মঙ্গলবার, জানুয়ারি ২৮
TheWall
TheWall

৭ কেজি প্লাস্টিক, আবর্জনা খেয়ে মৃত হরিণ! দূষণের জেরে বিপন্ন বন্যপ্রাণ, প্রতিবাদ নেটিজেনদের

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +

দ্য ওয়াল ব্যুরো: সাত কেজি আবর্জনা খেয়ে মারা গেল থাইল্যান্ডের এক বুনো হরিণ! কফির কাপ, নুডলসের প্যাকেট, প্লাস্টিকের চামচ, ছেঁড়া অন্তর্বাস– কী না বেরিয়েছে ১০ বছরের প্রাণীটির পেট থেকে! মানুষের দূষণের শিকার ছাড়া আর কিছুই বলা যায় না তাকে।

থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাঙ্কক থেকে প্রায় ৬৩০ কিমি দূরে নান এলাকার খুন সাথান সংরক্ষিত অঞ্চলের জাতীয় উদ্যানে হরিণটির মৃত্যুর ঘটনায় সরকারি অরণ্য দফতরের আধিকারিক এবং পরিবেশকর্মীরা দাবি করেছেন, জলে-জঙ্গলে কী ভাবে প্লাস্টিক দূষণ বাড়ছে, তা এই ঘটনাই চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিল।

এমনিতেই থাইল্যান্ড বিশ্বের প্লাস্টিক পণ্যের অন্যতম ব্যবহারকারী হিসেবে পরিচিত। মুদিখানা দ্রব্য, রাস্তার খাবার বা কফি শপে রোজ লক্ষ লক্ষ সিঙ্গল ইউজ প্লাস্টিক ব্যবহৃত হয়। সেগুলি সঠিক উপায়ে নষ্ট করা বা ফেলা হয় না। ফলে সেগুলি গিয়ে মিশে যায় প্রকৃতিতে, যা প্রকৃতির অন্যান্য প্রাণীর ক্ষতির কারণ হয়।

এর আগেও থাইল্যান্ডের জাতীয় উদ্যানে সামুদ্রিক কচ্ছপ এবং শুশুকের মৃত্যু নিয়ে জোরালো বিতর্ক তৈরি হয়েছিল। তখনও মৃত প্রাণীগুলির পাকস্থলী থেকে প্লাস্টিক উদ্ধার করা হয়েছিল প্রচুর পরিমাণে। তাদের মৃত্যুর কারণ হিসেবেও প্লাস্টিককেই দায়ী করেছিলেন বিশেষজ্ঞরা। এবার ফের তেমন ঘটনার শিকার হল ১০ বছরের হরিণ।

খুন সাথান জাতীয় উদ্যানের ডিরেক্টর ক্রিয়াংসক থানমপুন জানিয়েছেন, মৃত্যুর পর হরিণটির ময়নাতদন্ত করা হয়। তখনই তার পেট থেকে প্রায় ৭ কেজি ওজনের প্লাস্টিকের ব্যাগ এবং অন্যান্য আবর্জনা উদ্ধার করা হয়।

আধিকারিকদের ধারণা, দীর্ঘ দিন ধরেই খাবার ভেবে প্লাস্টিক খেয়ে চলেছিল হরিণটি। সম্ভবত তাতেই তার দেহের গুরুত্বপূর্ণ সব নালিকা বন্ধ হয়ে যায়। কচ্ছপ এবং শুশুকের মৃত্যুর পরে একই ভাবে এই আরও একটি হরিণের মৃত্যু বেদনাদায়ক। আরও অনেক বেশি সতর্কতা প্রয়োজন বলে মনে করছে সরকার।

হরিণের প্রাণহীন দেহ এবং তার পেট থেকে পাওয়া আবর্জনার স্তূপের ছবি ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। নিন্দা ও সমালোচনায় মুখর হয়েচেন নেটিজেনরা। কেউ বলেছেন জাতীয় উদ্যানে পর্যটকদের যাওয়া বন্ধ করতে, কেউ আবার বলেছেন পর্যটকরা গেলে তাঁদের উচিত নিজেদের দায়িত্বে বর্জ্য পদার্থ ফিরিয়ে আনা।

তবে শুধু থাইল্যান্ড নয়। এই ঘটনা সামনে আসতেই জানা যায়, জাপানের নারা পার্কেও প্লাস্টিক খেয়ে মারা গেছে ন’টি হরিণ। এ বিষয়ে দ্য নারা ডিয়ার প্রিজারভেশন ফাউন্ডেশনের তরফে জানা গিয়েছে, সেখানেও খাবার ভেবে প্লাস্টিক খেয়ে ফেলেছিল হরিণগুলো। ১৪টি হরিণ মারা যাওয়ার পরে তাদের পেটে বিপুল পরিমাণ প্লাস্টিক ব্যাগ এবং খাবারের মোড়ক পাওয়া যায়।

Share.

Comments are closed.