শনিবার, নভেম্বর ২৩
TheWall
TheWall

পৃথিবীর সেরা ২৫ প্রজাতির কুকুরকে চিনে নিন

দ্য ওয়াল ব্যুরো:  মানুষের সব চেয়ে পছন্দের প্রাণী কুকুর। তবুও কুকুরদের মত ভয়ঙ্কর প্রাণী পৃথিবীতে খুব কমই আছে। যদি তারা ভাবে আক্রমণ করবে, সত্যিই তারা ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠে।

তবে এটাও জেনে রাখা উচিত, পৃথিবীর সমস্ত পালিত কুকুর প্রজাতি তার প্রভুকে খুশি করার চেষ্টা করে। পোষা কুকুররা তখনই আক্রমণ করে যখন তাদের ঠিক মতো ট্রেনিং দেওয়া হয় না বা তাদের ওপর অত্যাচার করা হয়।

তবুও, বিভিন্ন দেশের বিশেষজ্ঞরা ২৫ কুকু্র প্রজাতির কথা বলে থাকেন, যেগুলিকে বাড়িতে পোষা যথেষ্ট ঝুঁকিপূর্ণ। এবং এদের পুষতে গেলে প্রচুর সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে। তাই চিনে নেওয়া যাক, পৃথিবীর মধ্যে সবচেয়ে বিপজ্জনক ২৫ ধরণের পালিত কুকুর।

(২৫) তোসা ইনু (জাপান)

 ওজন: ৬৫ -১০০ কেজি

 উচ্চতা: ২৮-৩২ ইঞ্চি

তোসা ইনু

 এই সংকর প্রজাতির কুকুরটি জাপানে তৈরি করা হয়েছিল কুকুর লড়াই খেলার জন্য। জাপানের ‘তোসা’ প্রজাতির কুকুরের সঙ্গে ইউরোপের ইংলিশ বুলডগ, বুল টেরিয়ার, সেন্ট বার্নাড, গ্রেট ডেন, জার্মান পয়েন্টারের সংকরায়নের ফলে তৈরি হয়েছিল বিশাল আকৃতির এই শক্তিশালী কুকুর। প্রচণ্ড আক্রমণাত্মক মনোভাবের জন্য অত্যন্ত  সাহসী ও নাছোড়বান্দা এই কুকুর পোষা বিশ্বের বিভিন্ন দেশে নিষিদ্ধ।

(২৪) আমেরিকান বানডগ (আমেরিকা)

ওজন: ৪৫-৫৭ কেজি

উচ্চতা: ২০ -৩০ ইঞ্চি

আমেরিকান বানডগ

এই আমেরিকান পিটবুল টেরিয়ার, ইংলিশ ম্যাস্টিফ ও নেপলিয়ান ম্যাস্টিফের মিলনজাত এই সংকর কুকুরটি তৈরি করা হয়  মুলত প্রতিরক্ষা ও নিরাপত্তার জন্য। পরে একে কুকুরদের লড়াইয়ে ব্যবহার করা হতে থাকে। প্রচণ্ড আত্মবিশ্বাস ও প্রাণশক্তিতে ভরপুর। তবে উত্তেজিত হলে ভয়াবহভাবে আক্রমণ করে বসে।

(২৩) কেনে কর্সো (ইতালি)

ওজন: ৪৫-৫০ কেজি

উচ্চতা: ২৪ -২৭ ইঞ্চি

কেনে কর্সো

শক্তিশালী ও পেশিবহুল কুকুর। এমনিতে চুপচাপ, কিন্তু বাচ্চাদের খুব ভালোবাসে। কিন্তু অচেনা লোকেদের প্রতি ভয়ানক আক্রমণাত্মক।  কানিস পাগনাক্স নামে এক কুকুর প্রজাতিকে রোমানরা যুদ্ধের সময় ব্যবহার করতো। এরা তার বংশধর। তাই কেনে কর্সোর মধ্যে সেই খুনে মেজাজ দেখা যায়।

(২২) বুল টেরিয়ার (ইংল্যান্ড)

ওজন: ২২-৩৮ কেজি

উচ্চতা: ১৭ -২১ ইঞ্চি

বুল টেরিয়ার

বুল টেরিয়ার বিখ্যাত তাদের বড়সড়  ডিম্বাকৃতি মাথার জন্য।  শক্তিশালী এই কুকুর প্রজাতিটি খুবই আক্রমণাত্মক। খেতের ফসলের পক্ষে ক্ষতিকারক প্রাণী ও বন্যপশু শিকারের জন্য ওল্ড ইংলিশ বুলডগ ও ওল্ড ইংলিশ টেরিয়ারের মিলনে এই সংকর প্রজাতিটি তৈরি করা হয়। প্রভুকে রক্ষা করার জন্য সদা সতর্ক থাকে। তবে অপরিচিত মানুষকে দেখলে ভয়ঙ্কর উত্তেজিত হয়ে পড়ে।তখন এদের ধরে রাখাই মুস্কিল হয়ে যায়।

(২১) রোডেশিয়ান রিংব্যাক (জিম্বাবুয়ে)

ওজন: ৩৬-৪১ কেজি

উচ্চতা: ২৪ -২৭ ইঞ্চি

রোডেশিয়ান রিংব্যাক

আফ্রিকার দেশ রোডেশিয়ার (জিম্বাবুয়ে) শিকারি কুকুর ও ইউরোপের গ্রে-হাউন্ড প্রজাতির মিলনে এই সংকর প্রজাতিটি তৈরি করা হয় মূলত শিকারের জন্য। সঙ্গে এরা থাকলে সিংহও সেই তল্লাটে ভেড়ে না। ভালো ব্যবহার না করলে ও মানুষের সঙ্গে না মেশালে এবং ঠিক মতো ট্রেনিং না দিলে এরা বিপজ্জনক। কারণ সব ব্যাপারেই এরা খুব বেশী সংবেদনশীল।

(২০) ডগো আর্জেন্টিনো (আর্জেন্টিনা)

ওজন: ৪০-৪৫ কেজি

উচ্চতা: ২৩ -২৭ ইঞ্চি

ডগো আর্জেন্টিনো

কর্ডোবা ডগ ও গ্রেট ডেন প্রজাতির সংমিশ্রণে তৈরি অতিকায় সাদা রঙের পেশীবহুল কুকুর। এই  প্রজাতিটিকে তৈরি করা হয়েছিল বন্য শুকর, বন্যভাল্লুক এমনকি পুমা শিকার করার জন্য। খুব শক্তিশালী এই কুকুরটি মানুষের পক্ষে ততটা বিপজ্জনক না হলেও অন্যান্য পশু, বিশেষ করে অন্য কুকুর প্রজাতির প্রতি নির্দয়। তাই ব্রিটেনে এই কুকুর পোষা আইনত নিষিদ্ধ।

(১৯) বোয়ের বোয়েল (দক্ষিণ আফ্রিকা)

ওজন: ৫০-৬৫ কেজি  

উচ্চতা: ২৫ -২৭ ইঞ্চি

বোয়ের বোয়েল

দক্ষিণ আফ্রিকার অতিকায় সংকর কুকুর। সাউথ আফ্রিকান ফ্রন্টিয়ার, ব্লাড হাউণ্ড, স্ট্যাগ হাউন্ড, গ্রে হাউন্ড, বুলডগ, বিভিন্ন টেরিয়ার ও ম্যাস্টিফের ক্রস-ব্রিডের ফসল।  মারাত্মক আক্রমণাত্মক এই কুকুর প্রজাতিটিকে মূলত আফ্রিকার ফার্ম হাউসগুলিকে নিরাপত্তা দেওয়ার জন্য তৈরি করা হয়। শিকার খুঁজে বের করতে বা  গোপনে কারও পিছু নিতে এদের জুড়ি নেই। আহত শিকারকে মাটিতে কামড়ে ধরে রাখার ব্যাপারে এরা দারুণ পটু।

(১৮) গাল ডং (ভারত ও পাকিস্তান)

ওজন: ২৫-২৯

উচ্চতা: ১৮-২২ ইঞ্চি

গাল ডং

ইউরোপিয় গাল টেরিয়ার ও ভারতের ‘বুল্লি কুত্তার’ সংকরায়নের ফসল এই অস্বাভাবিক শক্তিশালী ও শক্তপোক্ত চেহারার কুকুর প্রজাতিটি তৈরি হয় ব্রিটিশ ভারতে।  পাকিস্তানে কুকুর লড়াইয়ের জন্য আজও ব্যবহার করা আক্রমণাত্মক এই কুকুরটিকে।  একবার আক্রমণ করা শুরু করে দিলে একে সামলানো খুবই কঠিন কাজ।

(১৭) বাসেঞ্জি (মধ্য আফ্রিকা)

ওজন: ১০-১২ কেজি

উচ্চতা: ১৪-১৬ ইঞ্চি

বাসেঞ্জি

আফ্রিকার অস্বাভাবিক গতির শিকারী কুকুর। শিকার দেখলেই তার শেষ না দেখে এরা ছাড়ে না। প্রচন্ড সতর্ক, কৌতূহলী ও মালিকের ভালোবাসার কাঙাল। তবে অপরিচিতকে ছাড়ে না। যতই ট্রেনিং দেওয়া হোক, সব ভুলে হামলা করে বসে। এদের ট্রেনিং দিয়ে শান্ত রাখা প্রায় অসম্ভব।

(১৬) সেন্ট বার্নাড ( ইতালি ও সুইজারল্যান্ড)

ওজন: ৬৪-১২০ কেজি

উচ্চতা: ২৭-৩৬ ইঞ্চি

সেন্ট বার্নাড

দৈত্যাকৃতি এই কুকুরের  উৎপত্তি স্যুইস ও ইটালিয়ান আল্পসে। পশুপালনে মানুষকে সাহায্য করা ও শিকারের সঙ্গী হওয়া এর আসল কাজ হলেই।  আল্পস পর্বতের বিভিন্ন দূর্ঘটনায় পড়া মানুষকে উদ্ধার করে এই প্রজাতি কিংবদন্তী হয়ে গেছে। ছোট বয়েসে এদের মানুষের সঙ্গে মেশাতে হবে। মেশাতে হবে অপরিচিত ও অনান্য কুকুরদের সঙ্গেও। না হলেই বিপদ ঘটবে।

 (১৫) আমেরিকান বুলডগ (আমেরিকা)

 ওজন: ৩০-৫৮ কেজি

উচ্চতা: ১৯-২৭ ইঞ্চি

আমেরিকান বুলডগ

শক্তিশালী ও পেশিবহুল দেহের কুকুর। এই প্রজাতি তৈরি করা হয়েছিল মালিকের সম্পত্তির নিরাপত্তা, ফার্মের কাজ এবং ভাল্লুক তাড়ানোর জন্য। এমনিতে প্রজাতিটি মানুষের প্রতি বন্ধুত্বপূর্ণ। তবে নিজেদের প্রতি তাদের অস্বাভাবিক আস্থা থাকার জন্য অনেক সময় আগুপিছু না ভেবে আক্রমণ করে বসে। নিজের চেয়ে বহুগুণ বড় আকৃতির পশুর সঙ্গেও লড়তে সদা প্রস্তুত থাকে।

(১৪) গ্রেট ডেন ( জার্মানি)

ওজন: ৫৪-৯০ কেজি

উচ্চতা: ২৯-৩৪ ইঞ্চি

গ্রেট ডেন

পৃথিবীর দীর্ঘকায় কুকুর হিসেবে এই প্রজাতির একটি কুকুরের রেকর্ড আছে। কুকুরটির উচ্চতা ছিল ৪৪ ইঞ্চি। আপাত দৃষ্টিতে গম্ভীর ও আত্মবিশ্বাসী কুকুরটিকে বন্য শুকর ও হরিণ শিকারের জন্য ব্যবহার করা হত এই। কিন্তু একবার মেজাজ খারাপ হলে ভয়ানক মূর্তি ধারণ করে।

(১৩) ফিলা ব্রাসিলিয়েরো (ব্রাজিল)

ওজন: ৬৪-৮২ কেজি

উচ্চতা: ২৫-২৯ ইঞ্চি

ফিলা ব্রাসিলিয়েরো

হারিয়ে যাওয়া কিছু খুঁজে বার করতে পটু।  প্রচণ্ড সাহসী, আক্রমণাত্মক ও দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। শক্তিশালী, বুদ্ধিমান এবং খেলাধুলায় পারদর্শী কুকুরটি কিন্তু খুব রাগী। তাই মাঝে মাঝে নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়। ব্রিটেন, ইজরায়েল, ডেনমার্ক, নরওয়ে, মাল্টা এবং সাইপ্রাসে এই কুকুর পোষা নিষিদ্ধ।

(১২) পেররো-ডি-প্রেসা ক্যানারিও ( ক্যানারি দ্বীপপুঞ্জ)

ওজন: ৬৪-৮২ কেজি

উচ্চতা: ২৩-২৫ ইঞ্চি

পেররো-ডি-প্রেসা ক্যানারিও

পশুখামারের পশুদের পাহারার জন্য এই কুকুর পোষা শুরু হয়েছিল। এই কুকুর খুবই সন্দেহবাতিক। অন্য কুকুর ও অচেনা লোকের প্রতি মারাত্মক আক্রমণাত্মক। খুবই বুদ্ধিমান এবং শক্তিশালী এই কুকুর সারাক্ষণ অন্য কুকুরের সঙ্গে ঝগড়া করে। খুব কম বয়েসে পুষতে হয় ও বাধ্য হওয়ার ট্রেনিং দিতে হয়। এর কামড়ে প্রভুর মৃত্যু ঘটার উদাহরণ কম নেই।

(১১) বক্সার (জার্মানি) 

ওজন: ২৭-৩২ কেজি

উচ্চতা: ২২-২৫ ইঞ্চি

বক্সার

চরিত্রগতভাবে আক্রমণাত্মক নয়। কিন্তু ১৯৮২ থেকে ২০১২ পর্যন্ত ৪৮ টি মৃত্যুর জন্য দায়ী এই প্রজাতির কুকুর। এরা প্রাণবন্ত ও খেলতে ভালোবাসে। উদ্দীপনায় ভরপুর এই প্রজাতি সব সময় মাথা উঁচু রাখতে ভালোবাসে। ফলে মনে সামান্যতম আঘাত লাগলে এর মতো ভয়ঙ্কর কুকুর দুটি নেই।

(১০)স্লোভাকিয়ান উলফ ডগ (স্লোভাকিয়া)

ওজন: ৪০-৬৩ কেজি

উচ্চতা: ২৬-৩৩ ইঞ্চি

স্লোভাকিয়ান উলফ ডগ

কুকুর আর নেকড়ের সংকর। এদের স্বভাব আঁচ করা অসম্ভব। খুব চটপটে ও একেবারেই ভয়-ডরহীন এই প্রজাতির কুকুর সহজে পোষ মানে না। শিকারের পিছনে একবার দৌড়াতে শুরু করলে রক্ত না দেখে ছাড়ে না।  সমাজ ও বাচ্চাদের কাছ থেকে দূরে রাখতে অনেক দেশে এই কুকুর পোষা নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

(৯) ডোবারম্যান পিনশার ( জার্মানি)

ওজন: ৪০-৪৫ কেজি

উচ্চতা: ২৬-২৮ ইঞ্চি

ডোবারম্যান পিনশার

ক্ষিপ্রতা, সতর্কতা , প্রভুভক্তি ও বুদ্ধিমত্তার জন্য বিশ্ব বিখ্যাত। অনেকের মতে এরা পৃথিবীর সবচেয়ে ভালো পাহারাদার  কুকুর। তবে সামান্য প্ররোচনা পেলে এবং প্রভুর পরিবার ও সম্পত্তির ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা থাকলে অবিশ্বাস্যরকমের  আক্রমণাত্মক হয়ে পড়ে। অচেনা লোক ও অন্য কুকুরদের প্রতিও। বিভিন্ন দেশের পুলিশ ও সেনা এদের ব্যবহার করে।

(৮) হাস্কি (উত্তর মেরু)

ওজন: ২০-৩০ কেজি

উচ্চতা: ২৬-২৮ ইঞ্চি

হাস্কি

পৃথিবীর উত্তর ভাগের আলাস্কা, সাইবেরিয়ার তুষারাবৃত অঞ্চলের মানুষদের সর্বক্ষণের সঙ্গী এই কুকুর। প্রচণ্ড পরিশ্রমী এই কুকুর উন্মত্ত গতিতে স্লেজ টানে। পোষ মানা বলগা হরিণের পাল পাহারা দেয়। শিকার, অ্যাডভেঞ্চার ও ট্রেকিং-এ সঙ্গী হয়।  এই কুকুর প্রজাতিটি ছোট প্রাণীদের জন্য বিপজ্জনক। সর্বক্ষণ আক্রমণের জন্য তৈরি থাকে।  শিকারের ওপর প্রথমেই মরণকামড় বসিয়ে দেয়।

(৭) আলাস্কা মালামিউটস

ওজন: ৩৬-৪৩ কেজি

উচ্চতা: ২৪-২৬ ইঞ্চি

আলাস্কা মালামিউটস

সাইবেরিয়ার হাস্কি কুকুরের সম্পর্ক যুক্ত। এই কুকুরকে রোজ কসরৎ করাতে হবে। নইলে বিরক্ত হয়। এরাও স্লেজ টানে, শিকার করে। কিন্তু এরা ভীষণ অবাধ্য ও ধ্বংসাত্মক।  এরা ভীষণ স্বাধীনচেতা, তাই এদের ট্রেনিং দেওয়া খুব শক্ত। পাহারাদার হিসেবে একদম নির্ভরযোগ্য নয়।

(৬) রটওয়েলার (জার্মানি)

ওজন: ৫০-৬০ কেজি

উচ্চতা: ২৪-২৭ ইঞ্চি

রটওয়েলার

প্রচণ্ড শক্তিশালী ও দূর্ধর্ষ লড়াকু প্রজাতি।এরা যে কোনও সময় বিপজ্জনক হয়ে উঠতে পারে। খুব ভালো পাহারাদার এবং প্রভু ভক্ত। তবে ঠিকমতো পালন না করলে ভয়ংকর আচরণ করে। পোল্যান্ড, রোমানিয়া, পর্তুগাল এবং আয়্যারল্যান্ডে রটওয়েলার প্রজাতির কুকুর নিষিদ্ধ।

(৫) জার্মান শেফার্ড (জার্মানি)

ওজন: ৩০-৪০ কেজি

উচ্চতা: ২৩-২৫ ইঞ্চি

জার্মান শেফার্ড

আমরা চিনি অ্যালসেশিয়ান নামে। বুদ্ধিমান, আত্মবিশ্বাসী, সদা সতর্ক ও অসীমসাহসী এই কুকুর দিয়ে বিভিন্ন দেশের পুলিশের K-9 unit তৈরি হয়। এরা প্রভুর পরিবারের প্রতি ভীষণ রক্ষণশীল। প্রভুর পরিবারের সামান্য বিপদ হওয়ার আঁচ পেলে ঝাঁপিয়ে পড়ে প্রভুর আদেশ ছাড়াই।

(৪) পিট বুল (ইংল্যান্ড)

ওজন: ১৬-৩০ কেজি

উচ্চতা: ১৭-২০ ইঞ্চি

পিট বুল

প্রাথমিক ভাবে ষাঁড় ও ভাল্লুককের হাত থেকে বাঁচার জন্য এই সংকর প্রজাতির কুকুর তৈরি করা হয়েছিল। কিন্তু কুকুর লড়াইয়ের জন্য পৃথিবীর বিভিন্ন জায়গায় পোষা হয়। দেখা গেছে, এ প্রজাতির ৪০-৪৫ শতাংশ কুকুর মানুষকে আক্রমণ করে। এবং আক্রমণের শিকার হওয়া মানুষের ৭০ শতাংশই শিশু। আমেরিকায় একে সব চেয়ে বিপজ্জনক কুকুর হিসেবে মানা হয়।

(৩) টিবেটান ম্যাস্টিফ (তিব্বত)

ওজন: ৫০-৮৯ কেজি 

উচ্চতা: ২৩-২৯ ইঞ্চি

টিবেটান ম্যাস্টিফ

তীব্বতের পাহাড়ি অঞ্চলের অত্যন্ত  শক্তিশালী, স্বাধীনচেতা ও প্রভাবশালী কুকুর  প্রজাতি। নেকড়ে, ভাল্লুক ও বাঘের হাত থেকে প্রভুর পোষা ভেড়াদের রক্ষাকর্তা। কিন্তু অচেনা লোকেদের কাছে বিপজ্জনক। এলাকা দখলের প্রশ্নে এদের  ভয়ঙ্কর মূর্তি সমস্ত পশুকে এলাকা ছাড়তে বাধ্য করে।

(২) ককেশিয়ান অভচারকা (রাশিয়া)

ওজন: ৫০-৯০ কেজি

উচ্চতা: ২৭-৩০ ইঞ্চি

ককেশিয়ান অভচারকা

ককেশিয়ান শেপার্ড নামেও ডাকা হয়। পোষ মানাতে পারলে পালিত পশুকে রক্ষা করতে ওস্তাদ। কিন্তু  ঠিক মতো ট্রেনিং ও মানুষের সঙ্গে মেলামেশায় অভ্যস্ত না করালে এরা সাংঘাতিক বিপজ্জনক। কারণ এরা মানুষকে খুব একটা পাত্তা দেয়না। নিজেকে বাঁচাতে আগেই আক্রমণ করে বসে।

(১) চাউ চাউ (চিন)

ওজন: ২৫-৩২ কেজি

উচ্চতা: ১৬-২০ ইঞ্চি

চাউ চাউ

অপরিচিত লোকের যম। ভয়ঙ্কর মূর্তি ধারণ করে প্রভুকে বিপদ থেকে রক্ষা করে। এদের আলাদা ঘরে রাখতে হয়। রোজ  এদের শারীরিক কসরত চাই। উচ্চ ঝুঁকির কুকুর, তাই এদের খুব কম পোষা হয়। অনেক ক্ষেত্রে পোষার আগে বিমা করিয়ে নিতে হয়। ১৯৭৯ থেকে ১৯৯৮ পর্যন্ত ২৩৮ জন মানুষের মৃত্যুর কারণ এই প্রজাতির কুকুর।

Comments are closed.