মঙ্গলবার, আগস্ট ২০

পেট ভার ভার লাগার কষ্ট : দেখুন তো এগুলোই কারণ নয় তো!

দ্য ওয়াল ব্যুরো: পেট গুরগুর করা, পেট ভর্তি লাগা, পেট ভার হয়ে থাকা ইত্যাদি সমস্যায় কেউ জেরবার হননি, এমন লোক খুঁজে পাওয়া মুশকিল।  আর এই সমস্যাগুলো কেন হয়, তার খোঁজ নিতে গেলে আপনি হয় তো ভাববেন কোষ্টকাঠিন্য , মেনস্ট্রুয়াল সমস্যা, খুব বেশি পেট ভরে খেয়ে ফেলা, জাঙ্কফুড খাওয়া, বা কার্বোনেটেড ড্রিঙ্ক খাওয়া।  কিন্তু এর বাইরেও আর কী কী কারণ আছে জানেন কি?

ঠিক করে খাবার চিবিয়ে না খাওয়া
খাবার ঠিক করে চিবিয়ে না খেলে এই সমস্যা খুব বেড়ে যায়, কারণ খাবারের টুকরো যত বেশি হবে, তত তাড়াতাড়ি সহজে হজম হবে।  আমরা খাবার যখন চিবোই, তখন লালারসের সাথে যে অ্যামাইলেজ় উৎসেচক নিঃসৃত হয়, সেটা খাবার হজমে সাহায্য করে।  অথচ অনেকেই সেদিকে নজর না দিয়ে, এই হজমের ওষুধ, ওই টোটকা ইত্যাদিতে নজর দিই, আর আমাদের পাকস্থলীর উপর চাপ বাড়তে থাকে।  অনেক সময়ে এ থেকে পেট ফেঁপে গিয়ে গ্যাস হয়।  তাই আরেকটু সময় নিয়ে ভালো করে চিবিয়ে খাবার খেলেই সমস্যা কমে যায় অনেকটা।

বেশিমাত্রায় চুইংগাম চিবোনো
অনেকেই মুখের চর্বি ঝরাতে বা নিশ্বাসে সুগন্ধ রাখতে খুব বেশিমাত্রায় চুইংগাম চিবিয়ে থাকেন।  এতে বিতে বিপরীত হয়।  কারণ যতক্ষন আপনি চিবোচ্ছেন গাম, ততক্ষণ আপনার পাকস্থলীতে বেশিমাত্রায় হাওয়া ঢুকতে থাকে।  আর পাকস্থলী বারবার ভুল ভাবে, যে এই বুঝি খাবার আসছে।  আর সেই মতোই শুরু হয় উৎসেচক ক্ষরণও।  তাতে শরীরেরও ক্ষতি হয়।  সেই উৎসেচকগুলো বেরিয়ে এসে কোনও খাবার পায় না হজম করানোর মতো।  তাই সমস্যা বাড়তে থাকে।  পেটে গ্যাস ভরে পেট ভার হয়ে থাকে।

খেতে খেতে জল খাওয়া
খেতে বসার ৩০ মিনিট আগে এবং খাওয়া শেষ হওয়ার ৪৫ মিনিট পরে জল খাওয়া উচিত।  খেতে খেতে মাঝে যদি জল বা তরল কিছু ঢকঢক করে খাই আমরা তাহলে সমস্যা বাড়ে।  কারণ জলীয় অংশ হজমে বাধা দেয়।  আর সহজেই পেট ভার করে জমে গ্যাস যায়।

খুব রাত করে খাওয়ার অভ্যাস
আজকাল কাজের মাঝে বেশিরভাগ লোকজনই খুব রাতে খাবার খান।  বলা হয় রাত ৮ টার মধ্যে খেয়ে নিতে।  তারপর তুমি রাত জেগে কাজ করতেই পারো।  কিন্তু সে নিয়ম তো আমরা আজকাল মানিই না কেউ।  শুতে যাওয়ার সময়ে খেলে তাই স্বাভাবিকভাবেই হজমে সমস্যা হয়।  যত তাড়াতাড়ি সম্ভব খেয়ে নিতে হবে।  এতে গ্যাস, হজমের সমস্যা মিটবে।

নোনতা খাবার খাওয়া
যখনই কোনও নোনতা খাবার খাই, সাথে সাথে জল খেয়েনি, তখনই নোনতা সোডিয়ামের সাথে জলের মিশেলে পেটে প্রচন্ড গ্যাস তৈরি হয়।  আর পেট ফুলে থাকে।  তাই প্যাকেটজাত চিপ্স বা ওই জাতীয় খাবার না খাওয়াই ভালো, আর খেলেও সঙ্গে সঙ্গে জল একেবারেই খাবেন না।

তাহলে গালে হাত দিয়ে আর ভাবতে বসবেন না, কেন পেট গুরগুর করছে।  মেনে চলুন এই কটি সহজ নিয়ম।

Comments are closed.