Latest News

অমিত শাহের অফিসের লোক পরিচয়ে ফোন করে জ্যাকলিনকে বন্ধুত্ব পাতাতে চাপ সুকেশের!

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ২০২০ থেকেই জ্যাকলিন ফার্নান্ডেজের (Jacqueline) সঙ্গে বন্ধুত্ব (friendship)পাতাতে চাইছিলেন সুকেশ চন্দ্রশেখর (sukesh chandrasekhar)। এজন্য কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের (amit shah) অফিসের লোক বলে ভুয়ো পরিচয় দিয়ে ফোন করে তিনি বলিউড অভিনেত্রীর (bollywood) ওপর চাপ (pressure) তৈরির কৌশল (tactics) খাটিয়েছিলেন। এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের (ইডি) (ed) নথিতে রয়েছে  এই তথ্য।

সুকেশ নকল পরিচয়ে জ্যাকলিনের মেকআপ আর্টিস্ট শান মুথাথিলকে ফোন করে জানান, তিনি অমিত শাহের অফিস থেকে বলছেন, জ্যাকলিন ফার্নান্ডেজ যেন অবশ্যই মিঃ শেখরের সঙ্গে যোগাযোগ করেন।  তিনি খুবই গুরুত্বপূর্ণ একজন লোক, জ্যাকলিনের সঙ্গে কথা বলতে চান। ভুয়ো কলকে সত্যি বলে ধরে নিয়ে শান অমিত শাহের দপ্তরের আবেদনের  কথা জ্যাকলিনকে বললে অভিনেত্রী ২০২০র ফেব্রুয়ারি সুকেশকে ফোন করেন। জ্যাকলিনের সঙ্গে প্রথম আলাপেই সুকেশ দাবি করেন, তিনি জয়ললিতার পরিবারের লোক, সান টিভির মালিক। জ্যাকলিনকে সুকেশ নিজের মোবাইল নম্বর +1724276** থেকে হোয়াটসঅ্যাপে ফোন করে নিজেকে শেখর রানা ভেলা পরিচয় দেন। তারপর ২০২১ এর ফেব্রুয়ারি থেকে ৭ আগস্ট গ্রেফতার হওয়া পর্যন্ত জ্যাকলিনের সঙ্গে  সুকেশের নিয়মিত যোগাযোগ ছিল। সুকেশ  জানান, তিনি জ্যাকলিনের বড় ফ্যান। দক্ষিণী ছবিতে তাঁর  কাজ করা উচিত। সান টিভির এমন অনেক প্রজেক্ট আছে। সুকেশের সহযোগী ও গ্রেফতার অভিযুক্ত পিঙ্কি ইরানিও সুকেশের সঙ্গে কথা বলাতে জ্যাকলিনকে রাজি করাতে পারেননি। পিঙ্কিকে কোটি কোটি টাকা ও উপহার দেন সুকেশ, যাতে তিনি জ্যাকলিনকে বোঝান, বন্ধু হতে বলেন। সুকেশের তরফে পিঙ্কিই দামী দামী গিফট পাঠাতেন জ্যাকলিনকে, তাঁর পরিবারকেও। জেরায় সুকেশ সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে জ্যাকলিন বলেন, তিনি শেখর রত্ন ভালাকে চেনেন।

সুকেশ দেশের নানা জায়গায় ঘুরতে জ্যাকলিনের জন্য চার্টার্ড বিমান, হোটেলের বন্দোবস্ত-সব করে দেন। ইডি-র দাবি, যাবতীয় খরচ অপরাধমূলক কাজকর্ম থেকে পাওয়া অর্থে করেছেন সুকেশ। ২০০৯ থেকে সুকেশ ভারতে রয়েছেন।  সুকেশ তার বোন বোন জেরাল্ডিনকে দেড় লাখ মার্কিন  ডলার পাঠিয়েছিলেন, অস্ট্রেলিয়ায় তাঁর ভাই ওয়ারেন ফার্নান্ডেজের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে ১৫ লাখ টাকা ট্রান্সফার করেছিলেন।

জ্যাকলিনকে এই মামলায় বেশ কয়েকবার জেরা করেছে ইডি। তাদের ধারণা, সুকেশের সঙ্গে যোগাযোগ বাড়তে থাকে, অনেক পরে তিনি তাঁর আসল পরিচয় বুঝতে পারেন।

 

 

You might also like