মঙ্গলবার, নভেম্বর ১২

জন্মদিনেও বউকে ট্রোল করতে ছাড়লেন না অজয়! ছক্কা হাঁকিয়ে জবাব দিলেন কাজলও

দ্য ওয়াল ব্যুরো: তিনি হাসলে তাঁর চোখও হাসে। অন্তত এমনটাই দাবি করেন তাঁর ভক্তরা। তাঁর একঝলক হাসি দেখে আজও বুকের বাঁদিকটা চিনচিন করে বহু পুরুষের। হালফিলের বলি নায়িকাদের এখনও তুড়ি মেরে টক্কর দিতে পারেন তিনি। আজ তাঁর ৪৫তম জন্মদিন। তিনি কাজল। তাঁর বয়স যে শুধু সংখ্যাতেই বেড়েছে, মনে তিনি এখনও ‘সুইট সিক্সটিন’, জন্মদিনের সকালেই জানান দিলেন সেটাও।

স্ত্রী’র জন্মদিন বলে কথা। সকাল সকাল তাই কাজলকে ইনস্টাগ্রামে শুভেচ্ছা জানিয়েছিলেন অজয় দেবগণ। শেয়ার করেছিলেন কাজলের রিল্যাক্স মুডের একটা ছবি। যেখানে দেখা গিয়েছে টেবিলের উপর পা ছড়িয়ে, চোখে সানগ্লাস এঁটে সকাল সকাল রোদের আমেজ উপভোগ করছেন কাজল। ছবি শেয়ার করে কাজলের উদ্দেশে অজয় লিখেছেন, “উঠে পড়। নিজের সৌন্দর্যকে ঘুম পারিয়ে রাখার কোনও দরকার নেই তোমার।” বর যে বেশ মজার মুডে আছেন তা আন্দাজ করেছিলেন কাজল। তাই অজয়ের মেসেজের জবাব দিলেন বেশ মজার ছলেই। লিখেলেন, “আমি জেগেই আছি। উঠে দেখলাম আজ যুগের (কাজল-অজয়ের ছেলে) নেই। চারিদিকে আজ ছুটির আমেজ।” জন্মদিনে সকাল সকাল একটা সেলফি তুলেও নিজের ইনস্টাগ্রামে শেয়ার করেছেন কাজল। 

গত কয়েকদিনের টানা বৃষ্টিতে মুম্বইয়ের অবস্থা বানভাসি। স্কুল-কলেজ বন্ধ থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বৃহন্মুম্বই পুরসভা। তাই ছেলে যুগের স্কুলও বন্ধ। সে জন্যই জন্মদিনের সকালে খানিক আয়েস করার সুযোগ পেয়েছেন কাজল। বাকি পাঁচটা দিন তো তাড়াহুড়োতেই কাটে। সেলিব্রিটি হলেই বা কী, হাজার হোক কাজল যে মা। তাই আর পাঁচজন মায়ের মতো ছেলে স্কুলে না যাওয়া পর্যন্ত একটু ঝক্কি তো পোয়াতেই হয় তাঁকেও। কিন্তু জন্মদিনের সকালে সে সবের বালাই নেই। তাই একটু রিল্যাক্স করতেই বসেছেন অভিনেত্রী। আর তা নিয়ে অজয়ের মজা করার জবাব দিয়েছেন একেবারে ছক্কা হাঁকিয়ে। 

তবে অজয়-কাজলের খুনসুটির সম্পর্ক কারও অজানা নয়। প্রকাশ্যে স্ত্রীকে ট্রোলও করেছেন অজয়। তা দেখে অনেকেই বলেছিলেন, অন ক্যামেরা বউকে ট্রোল করছে বর! সাহস আছে বটে। ‘কফি উইথ করণ’-এ এসে অজয় বলেন, “ছবি তোলাটা তো আসল ব্যাপার নয়। আসল হলো সেটাকে ঠিকঠাক এডিট করা। ঘণ্টা তিনেকে ধরে ছবি এডিট করে ওরা। তারপর সেটা শেয়ার করে।“ এই অবধি ঠিকই ছিল। কিন্তু এরপরেই অজয় বলে বসেন, “ও আগে কখনও এসব করেনি। এখন বুড়ো বয়সে এসে এ সব…..আমি জানি না কেন……।” অজয়ের এই মন্তব্যে রীতিমতো চমকেই যান কাজল। সামলাতে খানিক সময়ও লাগে। নিজের কানকেই যেন বিশ্বাস করতে পারছিলেন না? এ কী বলছে অজয়? তিনি বুড়ো হয়ে গিয়েছেন? একেই বলে মেয়েদের নাকি ২৫-এর পর প্রতি ৫ বছরে একবার বয়স বাড়ে। সেখানে কাজল তো আবার নায়িকা। আর তাঁরই নাকি বয়স বাড়ছে। তবে অজয়ের এই মজায় মোটেও দমে যাননি কাজল বরং উল্টে বলেন, “তুমি বুড়ো হয়ে গেছ। আমি নই।“

এখানেই থামেননি অজয়। ওই শোতেই সঞ্চালক করণ জোহর, অজয়কে জিজ্ঞাসা করেন, “আচ্ছা কাজল কথা বলে, আর তুমি সব শুনে যাও নিশ্চয়?” একটুও না ভেবে অজয়ের সপাটে জবাব,”না। ও বলে যায়। কিন্তু আমি শুনি না।“ তবে এটাই শেষ নয়। এ বার মোক্ষম জবাবটা দিলেন অজয়। করণ অজয়কে জিজ্ঞাসা করেন, “আচ্ছা বলিউড স্টারেরা সবচেয়ে বেশি কোন মিথ্যে কথাটা বলেন?” একগাল হেসে অজয় উত্তর দেন, “আমি আমার বউকেই সবচেয়ে বেশি ভালোবাসি। এই ডাহা মিথ্যেটাই বলে থাকেন বেশিরভাগ বলি সেলেবরা।“ এরপর কাজলের অভিব্যক্তি কী ছিল তা নিশ্চয় আন্দাজ করা যায়। খালি সেদিকে তাকিয়ে বোকা হাসি হেসে অজয় বলেন, “না না আমি তো অন্যদের কথা বলছিলাম।“

Comments are closed.