শনিবার, মার্চ ২৩

ফের ছেলেধরা গুজব, টিকিয়াপাড়ায় পুলিশ-জনতা সংঘর্ষে চলল লাঠি, ফাটলো কাঁদানে গ্যাস

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ফের ছেলেধরা গুজবে তুমুল উত্তেজনা ছড়াল হাওড়ার টিকিয়াপাড়ায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় বিশাল পুলিশ বাহিনী। ফাটাতে হয় কাঁদানে গ্যাসের শেলও। তবুও পরিস্থিতি আয়ত্তে আসেনি দীর্ঘ ক্ষণ।

সূত্রের খবর, বুধবার, ‘ছেলেধরা’ সন্দেহে এক মহিলাকে আটক করেন স্থানীয় বাসিন্দারা। সেই খবর ছড়িয়ে পড়তেই অন্যান্য এলাকা থেকে মানুষজন ছুটে যান সেখানে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় পুলিশও। উত্তেজিত জনতার হাত থেকে মহিলাকে উদ্ধার করতে পৌঁছয় পুলিশ। আর তখনই পুলিশের সঙ্গে  বচসা বেঁধে যায় স্থানীয় বাসিন্দাদের। অভিযোগ, পুলিশকে লক্ষ্য করে পাথর ছোড়ে এলাকাবাসী। ভাঙচুর করা হয় পুলিশের গাড়ি।

উত্তেজনা বাড়লে ঘটনাস্থলে যায় পাঁচটি থানার পুলিশ এবং কমব্যাট ফোর্স। প্রথমে লাঠিচার্জ করা হয় বলে অভিযোগ। পরে কাঁদানে গ্যাসের শেলও ফাটাতে বাধ্য হয় পুলিশ। গুজব ও অশান্তি ছড়ানোর অভিযোগে বেশ কয়েক জনকে আটকও করা হয়। রাতে সব থানার ওসিদের নিয়ে জরুরি বৈঠক করেন জেলা পুলিশের উচ্চপদস্থ কর্তারা। গুজব আটকাতে এবার মাইকিং, লিফলেট বিলির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে সেই বৈঠকে।

প্রসঙ্গত, কয়েক দিন ধরেই রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে মাথাচাড়া দিচ্ছে ছেলেধরা গুজব। গুজবের জেরে চলছে গণপিটুনিও। উত্তেজনা ছড়াচ্ছে এলাকায়। দিন দুয়েক আগেই পূর্ব মেদিনীপুরের তমলুকে ছেলেধরা সন্দেহে এক যুবককে বেধড়ক মারধর করা হয়। একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটে বসিরহাটে। সেখানে গাছে বেঁধে চলে গণপ্রহার। হাওড়ার জগতবল্লভপুরেও পাঁচ জনকে সন্দেহজনক ভাবে এলাকায় ঘোরাঘুরি করতে দেখে ছেলেধরা সন্দেহে চলে গণপিটুনি।

টিকিয়াপাড়ার ঘটনার পরে এলাকায় শুরু হয়েছে টহলদারি। হাওড়া সিটি পুলিশের ডিসি সাউথ জোন টু অনন্ত নাগ জানান, ছেলেধরা সন্দেহে একটা গুজব ছড়াচ্ছে বিভিন্ন এলাকায়। পুলিশ সব দিক খতিয়ে দেখছে।

Shares

Comments are closed.