Latest News

দিশার মৃত্যুর খবরে অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন সুশান্ত, সিবিআইকে জেরায় জানিয়েছেন সিদ্ধার্থ পিঠানি

দ্য ওয়াল ব্যুরো: সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর ঠিক ৫ দিন আগে অস্বাভাবিক ভাবে মারা যান তাঁর প্রাক্তন ম্যানেজার দিশা সালিয়ান। তাঁর মৃত্যুর খবর শুনে নাকি অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন সুশান্ত। সূত্রের খবর, সম্প্রতি জেরায় সিবিআইকে এমনটাই জানিয়েছেন প্রয়াত অভিনেতার বন্ধু, ফ্ল্যাটের সঙ্গী এবং ক্রিয়েটিভ ও কনটেন্ট ম্যানেজার সিদ্ধার্থ পিঠানি। সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম ‘রিপাবলিক টিভি’-র একটি সূত্র মারফত এমনটাই জানা গিয়েছে। প্রসঙ্গত, সুশান্তের মৃত্যুর তদন্ত শুরু করার পর এই সিদ্ধার্থ পিঠানিকেই সবচেয়ে বেশি বার জেরা করেছেন সিবিআইয়ের তদন্তকারী আধিকারিকরা।

সূত্রের খবর, সিদ্ধার্থ আরও জানিয়েছেন দিশার মৃত্যুর পর ‘কর্নারস্টোন’ নামের একটি কোম্পানির ম্যানেজার উদয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলেন সুশান্ত। এই কোম্পানিই তাঁর সঙ্গে দিশার যোগাযোগ করিয়ে দিয়েছিল। কারণ সেই সময় সুশান্তের তৎকালীন ম্যানেজার শ্রুতি মোদী চোট-আঘাত পাওয়ায় দায়িত্বে বহাল ছিলেন না। প্রসঙ্গত, গত ৯ জুন মালাড অঞ্চলের একটি বহুতল থেকে পড়ে দিশার মৃত্যু। দিশা সালিয়ান আত্মহত্যা করেছেন এই দাবি বিভিন্ন মহলে করা হলেও মুম্বই পুলিশ এই ঘটনা ‘অ্যাক্সিডেন্টাল ডৈথ’ হিসেবেই গণ্য করেছে। কিন্তু দিশার এ হেন আকস্মিক মৃত্যুর খবর পাওয়ার পরে সুশান্ত অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন বলে জানিয়েছেন সিদ্ধার্থ। এমনকি বন্ধুক নিজের ঘরে রাতে ঘুমানোর জন্যও নাকি অনুরোধ করেছিলেন সুশান্ত। এছাড়াও দিশার ব্যাপারে বিভিন্ন তথ্য খুঁটিয়ে সিদ্ধার্থকে জিজ্ঞেস করতেন অভিনেতা। সূত্রের খবর সুশান্তের মৃত্যুর রহস্যের খোলস ছাড়াতে দিশার অস্বাভাবিক মৃত্যুরও নাকি তদন্ত করতে পারে সিবিআই। তবে এ ব্যাপারে নিশ্চিত ভাবে কিছু জানা যায়নি।

দিশার মৃত্যুর পর সুশান্ত যে অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন সে কথা আগেও বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের সাক্ষাৎকারে বলেছেন সিদ্ধার্থ পিঠানি। এক বছর ধরে সুশান্তের সঙ্গে ছিলেন সিদ্ধার্থ। ১৪ জুন যেদিন বান্দ্রার ফ্ল্যাট থেকে সুশান্তের দেহ উদ্ধার হয় সেদিন বলা ভাল আগের রাত থেকেই ওই ফ্ল্যাটে ছিলেন সিদ্ধার্থ। তাই বান্দ্রার ফ্ল্যাটে ক্রাইম সিন পুনর্নির্মাণ করার সময় সিদ্ধার্থকে সঙ্গে নিয়ে গিয়েছিলেন সিবিআইয়ের তদন্তকারী আধিকারিকরা। তদন্ত শুরুর পর থেকে সাত বারেরও বেশিবার সিদ্ধার্থ পিঠানিকে জেরা করেছে সিবিআই।

You might also like