Latest News

শহরে অভিনব পথনাটিকা, নাচে-গানে তারুণ্যের গল্প শোনাল ‘লক্ষ্মী ছেলে’র দল

চৈতালি দত্ত

উইন্ডোজ ব্যানারের ছবি  মানেই তার  প্রচারে থাকে অভিনবত্ব। প্রযোজক-পরিচালক নন্দিতা রায় ও শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় এর আগে তা বহুবার প্রমাণ করেছেন। এবারও তার ব্যতিক্রম হল না। তাঁদের প্রযোজনায় ‘লক্ষ্মী ছেলে’-র (Lokkhi Chhele) প্রচারে অভিনব দৃশ্য দেখা গেল পথেই।

আগামী ২৫ অগস্ট উইন্ডোজ ব্যানারে কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায় (Kaushik Ganguly) পরিচালিত ‘লক্ষ্মী ছেলে’ মুক্তি পাবে। তার আগে বৃহস্পতিবার হঠাৎই যেন বদলে গিয়েছিল পদাতিক পারফর্মিং আর্টস থিয়েটার-এর রোজনামচা। তখন পশ্চিমের আকাশে সূর্য অস্তমিত। সেখানে হাজির একদল যুবক-যুবতী। শরীরে তাঁদের তারুণ্যের জোয়ার। পরনে সবার সাদা টি-শার্ট। কখনও বাদ্যযন্ত্র বাজিয়ে, আবার কখনও দরাজ গলায় তাঁদের চোখা সংলাপে মুখরিত হয়ে উঠেছিল রাস্তাঘাট।

Image - শহরে অভিনব পথনাটিকা, নাচে-গানে তারুণ্যের গল্প শোনাল 'লক্ষ্মী ছেলে'র দল

কী বলতে চাইছেন এঁরা? প্রথমটা ভাল করে বোঝা যায়নি। তবে সময় যত গড়িয়েছে আর বুঝতে অসুবিধা হয়নি ‘লক্ষ্মী ছেলে’দের সার কথা। তাঁরা অন্ধ কুসংস্কারের বিরুদ্ধে জেহাদ ঘোষণা করেছেন। মানুষকে সচেতন করতে পথনাটিকার মাধ্যমে সচেতনতামূলক বার্তা দিতে চেয়েছেন। আজও সমাজের কিছু মানুষ অন্ধ কুসংস্কারে আচ্ছন্ন। তাঁদের সজাগ  করতেই এই অভিনব প্রয়াস।

কলকাতায় আজকাল আর পথনাটিকা তেমন দেখা যায় না। পথনাটিকা অর্থাৎ যার ইংরেজি অর্থ স্ট্রিট প্লে (Street Play)। এদিনের সেই পথনাটিকায় অংশগ্রহণ করেন ‘লক্ষ্মী ছেলে’ ছবির মুখ্য চরিত্ররা। ছিলেন উজান গঙ্গোপাধ্যায়, পূরব, ঋতিকা প্রমুখ। প্রযোজক  নন্দিতা রায় এবং শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের সংস্থা ছবির প্রচারের জন্যই এই ধরনের পথনাটিকার আয়োজন করেছিলেন। যা ছিল যথার্থই হৃদয়গ্রাহী পরিবেশন।

এই পথনাটিকা যাতে ক্লান্তিদায়ক না হয়ে ওঠে তার জন্য এদিন ছিল ছৌ নাচের আয়োজনও। উপস্থিত ছিলেন পরিচালক কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায়। ছবির প্রচারের এই ধরনের কৌশল প্রশংসা কুড়িয়েছে।

Image - শহরে অভিনব পথনাটিকা, নাচে-গানে তারুণ্যের গল্প শোনাল 'লক্ষ্মী ছেলে'র দল

পরিচালক কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায় জানালেন, ‘কোভিডের সময় হঠাৎই যেন সমগ্র পৃথিবী নিমেষে থমকে গিয়েছিল। প্রায় বন্ধ হয়ে যায় বিনোদনের জগত। পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হতেই আবারও একে একে ছবি মুক্তি পাচ্ছে। যা খুবই আশাব্যাঞ্জক। বেশ কিছু ছবি আবার বক্স অফিসে ইতিমধ্যে সাফল্যের মুখও দেখেছে। আবারও স্বাভাবিক ছন্দে ফিরছে বিনোদন জগত। প্রতিটি ছবি আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ। স্বাভাবিকভাবেই আমি খুবই উচ্ছ্বসিত।’

প্রযোজনা সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে যে  কলকাতার বিভিন্ন জনবহুল এলাকায় ছবির প্রচারের স্বার্থে আগামী বেশ কিছুদিন এই পথনাটিকার আয়োজন করা হবে। যার মাধ্যমে তুলে ধরা হবে ছবির বিষয়বস্তু থেকে কুসংস্কার মুক্তির সচেতনতামূলক বার্তা। গানে, ছৌ নাচে, সংলাপে তারুণ্যের গল্প শোনাবে ‘লক্ষ্মী ছেলে’র দল।

আরও পড়ুন: কলকাতায় এলে পুজো দিতে ভুলি না! সকাল সকাল কালীঘাট মন্দিরে তাপসী পান্নু

You might also like