Latest News

কলকাতার ট্রামে মানি হাইস্ট! হাওড়া ব্রিজেও! বাঙালিকেও কাছে চাইছেন প্রফেসর, টোকিও, অসলো

দ্য ওয়াল ব্যুরো: প্রোমো এমনও হয় বুঝি!
যাঁরা নেটফ্লিক্সে মানি হাইস্ট সিরিজটি এখনও দেখেননি। এ প্রোমো দেখে তাঁরা হয়তো ধাঁধায় পড়বেন ঠিকই। কিন্তু এও ঠিক, উদগ্র কৌতূহলের ঝড় বয়ে যেতে পারে তাঁদের মধ্যেও। কলকাতার ট্রামে, রাস্তায়, দোকানে এঁরা কারা!
‘লা কাসা দে পাপেল’ ওরফে তাসের ঘর যে এভাবে ঝড় তুলবে বিশ্বে তা কে জানত! ২০১৭ সালে মানি হাইস্টের ১৫টা এপিসোড সম্প্রচার করেছিল একটি স্প্যানিশ চ্যানেল। তারপর নেটফ্লিক্স সেটার স্ট্রিমিংয়ের দায়িত্ব নেয়। ২০১৭-র শেষ থেকে ২০১৮ সালের এপ্রিলের মধ্যে মানি হাইস্টের দুটো সিজন চলে নেটফ্লিক্সে। এরপরই জনপ্রিয়তা বাড়তে থাকে। তিন এবং চার নম্বর সিজনও হিট হয়। নাটকীয় ডাকাতির প্লট ঘিরে শুরু হয়ে যায় বিশ্ব জুড়ে মাতামাতি। প্রফেসর, লিসবন, নাইরোবি, ডেনভার, অসলো, হেলসিংকি নামগুলো দেশকাল ছাপিয়ে মানুষের মনে জায়গা করে নেয়। শেষ হয়েও হয় না যে শেষ।

অভিনব সেই চোরপুলিশ খেলায় সকলে ডাকাতদেরই পক্ষে। ন্যায় অন্যায়ের সামাজিক বেড়াজাল ঘেঁটে দিয়ে মানি হাইস্ট অনেকদিন আগেই অন্তরীক্ষে রওনা দিয়েছে। প্রফেসরের মত মাস্টারমাইন্ডের ছকও যখন বানচাল করতে উঠে পড়ে লাগে অ্যালিসিয়া সিয়েরা নামের সেই দুঁদে পুলিশ অফিসার, দর্শক তখন প্রফেসরের জন্যই প্রার্থনা করে চলে। যদি ধরা পড়ে যায় প্রফেসর? লিসবন কী পারবে সামলাতে? সেই উৎকণ্ঠাতেই পথ চেয়েছিলেন ভক্তরা। শেষমেশ আসছে সিজন ফাইভ। ভারতে এখন মানি হাইস্ট ভক্তের সংখ্যা এতটাই বেশি যে একটা ধুন্ধুমার রিলিজ না হলেই চলছিল না। তাই নেটফ্লিক্স ইন্ডিয়ার পক্ষ থেকে বড়সড় করে প্রোমো করা হল।
যে প্রোমোতে ‘বেলা চাও’য়ের সঙ্গে মিশে গেছে দিশি ফ্লেভার। প্রফেসরের বদলে অনিল কাপুর হাঁক পাড়ছেন ‘জলদি আও জলদি আও’। কারণ হাতে আর মাত্র কয়েকদিন। আগামী ৩ সেপ্টেম্বর নেটফ্লিক্সে রিলিজ হতে চলেছে মানি হাইস্টের পঞ্চম সিজন। নেটফ্লিক্স ইণ্ডিয়ার তরফে সেই উপলক্ষ্যে একটা প্রমোশনাল ভিডিও ছাড়া হয়েছে। যেটাকে বলা হচ্ছে সিজন ফাইভের অ্যান্থেম।

প্রচারমূলক সেই ভিডিওতে চমকের শেষ নেই। ভিডিওটি শ্যুট করা হয়েছে কলকাতা-সহ দেশের বিভিন্ন শহরে। সেখানে কলকাতার অভিনেত্রী খেয়া চক্রবর্তী থেকে শুরু বলিউডের তারকা অনিল কাপুর, বিক্রান্ত মাসে, রাধিকা আপ্টে কে নেই! সকলেই দেশের মাটিতে থেকে গলা মেলালেন ইতালির কৃষক আন্দোলনের প্রতিবাদী গান ‘বেলা চাও’ এর সুরে। তবে গাইলেন দেশের ভাষায়। কেবল হিন্দি নয়, ভারতের বৈচিত্রের সঙ্গে মানানসই ভিডিয়ো বানাতে একাধিক ভাষার ব্যবহার করেছেন নির্মাতারা। কারণ, এবার কেবল স্প্যানিশে নয়, ওয়েব সিরিজের চরিত্ররা কথা বলবে হিন্দি, তামিল আর তেলেগুতেও।

প্রমোশনাল ভিডিওতে মানি হাইস্টের কিছু জনপ্রিয় দৃশ্যের পুনঃনির্মাণ করা হয়েছে। শ্রুতি হাসানকে দেখা যায় নাইরোবির শেষ যাত্রায়, মুখে গোলাপ নিয়ে। রয়াল মিন্টে ডাকাতির পর ডেনভার যেমন টাকার সমুদ্রে সাঁতার দিচ্ছিল অনিল কাপুরকেও সেই আদলে নাচতে দেখা যায়। বিক্রান্ত ম্যাসি আর রাধিকা আপ্টেকে দেখা যায় মৃত ডাকাত সদস্যদের জন্যে শোক প্রকাশ করতে। রাধিকা আর্তুরোকেও সেই তালিকায় রাখতে বিক্রান্ত চমকে বলেন, সেকি ও তো মরেনি এখনও! রাধিকা জানান, আরে এবার নিশ্চয়ই মরবে। তাই আগাম জানিয়ে রাখলাম।

এমনই মজাদার স্বাদ নিয়ে মানি হাইস্টের অন্তিম সিরিজের আগমনী গেয়ে দিল নেটফ্লিক্স। জানা গিয়েছে, পঞ্চম সিরিজটি বেরোবে দুটো ভলিউমে। প্রতি ভলিউমে থাকছে ৫টা করে এপিসোড। তারই প্রথমটা রিলিজ হচ্ছে ৩ সেপ্টেম্বর। পরের ভলিউম রিলিজ হবে চলতি বছরেরই ডিসেম্বরে। তার জন্যে আবার কী চমক অপেক্ষা করে আছে দেখাই যাক।

You might also like