নানান ডিজাইনের জাংক ব্যাংগেলস্‌ পরলে খুবই ফ্যাশানেবল্‌ লাগবে। তবে দুলের সাথে তা যেন মানানসই হয়।মৌমিতার ড্রেসের সঙ্গে সিলভার অক্সিডাইজড্‌ লাল কালো স্টোন বা বিডস্‌-এর অ্যাক্সেসরিজ বেশ মানানসই হবে।

ফ্যাশন টিপস ২: এই ধরনের ড্রেসের সঙ্গে সম্পূর্ণ কন্ট্রাস্ট অ্যাক্সেসারিজ দারুণ আর্কষনীয় হয়। লাল রঙের ব্যাগ, জুতো, ঘড়ির ব্যান্ড ও কানে লাল স্টোন বা বিডস্‌-এর খুব বড় হ্যাঙ্গিং দুল।

ফ্যাশন টিপস ৩: চুলটা ‘মেসি টপ নট্‌’ করলে এই ধরনের ফিটিংস্‌ ড্রেসের সঙ্গে আরও স্লিমট্রিম লাগে।ফ্যাশন টিপস ৪: একটু ফর্মাল ডিনার পার্টির জন্য মাল্টিমিক্স কালারের ফ্যাশান। ‘নি-কভার্ড লেন্থ’ লাল গাউনের ওপর সাদা শর্টলেন্থ ফুলস্লিভ জ্যাকেট ফর্মাল লুকস্‌ এনেছে, এর সাথে হলুদ কালো টুইস্টেড্‌ স্ট্র্যাপ জুতো যা একনজরে চোখে পড়বে।

ফ্যাশন টিপস ৫: জ্যাকেটের স্ট্রিংগুলো খুলে দিয়ে সামনেটা খোলা রাখলে সাজটা অন্যরকম হয়ে যাবে।সেক্ষেত্রে গলায় নেক চেনের সাথে ইংলিশ পেন্ডেন্ট, যা থাকবে কলার বোনের ঠিক নীচে। এক্ষেত্রে চুলটা একদিকে তুলে পিন করা বা পনিটেল বা কানের পাশ থেকে চুল তুলে ক্রাউনে পিন করা ইত্যাদি দারুণ স্মার্ট আর কন্‌ফিডেন্ট লাগবে। পুরো গোল্ডেন বা সিলভার কালার বা এর সঙ্গে সাদা স্টোন দেওয়া গয়নাই রেক্‌মেন্ডেড্‌। সবশেষ বলতেই হচ্ছে যার ইচ্ছে ও সামর্থ্য আছে সোনা বা প্ল্যাটিনামের সাথে ডায়মন্ড জুয়েলারি পরবেন একথা বলার অপেক্ষা রাখে না।

 

লেখিকা বিশেষজ্ঞ এস্থেটিশিয়ান, মেক-আপ ডিজাইনার ও এডুকেটর,
যোগাযোগ- শাকম্ভরী বডি এ্যান্ড বিউটি ক্লিনিক
203, এ.পি.সি. রোড, কোলকাতা 700004
মোবাইল : 7003893883 

You might also like