করিনার কাঁধে মাথা ছোট্ট তৈমুরের, ইনস্টা-অভিষেকেই নজর কাড়ল সইফ পুত্র

এর আগেও সোশ্যাল মিডিয়ায় তৈমুরকে দেখা গিয়েছে। কখনও সারা আলি খান, কখনও বা করিনার টুইটার প্রোফাইলে। কিন্তু এই প্রথম ইনস্টাগ্রামে পা রাখল তৈমুর। আর প্রথম দিনেই সে সুপারহিট।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

    দ্য ওয়াল ব্যুরো: গতকালই ইনস্টাগ্রামে প্রোফাইল খুলেছেন করিনা কাপুর খান। ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই তাঁর ফলোয়ারের সংখ্যা এক মিলিয়ন পেরিয়ে গিয়েছে। আর ইনস্টাগ্রাম খুলেই প্রথম ছবি করিনা দিলেন তাঁর ও তৈমুরের। সঙ্গে বললেন, এই একজনই যে কোনও সময় তাঁর ফ্রেম কেড়ে নিলেও রাগ করবেন না তিনি। করিনার এই পোস্ট ইতিমধ্যেই ভাইরাল।

    শনিবার নিজের ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইলে একটি ছবি দেন করিনা। সেখানে দেখা যাচ্ছে তাঁর কাঁধে মাথা দিয়ে রয়েছে তৈমুর। ছেলের মুখ সামনে। পিছনে কিছুটা ঢেকে গিয়েছেন করিনা। তবে তাতে একটুও খারাপ লাগেনি তাঁর। বরং ক্যাপশনে তিনি লিখেছেন, “একমাত্র যাকে আমি যে কোনও মুহূর্তে আমার ফ্রেম কেড়ে নেওয়ার অনুমতি দিতে পারি।” এক্ষেত্রে পিছনে থেকে যাওয়াকে ফ্রেম কেড়ে নেওয়া বোঝাতে চেয়েছেন বেবো।

    View this post on Instagram

    The only one I will ever allow to steal my frame… 🎈🎈🎈❤️❤️❤️

    A post shared by Kareena Kapoor Khan (@kareenakapoorkhan) on

    এই ছবি প্রকাশ হওয়ার পরেই তা ভাইরাল। করিনার দিদি করিশ্মা কাপুর, করণ জোহর, অমৃতা অরোরা, অর্জুন কাপরের মতো সেলিব্রিটিরা এই ছবিতে কমেন্ট করেছেন। সবাই মা-ছেলের এই রসায়নের প্রশংসা করেছেন। সেইসঙ্গে তৈমুরকে ইনস্টাগ্রামে দেখানোর জন্য ধন্যবাদ জানিয়েছেন করিনাকে।

    সইফ আলি খান ও করিনা কাপুরের ছেলে তৈমুর হওয়ার পর থেকেই সে বিখ্যাত। জন্মের পর থেকেই তার ছবি পাওয়ার জন্য ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়য়ে থাকেন ছবি শিকারিরা। সংবাদমাধ্যমে বরাবরই সবার নজরে থাকে তৈমুর। এই নিয়ে কম ব্যতিব্যস্ত হতে হয় না সইফ ও করিনাকে।

    এর আগেও সোশ্যাল মিডিয়ায় তৈমুরকে দেখা গিয়েছে। কখনও সারা আলি খান, কখনও বা করিনার টুইটার প্রোফাইলে। কিন্তু এই প্রথম ইনস্টাগ্রামে পা রাখল তৈমুর। আর প্রথম দিনেই সে সুপারহিট।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

You might also like

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More