শনিবার, নভেম্বর ২৩
TheWall
TheWall

মহারাষ্ট্রে বিজেপি-সেনা দ্বন্দ্ব আরও তীব্র, উদ্ধব বললেন, মিথ্যাবাদীদের সঙ্গে কাজ করা যায় না

দ্য ওয়াল ব্যুরো : কে মিথ্যা বলছে? সরকার গড়ার সময়সীমা যখন প্রায় শেষ, তখনও এই বিতর্ক চালিয়ে যাচ্ছে শিবসেনা ও বিজেপি। শিবসেনা প্রধান উদ্ধব ঠাকরের দাবি, লোকসভা ভোটের আগে বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ নিজে তাঁকে কথা দিয়েছিলেন, ৫০-৫০ ফরমুলায় ক্ষমতা ভাগ করে নেবেন। বিজেপি বলছে, অমিত শাহ এমন কথা বলেননি। উভয় দলই পরস্পরকে বলছে মিথ্যাবাদী।

শুক্রবার মুখ্যমন্ত্রীর পদে ইস্তফা দিয়েছেন বিজেপির দেবেন্দ্র ফড়নবিশ। উদ্ধব বলেন, “দেবেন্দ্র আমাকে মিথ্যাবাদী বলেছেন। আমরা কখনও মিথ্যা কথা বলি না। অমিত শাহ ও দেবেন্দ্র ফড়নবিশ আমার কাছে এসেছিলেন। আমি তাঁদের কাছে যাইনি।” এদিন তিনি ফের সাংবাদিকদের বলেন, “অমিত শাহ কথা আমাকে প্রশ্ন করেছিলেন, জোটে থাকার জন্য আপনি কী চান? আমি বলেছিলাম, মুখ্যমন্ত্রীর পদটি আড়াই বছরের জন্য আমার দলকে দিতে হবে। তখন তাঁরা আমার দাবি মেনে নিয়েছিলেন।” পরে উদ্ধব বলেন, আমি আর তাঁদের সঙ্গে কথা বলব না। যারা আমাকে মিথ্যাবাদী বলে, আমি তাদের সঙ্গে কথা বলি না। বিজেপির বিরুদ্ধে অভিযোগ করে তিনি বলেন, তারা কর্ণাটকে বিধায়ক কেনাবেচা করে সরকার গড়েছে। তাঁর কথায়, “আনি বিজেপিকে চ্যালেঞ্জ জানাচ্ছি, তারা যত তাড়াতাড়ি সম্ভব মহারাষ্ট্রে সরকার গড়ে দেখাক। না হলে প্রত্যেক দলই নিজেদের মতো জোট গড়ে সরকার গঠনের চেষ্টা করবে।”

শিবসেনার অভিযোগ, বিজেপি তাদের বিধায়কদের কেনার চেষ্টা করছে। বৃহস্পতিবারেই শিবসেনার বিধায়কদের একটি হোটেলে সরিয়ে দেওয়া হয়েছিল। এদিন সন্ধ্যায় তাঁদের পাঠানো হয়েছে মাধ দ্বীপে। উদ্ধব পরিষ্কার জানিয়ে দেন, মুখ্যমন্ত্রীর পদ না পেলে তাঁরা কিছুতেই সন্তুষ্ট হবেন না। তাঁর কথায়, “আমার বাবা বাল ঠাকরেকে আমি এমনই কথা দিয়েছিলাম।”

Comments are closed.