রবিবার, নভেম্বর ১৭

লক্ষ্মীপুজোয় ভালো ফল পেতে কী করবেন আর কী মোটেও করবেন না

অনির্বাণ

দেবী লক্ষ্মীর আরাধনায় মেতেছে বাংলা। এই পুজোয় অনেক আচার মানা হয়। আসলে মা লক্ষ্মীর আরাধনার ক্ষেত্রে বেশ কিছু কিছু নিয়ম মেনে চলার রীতি রয়েছে সনাতন ধর্ম মতে। জেনে নিন কী করা উচিত আর কী নয়।

শাস্ত্র অনুসারে মা লক্ষ্মী, পদ্ম ফুলে অবস্থান করেন। তাই পুজোয় পদ্ম ফুল রাখতেই হবে। বলা হয়, এতে মায়ের আশীর্বাদে পরিবারে সুখ-সমৃদ্ধির ছোঁয়া লাগে। তবে সাদা ফুল দিয়ে লক্ষ্মীর আরাধনা করা ঠিক নয়। এমনই পরামর্শ রয়েছে শাস্ত্রে। কোজাগরীর দিনে মাকে দিন লাল ফুল।

সমুদ্রে তৈরি হয় কড়ি, আর শাস্ত্র মতে দেবী লক্ষীরও আগমণ ঘটে সমুদ্র থেকে। তাই পুজোর সময়ে মায়ের আসনে কড়ি রাখতে হয়। এনিয়ে দেশের অন্যত্রও মানা হয়।

নারকেলকে বলা হয় ‘শ্রী ফল’। অর্থাৎ যে ফলে রয়েছেন স্বয়ং মা লক্ষ্মী। এই পুজোয় তাই নারকেল থাকতেই হবে। অনেক বলেন, লক্ষ্মী পুজোর দিন লোহার বাসনে প্রসাদ অর্পণ করা ঠিক নয়। ভোগ রান্নায় মাটি বা কাঁসার বাসন ব্যবহার করা ভাল।

তুলসী পাতায় নারায়ণের পুজো হয়। এই পাতাকে লক্ষ্মীদেবীর সতীন বলে মানা হয়। তাই অনেকেই বলেন, লক্ষ্মীপুজোয় তুলসী পাতা অপর্ণ করা ঠিক নয়। একই ভাবে
পুজোর সময়ে মা লক্ষ্মীর মূর্তির বাম দিকে যেন প্রদীপ ও ধূপ থাকে। এটাই শাস্ত্রের বিধান।

আলপনা দেওয়ার সময়ে খেয়াল রাখুন লক্ষ্মীর পায়ের মুখে যেন বাড়ির ভিতরের দিকে থাকে। বেশি করে মনে রাখুন যাতে লক্ষ্মী পুজোর সময় কাঁসর ঘণ্টা বাজানো হয় না। এমন নিয়মই বলা রয়েছে সনাতন শাস্ত্রে।