Latest News

একাধিক চমক নিয়ে হিন্দিতে নতুন ধারাবাহিক, খোলামেলা গল্পে লীনা গঙ্গোপাধ্যায়

বাংলা ধারাবাহিকের জনপ্রিয় লেখিকা লীনা গঙ্গোপাধ্যায়ের মৌলিক গল্প নিয়ে কালারসে এই প্রথম শুরু হতে চলেছে হিন্দি ধারাবাহিক ‘থোড়াসা বাদল থোড়াসা পানি’। আগে তাঁর একাধিক জনপ্রিয় বাংলা ধারাবাহিক হিন্দি এবং দক্ষিণে রিমেক হয়েছে। এইমুহূর্তে আলোচনার কেন্দ্রে নতুন এই হিন্দি ধারাবাহিকটি। সম্প্রচার হওয়ার আগেই দ্য ওয়াল-এর নিজস্ব প্রতিনিধি চৈতালি দত্তকে ধারাবাহিকটি সম্পর্কে অনেক অজানা তথ্য জানালেন স্বয়ং লীনা গঙ্গোপাধ্যায়।

বাংলা ধারাবাহিক আর হিন্দি ধারাবাহিকের লেখার মধ্যে কোনও তারতম্য আছে কি?
লীনা- অবশ্যই, অনেক ফারাক আছে। বাংলা আর হিন্দি বাজারের মধ্যেও বিস্তর ফারাক। দর্শকের চাহিদাও আলাদা। ফলে মূলগল্প এক থাকলেও উপস্থাপনা অন্য ধরনের হয়।
হিন্দি এই ধারাবাহিক লেখার আগে ঠিক কী ধরনের ভাবনাচিন্তা কাজ করেছিল?
লীনা- ভাবনাচিন্তা তো অবশ্যই ছিল। ওখানে কী ধরনের শো হয়, ওঁদের প্রেজেন্টেশন করার ধরন কী রকমের ইত্যাদি নিয়ে রিসার্চ করতে হয়েছে। যেমন এখানের বাংলা ধারাবাহিকের মতো ওখানে বড়-বড় দৃশ্য চলে না। আমি ওটা চালু করেছি। যেটা আগে ওখানে ভাবাই যেত না। যেহেতু ওখানে বাজেট বেশি তাই ঝলমলে ব্যাপারটা অনেক বেশি। চাইলে এক্সিকিউশন লেভেলেও জোর দেওয়া যায়। অনেক বড় বড় সেট হয়, ফলে খেলিয়ে কাজ করা যায়। হিন্দি ধারাবাহিকে কিছু দৃশ্য বিস্তারিতভাবে দেখানো হয়। যেমন অতীতের কোনও দৃশ্য। বাংলায় তুলনায় বাজেট কম থাকার দরুণ এপিসোডে সেরকম দৃশ্য করার আমাদের কোনও সুযোগ নেই।
হিন্দি ধারাবাহিকে বেশিরভাগ দৃশ্যেই নাটকীয়তা বেশি থাকতে হবে এমন একটা ধারণা আছে। তবে আমি সেভাবে এই নতুন ধারাবাহিক লিখছি না। বাংলার ক্ষেত্রেও আমি অকারণে নাটকীয়তা বর্জন করে ধারাবাহিক লিখি। হিন্দিতে একটা এপিসোডে ছ’-সাতটা দৃশ্য থাকতে হবে এমন ধারণা রয়েছে। তবে বাংলায় একটা এপিসোডে একটাই দৃশ্য দেখানোর চল আমি করেছি। হিন্দি ধারাবাহিকের এপিসোড সেভাবেই সাজানোর কথা ভাবছি। আসলে এর পেছনে কিন্তু সঠিক কোনও ব্যাকরণ নেই।

এবারের হিন্দি ধারাবাহিকে গল্পে কী ধরনের নতুনত্ব থাকবে?
লীনা- নতুনত্ব গল্পে কী থাকবে সেটা ঠিক বলতে পারব না। এই ধারাবাহিক দেখে দর্শকরা সেটা বলতে পারবেন। তবে যে গল্প ওখানে খুব একটা হয় না বা প্রচলিত নয় সেরকম গল্প আমি লিখেছি। একটা চ্যালেঞ্জ বলতে পারেন বা এক্সপেরিমেন্ট বলা যেতে পারে। দেখা যাক কী হয়। দেখুন আবেগ তো সব জায়গায় এক। বাংলা বা হিন্দি বলে আলাদা কিছু হয় না। গল্প একই থাকে। যে গল্প আমি বাংলায় লিখতে পারি সেই গল্পই আমি হিন্দিতে দিয়েছি। আলাদা কিছু করিনি। তবে হ্যাঁ প্রেজেন্টেশন অবশ্যই আলাদা। আপনার মৌলিক গল্প নিয়েই তো নতুন এই ধারাবাহিক তৈরি হচ্ছে?
লীনা- একদম ঠিক। আমার মৌলিক গল্প নিয়েই ‘থোড়াসা বাদল থোড়াসা পানি’ ধারাবাহিক তৈরি হচ্ছে। সেই সঙ্গে চিত্রনাট্য ও সংলাপ আমার লেখা। কিছুদিন পর্যন্ত সেটা করে দিচ্ছি। ওঁরা আপাতত ট্রান্সলেট করছে। এরপর যখন ব্যস্ততার কারণে আমার সময়াভাব হবে তখন ওঁদের টিম কাজ করবেন।
যদি সংক্ষেপে ‘থোড়াসা বাদল থোড়াসা পানি’ ধারাবাহিকের গল্পটা একটু বলা যায়–
লীনা- দেখুন পুরো গল্প বলা আমার পক্ষে সম্ভব নয়। তবে অল্প কথায় এটুকু বলতে পারি যে কাজল নামে আদ্যোপান্ত একটি সাদাসিধে মেয়ের গল্প, যে বাড়ির সকলের দেখভাল করে। বাড়ির প্রতিটি মানুষ তাকে ভালোবাসে। তার একটু দেরিতেই বিয়ে ঠিক হয়। কিন্তু বিয়ের দিনে বাড়িতে এমন একটা অঘটন ঘটে শেষমেশ কাজল বিয়ে করে না। এরপর কী হয়? একটা সাধারণ মেয়ে প্রতিকূল পরিবেশে কীভাবে তার ক্ষমতার উত্তরণ ঘটাবে সেটা নিয়েই ছবির গল্প।এই চরিত্রে অভিনয় করছেন ঈশিতা দত্ত। যাঁকে হিন্দি ছবি ‘দৃশ্যম’-এ অজয় দেবগনের সঙ্গে অভিনয় করতে দেখা গেছে। ঈশিতা আবার বলিউড নায়িকা তনুশ্রী দত্তের বোন।
এই ধারাবাহিক তো আপনার হোম প্রোডাকশনের?
লীনা- না। আমার ছেলের প্রোডাকশনের। ওঁর প্রোডাকশন হাউসের আমরাও পরিচালক। সেই হিসেবে আমরা আছি। কিন্তু এই হিন্দি ধারাবাহিকের প্রোডাকশন আমার ছেলে অর্ক গাঙ্গুলির। ওঁর প্রোডাকশন হাউসের নাম অর্গানিন। তবে অর্কর সঙ্গে ওখানে আরেকজনের কো-প্রোডাকশন রয়েছে। এই ধারাবাহিক ৩০ শে অগাস্ট থেকে কালারসে সম্প্রচারিত হবে।

 

শোনা যাচ্ছে বাংলা জনপ্রিয় ধারাবাহিক ‘খড়কুটো’ হিন্দিতে রিমেক হবে?
লীনা- হ্যাঁ। আমরাই করব পুজোর পর। এখন নায়ক-নায়িকা নির্বাচনের অডিশন চলছে।
আপনার ‘কুসুম দোলা’, ‘শ্রীময়ী’, ‘ইষ্টিকুটুম’- বাংলা জনপ্রিয় ধারাবাহিকের হিন্দি রিমেক তো যথেষ্ট জনপ্রিয়?
লীনা- বার্ক রেটিং অনুযায়ী গত দেড় বছর ধরে বাংলা ধারাবাহিক শ্রীময়ী-র হিন্দি রিমেক ‘অনুপমা’ ১ নম্বর স্থানাধিকারী ধারাবাহিক। আবার দু’নম্বর জায়গা দখল করে রেখেছে ‘গুম হ্যায় কিসি কে পেয়ার মে’। এটি ‘কুসুমদোলা’-র হিন্দি রিমেক। আর তৃতীয় স্থানে রয়েছে ‘ইষ্টিকুটুম’-এর হিন্দি রিমেক ‘ইমলি’।
‘কুসুম দোলা’ বাংলা ধারাবাহিক তামিল ভাষায় তো রিমেক হয়েছে-
লীনা- হ্যাঁ অবশ্যই হয়েছে। কিন্তু সেটার মধ্যে আমি ছিলাম না। বাকি যা হয়েছে সেটার মধ্যে আমার গাইডলাইনস থাকে।

You might also like