মঙ্গলবার, অক্টোবর ২২

জানতেন কি, দইয়ের আছে আরও এত গুণ!

দ্য ওয়াল: গরম যত বাড়ছে, তত আপনার খাবারের তালিকায় বদল হচ্ছে।  তেলে ভাজা জিনিস কম খাচ্ছেন আর দই হয় তো আপনি সকাল বিকেল রাত তিন বেলাই খাচ্ছেন।  কিন্তু এই দই, খাওয়া ছাড়াও আপনার অনেক কাজে আসতে পারে জানেন কি? জানুন সেগুলো কী কী–

১. অ্যান্টি এজিং ফেশিয়াল
নিজেকে সুন্দর রাখতে কে না চায়! কিন্তু তার জন্য বারবার পার্লারে ছোটা তো সময় খরচ সাপেক্ষ।  বাড়িতে বসেই যদি আপনি নিজেকে সুন্দর করে তুলতে পারেন, তাহলে ক্ষতি তো নেই।  দইয়ে থাকা ব্যাকটিরিয়া আপনার শরীর সামলে রাখে যেভাবে, সেভাবেই স্কিনের যত্নও নেয়।  ওই ব্যাকটিরিয়াদের দৌলতেই আপনার স্কিনের বয়স থমকে যায়।
এছাড়াও এতে থাকা ভিটামিন-ডি, প্রোটিন এবং ক্যালসিয়াম আপনার রঙ আরও উজ্জ্বল করে তোলে।  বাড়িতে এই ফেশিয়াল করতে আপনার দরকার- ১/৪ চা চামচ মূলতানি মাটি, ১/৪ চা চামচ মধু, ১ চা চামচ দই।  এগুলো মিশিয়ে মুখে লাগিয়ে রেখে দিন কিছুক্ষণ, শুকিয়ে গেলে জলে ধুয়ে ফেলুন।  আর নিজের স্কিনের বয়স বাগে রাখুন।

২. হেয়ার কণ্ডিশনার
সারাদিনের ব্যস্ততার মাঝে একটু অবসরে নিজের দিকে তাকানোর সময় পেলে আমাদের স্কিন আর চুল নিয়ে ভাবনা আসে মাঝেমাঝে।  সেই ভাবনা দূর করতে পারে দই।  অবাক হচ্ছেন কি? কিন্তু এই দইয়ের ভিটামিন বি-ফাইভ, ভিটামিন-ডি চুল ভালো করে।  হেয়ার ফলিকলগুলোকে মজবুত করে।  চুল অনেক বেশি ঝকঝকে দেখায়।  স্নানের পরে চুলে ২-৩ মিনিট দই মেখে রেখে দিন।  তারপর ঈষদুষ্ণ জলে সেটা ধুয়ে ফেলুন।  দেখুন চুলের স্বাস্থ্য কয়েক দিনেই কেমন বদলে যায়।

. পিতলের জিনিস চকচকে করে
দইয়ে থাকে ল্যাকটিক অ্যাসিড।  এই অ্যাসিডই আপনার পিতলের জিনিস পত্রে পড়া দাগ সহজে উঠিয়ে দিতে পারে।  পিতলের জিনিস বেশ কিছুদিন রেখে দিলে দেখা যায়, তাতে কালচে ছোপ পড়ে যায়।  আবার অনেক সময়ে দেখা যায় বহুদিন পরিষ্কার না করায়, সবজেটে হয়ে গেছে কোনও কোনও পিতলের বাসন বা জিনিস।  তখন আপনি সহজেই তাতে দই মাখিয়ে কিছুক্ষণ রেখে দিন।  শুধু দই লাগিয়ে রাখুন।  সহজ হবে।  এটা শুকিয়ে গেলে শুকিয়ে যাওয়া দই অল্প জলে ঘষে ঘষে তুলে ফেলুন।  এরপরে, ওই পিতলের বাসন বা জিনিসটা শুকনো কাপড়ে মুছে নিন আর দেখুন কতটা চকচক করে সেটা।  একেবারে নতুনের মতোই লাগবে আপনার পুরনো পিতলের বাসন।

৪. কুকুরের লোম চকচক করে
দই কুকুরের লোম চকচক করে আপনি জানতেন কি? আপনার স্কিন আর চুলের সঙ্গে সঙ্গে আপনার পোষ্যটির লোমও চকচকে হয় এই দইয়েই।  দই মাখিয়ে রেখে দিন পোষ্যটিকে।  তাকে মাসাজ়ও করতে পারেন কিছুক্ষণ।  এভাবে পাঁচ মিনিট পরে ওকে স্নান করিয়ে দিন।  শুকনো করে মুছিয়ে দিন, আর দেখুন কতটা চকচকে হয়ে রয়েছে আপনার এই বন্ধুটি।  এতে সেও খুশি আর আপনিও খুশি।

তাহলে দই কি আর শুধু খাবেন, না বাকি ব্যবহারেও কাজে লাগাবেন? তাই এবার থেকে ঘরে দই রাখুন বেশি করে, শরীরের সাথে মনও রাখুন ফুরফুরে।  কারণ, আপনাকে দেখতে সুন্দর লাগলে বা আপনার পোষ্যটি চকচকে থাকলে আপনি তো মন থেকে ফুরফুরে থাকবেনই।

 

Comments are closed.