শনিবার, সেপ্টেম্বর ২১

কৈখালিতে সিভিক ভলান্টিয়ারের রহস্যমৃত্যু

দ্য ওয়াল ব্যুরো: গতকাল রাতে এক সিভিক ভলান্টিয়ারের রহস্য মৃত্যু হয়েছে খোদ কলকাতায়। লেকটাউন থানার সিভিক ভলান্টিয়ার শম্পা দাসের দেহ মিলেছে কৈখালিতে তাঁর বাড়িতে।

আজ সকালে স্থানীয় বাসিন্দারা দেখতে পান যে বাড়ির সদর দরজা হাট করে খোলা। সিঁড়ির কাছে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে আছেন শম্পা দেবী। তখনও ইউনিফর্ম পরে ছিলেন তিনি। চারদিক রক্তে ভেসে যাচ্ছে। সঙ্গে সঙ্গে তাঁরা খবর দেন পুলিশে। পুলিশ আসলে দেখা যায় উপরের ঘরে চেয়ারে হাত পা বাঁধা অবস্থায় পড়ে আছেন তাঁর স্বামী সুপ্রতিম দাস।

সুপ্রতিম বাবু জানান যে শম্পা দেবী বাড়িতে ফেরার পড়েই কিছু দুষ্কৃতী হামলা চালায় তাঁদের বাড়িতে। তারাই তাঁকে বেঁধে রেখে খুন করে শম্পা দেবীকে। কিন্তু খটকা লাগে পুলিশের। কারণ হাত-পা বাঁধা থাকলেও মুখ খোলা ছিল সুপ্রতিম বাবুর। কিন্তু প্রতিবেশীরা জানান তাঁরা কোনও চিৎকার শুনতে পাননি। পুলিশ সূত্রে খবর তাঁর হাত-পা এমনভাবে বাঁধা ছিল যে একটু চেষ্টা করলেই তিনি সেই বাঁধন খুলতে পারতেন। কেন করেননি তিনি?

প্রাথমিক তদন্তে অনুমান, মাথায় ভারী কিছু দিয়ে আঘাত করে খুন করা হয়েছে শম্পা দেবীকে। তারপর খুন নিশ্চিত করতে মুখে বালিশ চাপা দেওয়া হয় বলে জানা গিয়েছে। দেহ ময়না তদন্তের জন্য নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

নিছকই দুষ্কৃতীর কাজ নাকি বিবাহ-বহির্ভুত কোনও সম্পর্কের জেরে খুন সেই ব্যাপারে তদন্ত শুরু করেছে এয়ারপোর্ট থানার পুলিশ। তাঁর স্বামীই এই কাজে যুক্ত কি না সেই ব্যাপারে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে সুপ্রতিম বাবুকে।

 

Leave A Reply