ফেসবুক লাইক কিন্তু জানিয়ে দেয় আপনার সব তথ্যই

0

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

    দ্য ওয়াল ব্যুরো: কখনো বন্ধুর সুন্দর সেলফি। আবার কখনো প্রতিবাদী পোস্ট। ব্র্যান্ডের বিজ্ঞাপন থেকে প্রিয়তম গায়কের নতুন গান। ফেসবুকে লাইক করি আমরা সবাই। তাৎক্ষণিক ভালো লাগা মন্দ লাগা থেকে। কিন্তু জানেন কি এই লাইক থেকেই বুঝে যাওয়া যায় আপনার ব্যক্তিগত পরিসরের অনেকটাই? আপনার জাতি, ধর্ম এমন কি যৌন পছন্দও?

    এমনটাই বলছেন স্ট্যানফোর্ড বিজনেস স্কুলের সহকারী অধ্যাপক মিকাল কোসিনস্কি। তাঁর গবেষণা বলছে, তথ্য নিয়ে কাজ করতে সক্ষম কম্পিউটারের মাধ্যমে শুধু মাত্র আপনার লাইক দেখেই জেনে নেওয়া যায় আপনার জীবনের অনেকটাই।

    কতটা? জানলে অবাক হবেন। কোসিনস্কি জানাচ্ছেন, মাত্র ১০ লাইক পড়ার পরেই কম্পিউটার আপনাকে আপনার কলিগের মতো চিনে ফেলে। ৭০ টা লাইকের পর আপনার রুমমেটের মতো। মাত্র ১৫০টা লাইকের পর এই কম্পিউটার আপনাকে চিনবে একদম আপনার পরিবারের একজনের মতোই। আর যদি লাইকের সংখ্যা হয় তিনশো, তাহলে জানা হয়ে যাবে আপনার ভালোলাগা মন্দলাগা, ব্যক্তিগত সব কিছুই। ঠিক আপনার সম্পর্কে যতটা জানেন আপনার স্ত্রী বা স্বামী।

    কোসিনস্কির গবেষণায় দেখা গিয়েছে , অ্যামেরিকান ফেসবুক ইউজারদের মধ্যে ৯৫ শতাংশের ক্ষেত্রেই তিনি সাদা না কালো একদম নির্ভুল ভাবে বলে দেওয়া যায় শুধু লাইক দেখেই। তিনি মহিলা না পুরুষ সেটা বলার ক্ষেত্রে কম্পিটারের সাফল্যের হার ৯৩ শতাংশ। আর তিনি সমকামী কি না, সেটা বলার ক্ষেত্রে এই হার ৮৫ শতাংশ। এমনকি, এরা রাজনৈতিক ভাবে কোন দলকে সমর্থন করেন সেটাও নির্ভুল ভাবে বলা দেওয়া যায়। এক্ষেত্রেও সাফল্যের হার ৮৫ শতাংশ।

    বিশেষজ্ঞদের মতে, আসলে ফেসবুকে নিজেদের সমন্ধে অসংখ্য তথ্য ছড়িয়ে দিই আমরা। বন্ধুবান্ধব না পরিজনদের মধ্যে অকুন্ঠে ভাগ করে নেওয়া মতামত বা ছবি দেওয়ার মাধ্যমে আসলে নিজেদের অজান্তেই ব্যক্তিগত পরিসরই প্রকাশ করে ফেলি আমরা।

    আর এই তথ্য কাজে লাগে বিজ্ঞাপনে। আগেরকার দিনে বিজ্ঞাপন করা হত সবার উদ্দেশ্যে। কিন্তু এখন, এই সোশ্যাল মিডিয়ার যুগে, মানুষকে প্রভাবিত করতে বিশেষ ভাবে টার্গেট করা হয় বিজ্ঞাপনকেও।

    কোসিনস্কি নিজেই দেখিয়েছেন মানুষের ব্যক্তিত্ব বুঝে তাকে প্রভাবিত করার জন্য বিশেষভাবে তৈরি করা বিজ্ঞাপনের উপায়। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ঠিক ভাবে তৈরি করা বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে যে কোনো মানুষকে দিয়েই ক্লিক করানো যায় নির্দিষ্ট ইন্টারনেট লিংকে।

    শুধু ফেসবুকই নয়, আম্যাজন, ফেসবুক, গুগলের মতো সংস্থাগুলো প্রতিমুহূর্তেই ব্যবহারকারীদের সম্পর্কে নানা তথ্য সংগ্রহ করে। বিশেষজ্ঞদের মতে, ফেসবুকের সেটিংস থেকে, আমাদের ফেসবুক ডেটা ডাইনলোড করে নিলেই দেখা যাবে যে আমাদের সম্পর্কে প্রায় ৭০ ধরণের তথ্য সংগ্রহ করে ফেসবুক।

    গত মার্চ মাসেই প্রকাশিত হয়েছে অ্যামেরিকার নির্বাচনে ডেটা ফার্ম কেমব্রিজ অ্যানালিটিক্সের ভূমিকা। অভিযোগ, এই সংস্থা ফেসবুক ব্যবহারকারীদের না জানিয়েই অ্যাপের মাধ্যমে তাঁদের এবং তাঁদের সম্পূর্ণ ফেসবুক বন্ধুদের সমন্ধে তথ্য সংগ্রহ করেছে। আর সেই তথ্য ব্যবহার করা হয়েছে আমেরিকার নির্বাচনে ভোটারদের প্রভাবিত করতে।

    গত সপ্তাহেই এই বিষয় নিয়ে মার্কিন কংগ্রেসের সামনে সাক্ষ্য দিতে গিয়ে ফেসবুকের সিইও মার্ক জুকেরবার্গ নিজেই প্রকাশ করে ফেলেছেন এক চাঞ্চল্যকর তথ্য। তাঁর কথা থেকে জানা গিয়েছে, যে শুধু ফেসবুক ব্যবহারকারীদেরই নয়, যাঁরা নিরাপত্তার কারণে ফেসবুক ব্যবহার করেন না, তাঁদের সম্পর্কেও তথ্য সংগ্রহ করে ফেসবুক। এর পর থেকে প্রশ্ন উঠেছে, ফেসবুক মানুষের ব্যক্তিগত পরিসরের সীমানা লঙ্ঘন করে কিনা।

    অতএব সামাজিক মাধ্যমগুলো ব্যবহারের ব্যাপারে সতর্ক থাকুন। বোঝার চেষ্টা করুন, কে বা কারা নিঃশব্দে আপনার ওপর নজরদারি চালাচ্ছে।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

You might also like

Leave A Reply

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More