বুধবার, নভেম্বর ২০
TheWall
TheWall

গরুর দুধে সোনা আছেই, বৈজ্ঞানিক নথি পেশ দিলীপের, ভরসা পোল্যান্ডের গবেষণা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ভারতীয় গরুর দুধে সোনার ভাগ আছে। বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের এমন বক্তব্য নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় হইচই চলছে। মিম-আক্রমণ চলছে দিলীপ ঘোষের উপরে। গত দু’দিন ধরে চলা সেই আক্রমণের কোনও জবাবই দেননি দিলীপ। আর বুধবার নিজের দাবির সমর্থনে পোল্যান্ডের এক গবেষণা পত্র সামনে নিয়ে এলেন তিনি। সেই গবেষণায় দাবি করা হয়েছে, গরুর দুধে সত্যি সত্যি নানা মিনারেলসের মধ্যে সোনাও রয়েছে।

এদিন দিলীপ ঘোষ দ্য ওয়ালকে বলেন, “আমি কখনওই বলিনি যে, দুধ থেকে সোনা পাওয়া যায় বা সোনা তৈরি হয়। আমি বলেছি, দুধে সোনার ভাগ রয়েছে। সেটা যে ঠিক তার বৈজ্ঞানিক প্রমাণও রয়েছে।” সেই প্রমাণ হিসেবেই তিনি এক নথির উল্লেখ করেছেন। পোল্যান্ডের জার্নাল অফ এনভেয়রমেন্টাল স্টাডিজ-এ প্রকাশিত ওই রিপোর্টে বলা হয়েছে গরুর দুধে মোট ৩৮ রকম মাইক্রোএলিমেন্ট রয়েছে। তার মধ্যে সোনাও রয়েছে। মধ্য ইউরোপের সাইলেসিয়া অঞ্চলের গরুর দুধেই সোনা পাওয়া যায় বলে দাবি করা হয়েছে ওই রিপোর্টে।

দিলীপ ঘোষের দাবি ছিল, ভারতীয় গরুর দুধেই শুধুমাত্র সোনার ভাগ রয়েছে। অন্য গরুর দুধে নয়। আর তিনি যে নথি সামনে এনেছেন তার দাবি মধ্য ইউরোপের সাইলেসিয়া অঞ্চলের গরুর দুধে রয়েছে সোনা, রুপো-সহ বিভিন্ন উপাদান। সেই সব উপাদানের মধ্যে জিঙ্ক, আয়োডিন, অ্যালমুনিয়াম, কপার, ম্যাঙ্গানিজ ইত্যাদি ৩৮ রকমের খনিজ।

এই গবেষণাটি করেছে পোল্যান্ডের এগ্রিকালচার ইউনিভার্সিটির ডিপার্টমেন্ট অফ অ্যানিম্যাল হাইজিন অ্যান্ড এনভায়রমেন্ট। গবেষণাটি করা হয় ২০০১ থেকে ২০০৪ সালের মধ্যে।

ওই গবেষণা পত্রে অবশ্য দিলীপ ঘোষের বলা গরুর কুঁজে থাকা স্বর্ণনাড়ি সম্পর্কে কিছু বলা হয়নি। দুধে সোনা ও স্বর্ণনাড়ি নিয়ে ইতিমধ্যেই তোলপাড় শুরু হয়েছে রাজ্যে। চায়ের দোকান থেকে সোশ্যাল মিডিয়া সর্বত্র একই আলোচনা। তার কোনও জবাব দেননি দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, “আমি যা বলার তা বলেছি। যা চলছে চলুক।”

Comments are closed.