মঙ্গলবার, অক্টোবর ১৫

ক্ষমতায় থাকার জন্যই বিজেপির সঙ্গে সমঝোতা করেছি, স্বীকার করলেন উদ্ধব

দ্য ওয়াল ব্যুরো : মহারাষ্ট্রে বিধানসভা নির্বাচনে ১৩৫ টি আসনে লড়তে চেয়েছিল শিবসেনা। কিন্তু বিজেপি তাদের দিয়েছে মাত্র ১২৪ টি আসন। সোমবার দলের মুখপত্র সামনা-য় সাক্ষাৎকারে শিবসেনা প্রধান উদ্ধব ঠাকরে বলেন, আমরা যাতে ক্ষমতায় থাকতে পারি, সেজন্যই বিজেপির সঙ্গে সমঝোতা করেছি। তাঁর দাবি, মানুষের সেবা করার জন্যই শিবসেনার ক্ষমতায় থাকা দরকার।

শিবসেনা আগে কখনও মহারাষ্ট্রে এত কম সংখ্যক আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেনি। ২৮৮ আসনের বিধানসভায় বিজেপি ও অন্যান্য ছোট শরিক দল প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে ১৬৪ আসনে। উদ্ধব ঠাকরে বলেন, জোট গড়ার ক্ষেত্রে তাঁরা ‘পরিণতবুদ্ধির’ পরিচয় দিয়েছেন। তাঁর কথায়, নির্দিষ্ট লক্ষ্য নিয়ে আমরা জোট গড়েছি। মহারাষ্ট্রের স্বার্থেই আমাকে সমঝোতা করতে হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়নবিশ ও রাজ্যের বিজেপি প্রধান চন্দ্রকান্ত পাতিল আমাকে বলেছিলেন, দয়া করে আমাদের সমস্যাটা বুঝুন। আমি তাঁদের অনুরোধ রক্ষা করেছি।

পরে উদ্ধব বলেন, আমি ক্ষমতায় থাকার জন্যই জোট করেছি। একথা গোপন করার কিছু নেই। পর্যবেক্ষকদের মতে, ২০১৪ সালে বিজেপির উত্থানের পরে মহারাষ্ট্রের রাজনীতিতে বড় ধরনের পরিবর্তন এসেছে। এখন যদি শিবসেনার সঙ্গে বিজেপির জোট না হয়, তাহলে ভোটে ত্রিমুখী প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে। তাতে একদিকে থাকবে বিজেপি, একদিকে শিবসেনা এবং আর একদিকে কংগ্রেস ও এনসিপি। সেক্ষেত্রে শিবসেনার ক্ষতি হবে সবচেয়ে বেশি।

উদ্ধব ঠাকরে অবশ্য বলেছেন, তাঁরা কম আসনে লড়ছেন বটে কিন্তু ভোটের পরে তাঁদের বিজেপির সমান ক্ষমতা ও দায়িত্ব দিতে হবে। তাঁর কথায়, লোকসভা ভোটের আগে যখন বিজেপির সঙ্গে আমাদের জোট হয়েছিল, তখন স্থির হয়, আমরা ক্ষমতা ও দায়িত্ব সমানভাবে ভাগ করে নেব। জোট গঠনের ক্ষেত্রে এটা খুব গুরুত্বপূর্ণ শর্ত। আগামী ২৪ অক্টোবর আমরা সরকার গড়ব। আশা করি নতুন সরকার সেই শর্ত মেনে চলবে।

Comments are closed.