বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ১৪

‘সংস্কারি’ ফেসবুক এই ইমোজিগুলো আর ব্যবহার করতে দেবে না, কেন জানেন?

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বন্ধুমহলে হাসিঠাট্টা করার সময়ে কত সাধারণ শব্দেরও অন্য অর্থ বার করি আমরা। কত সাধারণ জিনিসের প্রতি অন্য ইঙ্গিত করে আনন্দে মজা পাই। ফেসবুক বা ইনস্টাগ্রামও কিন্তু এই মজায় সামিল ছিল এত দিন ধরে। কারণ জনপ্রিয় এই সোশ্যাল মিডিয়াগুলিতে এমন অনেক ইমোজি রয়েছে, যা এমনিতে দেখতে খুব সাধারণ হলেও, চাইলে দ্বিতীয় কোনও অর্থ বার করা যায়। বলাই বাহুল্য, এই দ্বিতীয় অর্থ প্রায়ই ইঙ্গিত করে যৌন আবেদনমূলক বিষয়ের দিকে। এবার সেই ইমোজিগুলির উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করল ‘সংস্কারি’ ফেসবুক।

নেটিজেনরা ভালই বুঝতে পারছেন, কোন কোন ইমোজির দিকে এই ইঙ্গিত করা হচ্ছে। জানানো হয়েছে, বেগুন, পিচফল, তিনটি জলের ফোঁটা– এই ইমোজিগুলি নানা জিনিসের প্রতীক। যেমন বেগুন ইমোজিটি অনেকেই ব্যবহার করেন পুরুষাঙ্গ বোঝাতে। সে রকমই নানা ইমোজি ব্যবহার এবার বন্ধ করে দিল ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রাম।

এছাড়াও, নিতম্ব কিংবা স্তনবৃন্ত এমনকী ঠোঁটের মতো ইমোজিগুলিও আর ব্যবহার করা যাবে না সোশ্যাল প্ল্যাটফর্মে। কারণ যৌনতা উদ্রেগকারী কোনওরকম ইমোজি-ই ব্যবহার করতে নারাজ ফেসবুক। সেই কারণেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। শুধু তাই নয়, কোনও ইউজার যদি সেক্স চ্যাটে এধরনের ইমোজি ব্যবহার করেন, কিংবা এসব ইমোজি পাঠিয়ে যৌনতার প্রস্তাব দেন, সে ক্ষেত্রে তাঁর প্রোফাইল খতিয়ে দেখা হবে। ইমোজিটি আপনাআপনি মুছেও দেওয়া হতে পারে।

নেটিজেনদের অনেকে এই সিদ্ধান্ত মেনে নিলেও, অনেকেরই দাবি, এভাবে ইমোজির ব্যবহার বন্ধ করে দেওয়া মানে স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করা। কারণ বন্ধুমহলে হাসি-ঠাট্টার মধ্যেও অনেক সময় এধরনের ইমোজি ব্যবহৃত হয়ে থাকে। আবার অনেকে ভুলবশতও বিভিন্ন ইমোজি পোস্ট করে ফেলেন। সে ক্ষেত্রে তাঁদের বিপাকে পড়তে হতে পারে।

তবে কে যৌনতার প্রস্তাব রাখছে, কে ঠাট্টা করছে, আর কেই বা ভুল করে পোস্ট করছে বিশেষ বিশেষ ইমোজি, তা বুঝবে কী করে ফেসবুক? এখনও মেলেনি এই প্রশ্নের উত্তর।

Comments are closed.