শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ২০

ফিদেল কাস্ত্রোর পোষা কুমির কামড়ে দিল বৃদ্ধকে!

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বন্ধুবান্ধবের সঙ্গে পার্টিতে মেতে ছিলেন বৃদ্ধ। পার্টি হচ্ছিল, একটি বিশাল বড় অ্যাকোরিয়ামের মধ্যে। চার পাশে কাচের দেওয়াল, তার ওপারে নানা জলজ প্রাণী। এ পারে চলছে পার্টি। বেখেয়ালে হঠাৎই ওই বৃদ্ধের হাত চলে গেছিল কাচের ওপারে। আর তখনই একটি কুমিরের কামড় খেলেন তিনি! তা-ও আবার যে সে কুমির নয়, কিউবার বিপ্লবী ফিদেল কাস্ত্রোর পোষা কুমির!

পুলিশ জানিয়েছে, মঙ্গলবার সুইডেনের স্টকহোমে স্ক্যানসেন অ্যাকোরিয়ামে এই ঘটনা ঘটেছে। সেখানকার প্রধান জোনাস ওয়ালস্ট্রম জানিয়েছেন, ওই বৃদ্ধ ব্যক্তি তখন পার্টিতে উপস্থিত মানুষদের উদ্দেশে কিছু বলছিলেন। বলতে বলতেই এ সময়ে অন্যমনস্ক হয়ে হাত দিয়ে ফেলেন কাচের ওপারে। তখনই একটি হিংস্র কুমির তেড়ে এসে কামড় বসিয়ে দেয় তাঁর হাতে।

প্রায় দশ সেকেন্ড ধরে দাঁত বসিয়ে রেখেছিল কুমিরটা। বৃদ্ধের হাতের নীচের দিকে গভীর ক্ষত হয়ে যায়। সঙ্গে সঙ্গে রক্ত বন্ধ করার চেষ্টা করেন সকলে। তিন জন চিকিৎসকও উপস্থিত ছিলেন সেখানে। তাঁরা প্রাথমিক চিকিৎসা করে, কোনও রকমে রক্ত বন্ধ করেন। তার পরে ওই অবস্থায় হাসপাতালে পাঠানো হয় তাঁকে।

সূত্রের খবর ওই অ্যাকোরিয়ামে দু’টি কুমির রয়েছে। তাদের নাম, কাস্ত্রো এবং হিলারি। জানা গেছে, ১৯৭০ সালে রাশিয়ার রাষ্ট্রপ্রধান ভ্লাদিমির সাটালভ-কে কিউবার ওই দু’টি ছোট কুমির উপহার দিয়েছিলেন ফিদেল কাস্ত্রো। তাঁরই পোষা কুমির দু’টো উপহার পাওয়ার পরে সেগুলি মস্কোর বাড়িতে নিজের কাছে রেখে দেন ভ্লাদিমির।

এর পরে ১৯৮১ সালে তিনি সে দু’টি স্টকহোমের এই অ্যাকোরিয়ামে দিয়ে দেন রক্ষণাবেক্ষণের জন্য। এখন তারা অনেকটাই বড়। তাদের দেখতেও আসেন বিভিন্ন মানুষ। কিউবার কুমির রাশিয়া হয়ে সুইডেনে এসে পৌঁছয় এ ভাবেই।

প্রসঙ্গত, কিউবার কুমিরের হিংস্রতা সব চেয়ে বেশি হয়। কিন্তু তাই বলে যে তার কামড় খেতে হতে পারে কাউকে, তা কেউ ভাবতেও পারেননি। এমন ঘটনা যাতে ভবিষ্যতে আর না ঘটে, সে দিকে নজর রাখার কথা জানিয়েছেন কর্তৃপক্ষ।

Comments are closed.