সুশান্তের মৃত্যুর স্বচ্ছ ও দ্রুত তদন্ত হোক, প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন অভিনেতার দিদির

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

    দ্য ওয়াল ব্যুরো: সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর দেড় মাস পার হয়ে গিয়েছে। তবে এখনও অভিনেতার এমন আকস্মিক এবং মর্মান্তিক পরিণতির কোনও কিনারা হয়নি। উল্টে প্রতিদিন নতুন করে নানা প্রশ্ন আসছে সামনে। এ বার ভাইয়ের পরিণতির ন্যায় বিচার চেয়ে প্রধানমন্ত্রীর দ্বারস্থ হলেন সুশান্তের দিদি শ্বেতা সিং কীর্তি।

    অগস্টের পয়লা তারিখে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে একটি খোলা চিঠি লিখেছেন শ্বেতা। নিজের সোশ্যাল মিডিয়ার বিভিন্ন হ্যান্ডেল শেয়ার করেছেন সেই চিঠির ছবি। মোদীর উদ্দেশে শ্বেতা লিখেছেন, “আমি সুশান্ত সিং রাজপুতের দিদি আপনাকে অনুরোধ করছি এই গোটা ঘটনার ভাল করে তদন্ত হোক। ভারতের বিচারব্যবস্থা এবং আইনের উপর আমাদের আস্থা রয়েছে। যে কোনও প্রকারেই আমরা ন্যায় চাই।”

    নিজের চিঠিতে শ্বেতা আরও লিখেছেন, “স্যার আমার হৃদয় বলছে আপনি সত্যের পাশে থাকবেন। ইন্ডাস্ট্রিতে আমার ভাইয়ের কোনও গডফাদার ছিল না। আমাদেরও কেউ নেই। আমরা অত্যন্ত সাধারণ পরিবার। তাই আপনার কাছে আবেদন এই তদন্তে আপনি নজর দিন যাতে সবকিছু স্বচ্ছ ভাবে বিবেচনা করা হয়। আর কোনও প্রমাণ যেন বিকৃত না করা হয়। আশা করি ন্যায়বিচার পাব।”

    View this post on Instagram

    I am sister of Sushant Singh Rajput and I request an urgent scan of the whole case. We believe in India’s judicial system & expect justice at any cost. @narendramodi @PMOIndia #JusticeForSushant #SatyamevaJayate

    A post shared by Shweta Singh kirti (@shwetasinghkirti) on

    কিছুদিন আগেই ইনস্টাগ্রামে বিহারের বাড়িতে সুশান্তের প্রার্থনাসভার একটি ছবি পোস্ট করেছিলেন শ্বেতা। তিনি লিখেছিলেন, “যদি সত্যের কোনও মূল্য না থাকে তাহলে কোনও দিন আর কিছুরই কোন মূল্য থাকবে না।”

    সুশান্তের প্রাক্তন বান্ধবী অঙ্কিতাও কয়েকদিন আগে ইনস্টাগ্রামে লিখেছিলেন ‘সত্যের জয় হবে’। অঙ্কিতার সেই পোস্টে কমেন্ট করেছিলেন শ্বেতা। তিনি লিখেছিলেন, ‘ঈশ্বর সবসময় সত্যের সঙ্গে থাকেন।’

    প্রসঙ্গত, গত ১৪ জুন বান্দ্রার ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হয় সুশান্তের ঝুলন্ত দেহ। ময়নাতদন্তের রিপোর্টে বলা হয়েছে আত্মহত্যা করেছেন অভিনেতা। গলায় ফাঁস লাগার ফলে দমবন্ধ হয়েও মৃত্যু হয়েছে তাঁর। তবে অভিনেতার এমন আকস্মিক এবং মর্মান্তিক পরিণতি মেনে নিতে পারেননি কেউই।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

You might also like

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More