Latest News

আমি তো তেমন পড়িনি, তৈমুর যেন ঠিকঠাক পড়াশোনা করে , ছেলেকে বলছেন করিনা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: মাত্র ২০ বছর বয়সে ইন্ডাস্ট্রিতে ডেবিউ করেছিলেন করিনা কাপুর। জে পি দত্ত’র ‘রিফিউজি’ ছবিতে অভিষেক বচ্চনের নায়িকা হয়েই শুরু হয়েছিল বেবো’র বলিউড ক্যারিয়ার। পড়াশোনা শেষ না করেই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন সিনেমা জগতে আসার। কিন্তু এখন সেই করিনাই বলছেন, জীবনে পড়াশোনার দাম অনেক বেশি।

সম্প্রতি করিনা বলেন, “পড়াশোনা শেষ না করেই কেরিয়ার বেছে নিয়েছিলাম। মাত্র সতেরো বছর বয়সে শ্যুটিং শুরু করি। কিন্তু এখন ভাবি, আমার আরেকটু পড়াশোনা করা উচিত ছিল। আর কয়েকটা বছর পর ইন্ডাস্ট্রিতে এলেই ভালো করতাম।” নিজে বেশি দূর পড়াশোনা করেননি করিনা। কিন্তু ছেলে তৈমুরের ব্যাপারে কিন্তু মা হিসেবে ভীষণ স্ট্রিক্ট তিনি। সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, “আমি চাই আগে ঠিকভাবে পড়াশোনা করুক তৈমুর। তারপর পছন্দের প্রফেশন বেছে নিক। কিন্তু কেরিয়ার বেছে নেওয়ার আগে পড়াশোনা করাটা খুব দরকার।”

করিনা বলেন, “তৈমুর জীবনে কী হতে চায় সেটা একান্তই ওর ইচ্ছে। কিন্তু আমি সবসময়ই চাইবো ও আগে ভালো করে নিজের পড়াশোনা শেষ করুক। আমি নিজে উচ্চ শিক্ষার দিকে যাইনি। তাই আমার কোনও ডিগ্রি নেই। অভিনয়টা পারবো ভেবে সেদিকেই এগিয়েছিলাম। কিন্তু এখন মনে হয় আরেকটু পড়াশোনা করলে ভালো হতো।” কাপুর খানদানের মেয়ে করিনা। যে বাড়িতে সবাই কেবল একটাই জিনিস বোঝেন। আর সেটা হলো সিনেমা। করিনা জানিয়েছেন, সিনেমার পরিবেশে বেড়ে উঠেছেন তিনি। তাই ভবিষ্যতে অভিনেত্রীই হবেন, এটাই সবসময় ভাবতেন। তাই তখন পড়াশোনার দিকে না তাকিয়ে কেরিয়ারের দিকেই ঝুঁকেছিলেন।

তবে বেবো একা নন, তাঁর সঙ্গে সহমত সইফও। ২০১৬ সালে গ্রাজিয়া ম্যাগাজিনের এক সাক্ষাৎকারে করিনা বলেছিলেন, সইফের পরিবারের অনেকেই হাভার্ড, অক্সফোর্ড, কেমব্রিজ থেকে পড়াশোনা করে এসেছেন। রয়েছেন বিলেত ফেরত উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত ব্যক্তিরাও। কিন্তু তিনি আর সইফ ফিল্মি দুনিয়ার মধ্যেই আটকে গিয়েছেন। মাঝ বয়সে এসে এই লাইট-ক্যামেরা-অ্যাকশনের দুনিয়ায় তাই বোধহয় কিছুটা হাঁপিয়ে গিয়েছেন। করিনা বলেন, সইফ সবসময় চায় সারা আর ইব্রাহিম আগে নিজেদের পড়াশোনা শেষ করুক। তারপর পছন্দের কেরিয়ার বেছে নিক। আর তৈমুরের ক্ষেত্রেও ছোটে নবাবের ভাবনা কিন্তু একদমই আলাদা নয়।

You might also like