আংরেজি মিডিয়াম: বাবা-মেয়ের গল্প নিয়ে কামব্যাক ইরফানের

'আংরেজি মিডিয়াম'-এর ট্রেলর দেখার জন্য মুখিয়ে ছিল দর্শক মহল। অবশেষে রিলিজ হল ইরফান খানের কামব্যাক ছবির ট্রেলর। 

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ‘হিন্দি মিডিয়াম’ ছবির ব্যাপক সাফল্যের পরেই ঠিক হয়েছিল পর্দায় আসবে সিনেমার সিক্যুয়েল। এবার রিলিজ হল ‘আংরেজি মিডিয়াম’-এর ট্রেলর। এক বাবা (সিঙ্গল ফাদার) এবং মেয়ের গল্প দেখানো হয়েছে এই ছবিতে। বাবার চরিত্রে অভিনয় করেছেন ইরফান খান। আর তাঁর মেয়ের ভূমিকায় রয়েছেন রাধিকা মদনানি। এছাড়াও ছবিতে রয়েছেন করিনা কাপুর, রণবীর শোরে, ডিম্পল কাপাডিয়া, দীপক ডোবরিয়াল, পঙ্কজ ত্রিপাঠী এবং আরও অনেকে।

অভিনেতা আগেই জানিয়েছিলেন ট্রেলর লঞ্চ বা ছবির প্রোমোশন কোনওটাতেই সশরীরে থাকতে পারবেন না তিনি। তবে মানসিক ভাবে সব সময় গোটা টিমের সঙ্গে রয়েছেন ইরফান। বুধবার ভক্তদের উদ্দেশে দিয়েছিলেন আবেগঘন বার্তাও। তারপর থেকেই ‘আংরেজি মিডিয়াম’-এর ট্রেলর দেখার জন্য মুখিয়ে ছিল দর্শক মহল। অবশেষে রিলিজ হল ইরফান খানের কামব্যাক ছবির ট্রেলর।  

সাধারণ পরিবারের সন্তান রাধিকা ওরফে তারিকা বনসল। থাকে বাবার সঙ্গে। স্কুলে রেজাল্ট ভাল করায় পুরস্কার দেওয়া হবে তাকে। তাই বাবাকে সঙ্গে নিয়েই অডিটোরিয়ামে হাজির হয়েছে সে। ভিড়ে ঠাসা গ্যালারিতে বসার জায়গা নেই বিন্দুমাত্র। তারিকার সাফল্য উদযাপন করতে হাজির হয়েছেন অনেকেই। সকলের মুখেই লেগে রয়েছে হাসি। পুরস্কার দেওয়ার পর স্টেজে ডাকা হল তারিকার বাবাকেও। ভাঙা ভাঙা ইংরেজিতে কোনওমতে নিজের বক্তব্য শেষ করলেন তারিকার বাবা ঘষেটিরাম মিষ্টান্ন ভাণ্ডারের মালিক চম্পকজি। তবে ভাষায় আড়ষ্টতা থাকলেও বুঝিয়ে দিলেন নিজের ‘বিটিয়া’-কে কতটা ভালবাসেন। সকলের সামনে সাফ জানালেন যে বেশি ইংরেজিও জানেন না।

স্কুল পেরিয়ে তারিকা পড়তে যেতে চায় লন্ডনের বিশ্ববিদ্যালয়ে। বাবা অবশ্য চান না মেয়েকে ছাড়তে। উল্টে মেয়ে স্বাধীনতা চাইলে বলেন, “ভারত থেকে ইংরেজ বিদায় হতে ২০০ বছর লেগেছিল। মেয়ে যেন আর একটু অপেক্ষা করে।” কিন্তু নাছোড়বান্দা মেয়ে বিদেশ পাড়ি দেবেই। কিন্তু সাধারণ মধ্যবিত্ত পরিবারে অত টাকা কোথায়? তবে মেয়ের ইচ্ছে যখন পূরণ তো করতেই হবে। তাই কোমর বেঁধে ময়দানে নামেন বাবা। এরপর মেয়ের বিদেশ পাড়ি দেওয়ার টাকা জোগাড় এবং বাবা-মেয়ের সম্পর্ক নিয়েই এগোবে গল্প।

ছবি প্রসঙ্গে ইরফান আগেই বলেছিলেন এই সিনেমা দর্শকদের কাঁদাবে, আবার হাসাবেও। ট্রেলর দেখেই স্পষ্ট সেটা। মজাদার সংলাপের সঙ্গে রয়েছে বাবা-মেয়ের সম্পর্কের আবেগও। ইরফান এখানে ভিতরে আবেগপ্রবণ আর বাস্তবে সদাহাস্যময় একজন মানুষ। মেয়ের ছোট ছোট স্বপ্ন পূরণ করাই তাঁর জীবনের মূল লক্ষ্য। বাবা-মেয়ের এই সম্পর্ক নিয়েই এবার বড় পর্দায় আসছে ‘আংরেজি মিডিয়াম’।

দেখুন ট্রেলর।

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.