Latest News

মুকুল শুভেন্দুর মতো খারাপ নয়, বেচারাকে কৃষ্ণনগরে পাঠিয়েছে: নন্দীগ্রামে মমতা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: নন্দীগ্রামে প্রচারের শেষ বেলায় যেন বিজেপির ভিতর রেষারেষি তৈরি করে দিতে চাইলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

মুকুল রায় তৃণমূল ছাড়ার পরের কথা মনে পড়ে? গদ্দার, মিরজাফর— কত শব্দই না বলেছিল তৃণমূল। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় থেকে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় কেউ বাদ ছিলেন না। মঙ্গলবারের বারবেলায় নন্দীগ্রামের শেষ প্রচার সভায় সেই মুকুলকেই সার্টিফিকেট দিতে চাইলেন দিদি। একদা সেকেন্ড ইন কমান্ডের প্রতি সমবেদনা ঝরে পড়ল মমতার গলা থেকে। সেই সঙ্গে ভাল-মন্দে শুভেন্দু অধিকারী আর মুকুল রায়ের মধ্যে তুলনাও টানতে চাইলেন।

এদিন টেঙ্গুয়া মোড় ক্রসিংয়ের জনসভায় মমতা বলেন, “মুকুল শুভেন্দুর মতো এত খারাপ নয়। অন্তত এটা আমি বলব!”

হঠাৎ কেন এ কথা বললেন মমতা?

তার আগের প্রেক্ষাপট নিজেই তৈরি করে দিয়েছিলেন তিনি। এদিন মমতা বলেন, “বিজেপি নিজের লোকগুলোকে টিকিট দেয়নি। জয়প্রকাশকেও টিকিট দেয়নি।” এরপরেই মমতা বলেন, “মুকুল বেচারা থাকে কাচরাপাড়া। ব্যারাকপুর, জগদ্দল, ভাটপাড়া—এটা ওর নিজের জেলা। ওকে পাঠিয়ে দিয়েছে কৃষ্ণনগরে!”

আরও পড়ুন: নন্দীগ্রামেই হুইল চেয়ার ছেড়ে উঠে দাঁড়ালেন মমতা!

সেইসঙ্গে মমতা বলেন, “বিজেপি এবার সিপিএমের হার্মাদ আর তৃণমূলের গদ্দারদের টিকিট দিয়েছে। নিজেদের লোকগুলোকে টিকিট দেয়নি। সব ধার করা। গোটা পার্টিটাই ধার করা।”

এখানেই থামেননি মমতা। অমিত শাহের উদ্দেশে তিনি বলেন, “অরিজিনাল লোক হলে থাকে। না হলে থাকে না, এটা মাথায় রাখবেন অমিতবাবু। আপনাকে দেখতে বহুত খাসা। গোলগাল টুকটাক করছে গাল। দারুণ সুন্দর। আপনাকে আমি প্রশংসা করি। কিন্তু কী বলুন তো অমিতবাবু, আপনি খেলাটা ভুল খেললেন। নিজের লোকগুলোকে ঠকালেন, নিজের লোকগুলোকে প্রতারণা করলেন, সিপিএমকে মদত দিলেন, তৃণমূলকে ভাঙতে গিয়ে নিজের দলটাকে ভেঙে দিলেন।”

আরও পড়ুন: মমতা লিখেছিলেন, নন্দীগ্রামে শুভেন্দুই ছিলেন সেনাপতি, বুদ্ধবাবুকেও সতর্ক করেছিলেন তিনিই

মুকুল রায় এখনও এ নিয়ে প্রতিক্রিয়া দেননি। তবে তাঁর ঘনিষ্ঠরা বলছেন, “বিজেপি একটা সংগঠিত পার্টি। এখানে কে কোথায় প্রার্থী হবেন সেটা কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব ঠিক করে। এখানে ব্যক্তিতন্ত্র চলে না। দলীয় অনুশাসন মেনে চলতে হয়। দিদিমণির মতো প্রাইভেট লিমিটেড কোম্পানি এটা নয়।”

You might also like