Latest News

‘থিয়েটারের একটা দিক ও ধসিয়ে দিয়ে গেল’, শাঁওলিকে নিয়ে স্মৃতিচারণা মনোজ মিত্রর

মনোজ মিত্র

এত অল্পবয়সে যে চলে যাবে শাঁওলি, তা তো কেউ ভাবেননি, ভাবার কথাও নয়! ভাবতেই বা যাবেন কেন! কিছুদিন আগে অবধিও তো শারীরিক ভাবে যথেষ্ট সক্ষম এবং চলিয়েফিরিয়ে ছিল ও। কিন্তু তার পরে কিছু ছোট-বড় বিপদ হয় ওর, সবাই হয়তো সবটা জানেন না। ও পড়ে গিয়ে কোমরে চোট পায়, পা ভেঙে বেশ অনেক দিন গৃহবন্দিও ছিল।

তার মধ্যেই একবার দেখা হয়েছিল, ডাক্তারদের এক অনুষ্ঠানে। কলকাতা শহরেই বছরে একটা করে সেই বড় অনুষ্ঠান হতো। সেখানে বক্তা হয়ে এসেছিল শাঁওলি। আমিও গিয়েছিলাম, তা বছর পাঁচেক আগের কথা। সেখানে শাঁওলি খুব সুন্দর করে বলেছিল, থিয়েটার নিয়ে ওর ভাবনাচিন্তার কথা। তার মধ্যে এমন অনেক কথা ছিল, যেগুলো শম্ভুদা বা তৃপ্তিদির থেকে পাওয়া নয়, ওর নিজের উপলব্ধি, অনুভব। খুব ভাল বলল ও। তার পরে আমার পাশে বসে বলল, ‘শরীর খুব খারাপ, ভাল বলতে পারছি না।’ আমি বললাম, ‘বলা তো ভালই হচ্ছে, কিন্তু শরীরকে কষ্ট দিয়ে বেশি বলবে না।’

শুধু মঞ্চে নয়, শাঁওলির সঙ্গে এমনি সাধারণ কথা বলেও খুব আনন্দ হতো। অনেক কথা ও জানত, অনেক বিষয় ওর উপলব্ধিতে ছিল, অনেক কিছু ওর ভাবনাচিন্তায় ছিল থিয়েটার নিয়ে। ও একা নয়, ওদের তিনজনের মধ্যেই অভিনয়ের একটা দুরন্ত আবহ তৈরি হয়েছিল। শম্ভুদা, তৃপ্তি মিত্র এবং শাঁওলিকে নিয়ে একটা ঘরানা তৈরি হয়েছিল বলা যায়। বাংলা থিয়েটার যে খুবই বিশেষ একটি শিল্প, এ যে অনন্য, তা নিয়ে কিছু বলতে গেলে বা থিয়েটার করতে গেলে যে লেখাপড়া, জ্ঞানগম্যির দরকার আছে, তা ওঁরা যেমন করে বুঝিয়েছেন, দেখিয়েছেন তা বাংলা থিয়েটারের একটা গর্বের ব্যাপার। বহুবার ওঁরা তিনজন একইসঙ্গে মঞ্চে নেমেছেন, সমৃদ্ধ করেছেন থিয়েটারকে।The Unforgettable Mitra of Bengali Theatreআমার একটি নাটক ওঁরা করেছিলেন। তৃপ্তিদি নিয়ে গিয়েছিলেন করবেন বলে, কিন্তু শাঁওলি তার প্রধান চরিত্রে অভিনয় করল। তৃপ্তিদি মঞ্চে করলেন না, রেডিওয় করলেন সে নাটক। সে নাটকের নাম ‘পাখি’। এসময়ে আমার সঙ্গে বিশেষ হৃদ্যতা তৈরি হয় ওঁদের পরিবারের। তবে পরবর্তীকালে সে হৃদ্যতা ভেঙেও যায়।

আমাদের থিয়েটার তো সবসময় একই ভাবে প্রবাহিত হয় না, একেক সময়ে একেকটা নাটক ঘিরে একেক রকম প্রবাহ তৈরি হয়। সেই মতো বদল আসে সম্পর্কেও। তাই পরের দিকে আমাদের দেখাসাক্ষাৎ কম হয়েছে, গল্পগাছা বিশেষ করার মতো বিশেষ সম্পর্ক আর গড়ে ওঠেনি। কিন্তু শাঁওলি যে একজন বিশেষ কেউ, তা তার অভিনয়, লেখা এবং নাটক নিয়ে তার বলা কথাগুলি প্রমাণ করে।remembering Sombhu Mitra on his birth anniversary - Anandabazarএকবার এপার বাংলা-ওপার বাংলা মিলে একটি বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন হয়েছিল কেন্দ্রীয় সরকারের আওতায়। সেটা ২০১১ সাল, বাংলায় তৃণমূল সরকার গঠিত হল। শাঁওলি সে অনুষ্ঠানে বলতে গেলেন। সেখানে তিনি সরকারি ব্যাপারস্যাপার নিয়ে অনেক কথা বলেন, আশার কথা। তখন আমাদেরও মনে হয়েছিল, নতুন সরকার এল, বাংলা থিয়েটারে হয়তো নতুন সময় এল এবার অন্যরকম ভাবে গড়ে উঠবে থিয়েটার।

কিন্তু তার পর থেকে হাজার রকম বিঘ্ন শুরু হল থিয়েটারে। শেষ কয়েক বছর ধরে তো থিয়েটার বিনষ্ট হওয়ার পথে। শুধু কোভিডের কোপ নয়, তা বাদেও এ প্রজন্মে আর থিয়েটার-পাগল লোকজন কই! ছেলেরা হয়তো কাজ করছে, কিন্তু ছোটখাটো থিয়েটার হচ্ছে তাতে। একটা বড় দলে থেকেও যদি অস্তিত্ব বজায় রাখার জন্য বা সরকারের কাছে কাজ প্রমাণ করার জন্য যখন ছোট ও কমজোরি নাটক দ্রুত উপস্থাপন করে ফেলতে হয়, তখন সেগুলো আর থিয়েটারকে সমৃদ্ধ করে না। থিয়েটারের বাজে সময় হয়ে ওঠে। এটা সেই বাজে সময়। এ সময়ে নিজেকে জাহির করার জন্য এসব থিয়েটার করতে হচ্ছে বাধ্য হয়ে। সময়টাই এত খারাপ, থিয়েটার নিয়ে আর যেন কিছু বলাই যায় না এখন।Shaoli Mitra News in Bengali, Latest Shaoli Mitra Bangla Khobor, photos, videos | Zee News Banglaএমনই খারাপ সময়ে শাঁওলির চলে যাওয়াটা অপূরণীয় ক্ষতি। শাঁওলি এমন এক ব্যক্তিত্ব, যিনি নাটক করেছেন যথেষ্ট, লিখেওছেন। বিভিন্ন রকম ঘরানায় অভিনয় করারও চেষ্টা করেছেন। ও চলে গেল। থিয়েটারের একটা দিক ও ধসিয়ে দিয়ে গেল।

You might also like