রবিবার, অক্টোবর ২০

অনেকক্ষণ চেপে থাকতে অভ্যস্ত? টয়লেটে না গেলেই মহিলারা এই চারটি সমস্যাকে কাছে ডাকছেন….

দ্য ওয়াল ব্যুরো: অফিস হোক বা বাড়ি, কাজের মাঝে কিছুতেই আর ওয়াশরুমে গিয়ে উঠতে পারেন না আপনি? মহিলাদের অনেকেরই এই সমস্যা রয়েছে।  আবার অনেকেই সুলভ শৌচালয় এড়িয়ে চলেন।  তাই বাড়ি না ফিরলে বা সঠিক জায়গা না হলে কিছুতেই হাল্কা হতে যান না।  কিন্তু যে মহিলারা অনেকক্ষণ ইউরিনেট করেন না, ভেবে নেন এ আর এমন কী ব্যাপার, এ তো নস্যি, অনেকক্ষণ চেপে রাখার অভ্যাস করে নেন অনায়াসেই-তাঁদের কিন্তু একাধিক শারীরিক সমস্যা হওয়ার সম্ভাবনা আছে।  এমন কি অনেকগুলো অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ বিকলও হতে পারে।  নিশ্চয় সে খবর রাখেন না।

জানুন কী সেই সমস্যাগুলো—-

ব্লাডারের ক্ষতি
আপনার শরীরের তরল বর্জ্য দেহের ঘাম এবং মূত্রে পরিণত হয়ে দেহ থেকে বেরিয়ে যায়।  কিন্তু আপনি ইউরিনেট না করলে, তা তো ব্লাডারে জমতে থাকে অনেকক্ষণ ধরে।  ব্লাডারের উপর চাপ বাড়তে থাকে।  ব্লাডারের পেশিগুলোর উপর প্রভাব পড়ে, ব্লাডারের আয়তনও বেড়ে যেতে পারে।  দীর্ঘ দিন এভাবে চেপে রাখার ফলে অনেকের এতটাই সমস্যা হয় যে, ব্লাডারের অপারেশনও করতে হয়।

ব্যথা
যতবার আপনি ওয়াশরুমে না গিয়ে, ইউরিনেট না করে চেপে রাখছেন তাতে আপনার ব্লাডারে চাপও বাড়ছে।  আর এই চাপ থেকেই একটা সময় দেখবেন যন্ত্রণা হচ্ছে।  যেটা কিছুতেই থামানো যাচ্ছে না।  অনেকে ভেবে নেন, যন্ত্রণাটা কিছুক্ষণ সহ্য করে নিলেই পরে সমস্যা থেকে মুক্তি।  কিন্তু না।  অনেক দিনের এই যন্ত্রণা তো এক দিনের নয়।  তাই এর ভোগান্তিও অনেকটাই।

কিডনির ক্ষতি
ব্লাডারের ক্ষতি, তা থেকে যন্ত্রণা তো হল।  তার সাথে কিডনিরও যে বারোটা বাজছে, তা হয় তো ভাবছেন না।  আমাদের শরীরের জল পরিশোধনের দায়িত্বে থাকে এই কিডনি।  ফলে আপনি যখনই ইউরিনেট না করে চেপে রাখছেন, কিডনি দুটোরও তো চাপ বাড়ছে।  এমন কি অনেকের কিডনি স্টোনের কারণও অনেকক্ষণ ইউরিন চেপে রাখা।

ইউটিআই
অনেকেই হয় তো ব্যাকটিরিয়ার ভয়ে সুলভ শৌচালয় এড়িয়ে চলছেন।  কিন্তু এই যে আপনি অনেকক্ষণ টয়লেটেই যাচ্ছেন না, তাতে আপনার শরীরের ভিতরে যদি কোনও ক্ষতিকর ব্যাকটিরিয়া থেকেও থাকে, সে তো আনন্দে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়বে।  আপনার ইউরিনারি ট্র্যাক্ট ইনফেকশন হওয়া কেউই হয় তো আটকাতে পারবেন না।  তাই এই কান টানলে মাথা আসার মতো যে রোগ আসে, অর্থাৎ ইউটিআই থেকে তো আরও নানা সমস্যা হতেই পারে।  এই ইউটিআই অন্তত যাতে না হয়, সে দিকে তো খেয়াল রাখতেই হবে।

এই যে কটা ফলাফল আপনি জানলেন, এই কি যথেষ্ট নয় সঠিক সময়ে ওয়াশরুমে যাওয়ার? নিজেকে সুস্থ না রাখতে পারলে সমস্যা বেড়ে যেতে পারে, তাই মহিলারা যাঁরা অফিস-বাড়ি সব সামলাচ্ছেন, তাঁরা একটু নিজেদেরও সামলান।

Comments are closed.