দুরন্ত লড়েও হার রাশিয়ার, সেমিফাইনালে ইংল্যান্ডের সামনে ক্রোয়েশিয়া

0

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

    দ্য ওয়াল ব্যুরো: রুদ্ধশ্বাস ম্যাচ। ১২০ মিনিটের হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পরেও ২-২ গোলে ড্র থাকে খেলা। শেষ পর্যন্ত টাইব্রেকারে ঠাণ্ডা মাথার পরিচয় দিল ক্রোয়েশিয়া। টাইব্রেকারে ৪-৩ গোলে আয়োজক দেশ রাশিয়াকে হারিয়ে পৌঁছে গেল সেমি ফাইনালে।

    শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক মনোভাব দেখা যায় দুই দলের তরফে। ধীরে ধীরে খেলায় ফেরে ক্রোয়েশিয়া। মাঝমাঠ জমাট রেখে আক্রমণ তুলে আনতে থাকে তারা। কিন্তু রাশিয়ার জমাট ডিফেন্সের কাছে আটকে যাচ্ছিল সব আক্রমণ। ৩১ মিনিটের মাথায় প্রতি আক্রমণে বক্সের বাইরে থেকে বাঁ পায়ের জোরালো শটে গোল করে রাশিয়াকে এগিয়ে দেন চেরিসেভ। কিন্তু আট মিনিট পরেই মানজুকিচের ক্রসে হেড করে সমতা ফেরান ক্রামারিচ।

    দ্বিতীয়ার্ধে গোল করার জন্য মরিয়া হয়ে ওঠেন মডরিচরা। ৫৯ মিনিটের মাথায় পেরিসিচের শট পোস্টে লেগে ফেরে। এরপরেই ডিফেন্সিভ হয়ে পড়ে রাশিয়া। তার সুযোগ নিয়ে একের পর এক আক্রমণ তুলে আনতে থাকে ক্রোয়েশিয়া। কিন্তু গোলের মুখ খুলতে পারেনি তারা। খেলা গড়ায় এক্সট্রা টাইমে।

    এক্সট্রা টাইমের প্রথমার্ধে ১০১ মিনিটের মাথায় কর্নার থেকে হেডে গোল করে ক্রোয়েশিয়াকে এগিয়ে দেন ভিদা। গোল খাওয়ার পর শোধ করার জন্য অল আউট আক্রমণ তুলে আনে রাশিয়া। ১১৫ মিনিটের মাথায় ফ্রিকিক থেকে হেডে গোল করে সমতা ফেরান মারিও ফার্ণান্দেজ। অতিরিক্ত সময়ে আর কোনও গোল হয়নি।

    প্রি কোয়ার্টার ফাইনালে দু দলই নিজেদের ম্যাচ টাইব্রেকারে জিতেছিল। তাই সবার নজর ছিল আকিনফিব ও সুবাসিচের উপর। প্রথমে রাশিয়ার স্মলভের শট বাঁচিয়ে দেন সুবাসিচ। ক্রোয়েশিয়ার হয়ে ব্রজভিচ গোল করে এগিয়ে দেন দলকে। রাশিয়ার হয়ে জাগোয়েভ গোল করলেও ক্রোয়েশিয়ার কোভাচিচের শট আটকে দেন আকিনফিব। ২-২ হয়ে যায় ফল। রাশিয়ার হয়ে তৃতীয় পেনাল্টি নিতে আসেন ফার্নান্দেজ। তিনি বাইরে মারেন। মডরিচের শট আকিনফিব বাঁচালেও পোস্টে লেগে বল জড়িয়ে যায় জালে। ফের এগিয়ে যায় ক্রোয়েশিয়া। পরের দুটো শটে ইগ্নাসেভিচ ও ভিদা গোল করেন। পঞ্চম শটে কুজায়েভ গোল করে কিছুটা হলেও আশা বাঁচিয়ে রাখেন রাশিয়ার। কিন্তু শেষ শটে রাকিতিচ ঠাণ্ডা মাথায় গোল করে জিতিয়ে দেন ক্রোয়েশিয়াকে।

    এই জয়ের ফলে ২০ বছর পর ফের বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে উঠল ক্রোয়েশিয়া। সেখানে তারা খেলবে হ্যারি কেনের ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে। অন্যদিকে দুরন্ত লড়াই করেও হেরে গেল রাশিয়া। কিন্তু নিজেদের লড়াইয়ের মধ্যে দিয়ে গোটা দুনিয়ার স্যালুট জিতে নিল রুশ দল।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

You might also like

Leave A Reply

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More