Latest News

এত্ত বড়, সত্যি? ১২ ফুট ব্যাসের মহাভোগ থালিতে ১০৮টি পদ! কোথায় পাবেন, জানুন

দ্য ওয়াল ব্যুরো: এত্ত বড়! সত্যি??

বাঙালির সারা বছরের প্রতীক্ষার অবসান ঘটেছে। দুর্গাপুজোর (Durga Puja 2022) চতুর্থীতেই মণ্ডপে মণ্ডপে উপচে পড়ছে মানুষের ভিড়। ঠাকুর দেখার পাশাপাশি চলছে রসনাতৃপ্তিও। কারণ আমজনতার কাছে পুজো মানে পেটপুজোও বটে! আর সে কথা মাথায় রেখেই ‘ইমামি হেলদি অ্যান্ড টেস্টি’ (Emami Healthy & Tasty) আনতে চলেছে এযাবৎ কালের ‘সবচেয়ে বড়’ (largest) ভোগ থালি (Bhog Thali)। ১০৮টি সুস্বাদু নিরামিষ পদের সমাহারে তৈরি সেই থালির ব্যাস নাকি ১২ ফুট! দক্ষিণ কলকাতার একটি পুজো মণ্ডপে মহাসপ্তমীর দিন গেলে প্রতিমার সঙ্গেই দর্শন মিলবে সেই থালির, যা দেখে একটাই কথা মনে আসতে বাধ্য, ‘এত্ত বড়, সত্যি?!?’

তবে এই মহাভোজের থালি প্রস্তুত করতে অনলাইন ক্রাউডসোর্সিং-এর বন্দোবস্ত করেছে ইমামি অ্যাগ্রোটেকের এই প্রসিদ্ধ ফুড ব্র্যান্ডটি। ইমামি হেলদি অ্যান্ড টেস্টি-র ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডলে গতকাল, অৰ্থাৎ ২৮ সেপ্টেম্বর ‘দ্য মোস্ট ফেভারিট ভোগ ডিশ’-এর জন্য একটি অনলাইন প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছে। প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণে ইচ্ছুক নেটিজেনদের জন্য বানিয়ে ফেলতে হবে পুজোর একটি নিরামিষ ভোগের পদ। তারপর যুৎসই করে তার ছবি তুলে #PujorMohaBhog হ্যাশট্যাগ সহযোগে তা পোস্ট করতে হবে ব্র্যান্ডটির ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডলে  (@emamihealthyandtasty)। নিজের পরিচিত আত্মীয় বন্ধুদেরও ট্যাগ করতে হবে সেই পোস্টে। জমা পড়া সমস্ত ছবির মধ্যে থেকে আগে বাছাই করে নেওয়া হবে সেটা ছবিগুলি। তারপর সেইসব পদের একটি সম্মিলিত ছবি পোস্ট করা হবে ‘ডিজিট্যাল থালি’ শিরোনামে। শুধু তাই নয়, সন্তোষপুর সার্ভে পার্কের দীপাবলী হাউজিং সোসাইটির পূজামণ্ডপে আগামী ২ অক্টোবর, সপ্তমীর মহাভোগে ১০৮টি ট্র্যাডিশনাল বাঙালি ভোগের পদবিশিষ্ট থালির মধ্যে স্থান পাবে ক্রাউডসোর্সিং থেকে বাছাই করা ডিশগুলিও। মণ্ডপে আসা দর্শনার্থীদের মধ্যে প্রসাদ হিসাবে বিতরণ করা হবে সেই ভোগ।

ইমামি অ্যাগ্রোটেক লিমিটেডের মার্কেটিং বিভাগের প্রেসিডেন্ট দেবাশিস ভট্টাচার্য জানিয়েছেন, ‘দুর্গা পুজো মানেই যেমন নতুন জামা, প্যান্ডেল হপিং, তেমনই পুজোর অবিচ্ছেদ্য অংশ হল পুজোর ভোগ। যা অত্যন্ত পবিত্রতা এবং যত্নের সঙ্গে প্রস্তুত করে দেবীকে নিবেদন করা হয়, এবং তা প্রসাদ হিসাবে পুণ্যার্থীদের মধ্যে বিলি করা হয়। আমরা ইমামি হেলদি অ্যান্ড টেস্টির পক্ষ থেকে পুজোর ভোগ নিবেদনের মাধ্যমে এই ঐতিহ্যবাহী বাঙালি রীতির সঙ্গে সংযুক্ত হওয়ার কথা ভেবেছি। আমাদের বিশ্বাস, এই ভোগ দর্শনার্থীদের পঞ্চ ইন্দ্রিয়কেই তৃপ্ত করবে, এবং তাদের কাছে একটা মনে রাখার মতো অভিজ্ঞতা হয়ে থাকবে।’

পুজোয় রোজ বাইরে খাবেন? পেটের গোলমাল হলে ওষুধ নয়, ঘরোয়া উপায়ে সারান

You might also like