শুক্রবার, অক্টোবর ১৮

স্কুলে নাকি ভীষণ কথা বলতেন দীপিকা, ক্লাসে ঘুমিয়েও পড়তেন!

দ্য ওয়াল ব্যুরো: স্কুলে নাকি ভীষণ কথা বলতেন দীপিকা পাড়ুকোন। ক্লাসে তাঁর বকবকানির চোটে অস্থির হয়ে যেতেন শিক্ষক-শিক্ষিকারা। মাঝে মাঝে অভিযোগ আসত বাড়িতেও। রিপোর্ট কার্ডে লেখা থাকত দীপিকার নানা কাণ্ড-কারখানা। এমনকি ক্লাসে নাকি ঘুমিয়েও পড়তেন দীপিকা। দিবাস্বপ্নে বিভোর হয়ে যেতেন বলেও অভিযোগ রয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে।

কিন্তু এতদিন পর দীপিকার জীবনের এই অজানা রহস্য ফাঁস হল কী ভাবে? সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের কীর্তিকলাপের কথা সকলকে জানিয়েছেন স্বয়ং অভিনেত্রীই। রিপোর্ট কার্ডের ছবি শেয়ার করেছেন ইনস্টাগ্রামে। অনুমান, আর পাঁচজনের মতোই স্কুল লাইফ ভীষণ ভাবে মিস করেন দীপিকা। তাই তো এতদিন পর নিজের ছোটবেলার মজার স্মৃতি শেয়ার করেছেন সবার সঙ্গে।

কথায় বলে স্কুল লাইফ হল মানুষের জীবনের সবচেয়ে সেরা সময়। এই সময়ের বন্ধুরাই হয় জীবনে চলার পথে আসল সঙ্গী। কারণ ছোটবেলায় স্বার্থ বুঝতে শেখে না বাচ্চারা। তাই বন্ধুত্বও হয় গভীর এবং গাঢ়। আর এই স্কুল লাইফেই জীবনের সবচেয়ে সেরা দুষ্টুমিগুলোও করে বাচ্চারা। কেউ ক্লাসে খুব কথা বলে, কেউ বা হয় খুব দুরন্ত, কেউ বা ক্লাস চলাকালীন ঘুমিয়েই পড়ে। দীপিকা পাড়ুকোনও যে এই সব দুরন্ত দুষ্টু বাচ্চার থেকে কোনও অংশে কম ছিলেন না তা জানিয়েছেন নিজেই।

দীপিকার ইনস্টাগ্রাম পোস্টে নানান মজার কমেন্ট করেছেন অনেক তারকাই। তবে লাইমলাইটে কেড়ে নিয়েছে রণবীর সিং একাই। তাঁর দাবি, রিপোর্ট কার্ডে টিচাররা যা যা লিখেছেন দীপিকা এখনও নাকি ঠিক তেমনটাই আছেন।

Comments are closed.