কেন্দ্রীয় সরকারের কর্মীদের জন্য বোনাস ঘোষিত, উপকৃত হবেন ৩০ লক্ষের বেশি

২৫৬

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

দ্য ওয়াল ব্যুরো : ২০১৯-২০ সালের আর্থিক বছরের বোনাস পাবেন কেন্দ্রীয় সরকারের প্রায় ৩০ লক্ষ ৬৭ হাজার কর্মচারী। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর বুধবার একথা জানিয়েছেন। দেশ জুড়ে উৎসবের মরসুমের শুরুতে অনেকের প্রশ্ন ছিল, কেন্দ্রীয় সরকারের কর্মচারীরা এবছর বোনাস পাবেন কি? মন্ত্রীর ঘোষণায় সেই অনিশ্চয়তা দূর হল। এদিন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সভাপতিত্বে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার বৈঠক বসে। তার পরে প্রকাশ জাভড়েকর জানান, কেন্দ্রীয় সরকারের কর্মচারীদের বোনাস দিতে খরচ হবে ৩৭৩৭ কোটি টাকা।

বুধবার বিকালে মন্ত্রী বলেন, “২০১৯-২০ সালের জন্য উৎপাদনের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত ও উৎপাদনের সঙ্গে সম্পর্কহীন বোনাস দেওয়া হবে। কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা এই সংক্রান্ত প্রস্তাব অনুমোদন করেছে। এর ফলে ৩০ লক্ষের বেশি নন গেজেটেড কর্মী লাভবান হবেন। রাজকোষ থেকে খরচ হবে ৩৭৩৭ কোটি টাকা।”

মন্ত্রী জানান, বিজয়া দশমীর আগেই বোনাসের টাকা দেওয়া হবে। আশা করা হচ্ছে, এর ফলে খরচের প্রবণতা বাড়বে। চাঙ্গা হবে অর্থনীতি।

করোনা সংকটের মধ্যে কেন্দ্রীয় সরকার বোনাস দেবে, আশা করেননি অনেকেই। চলতি বছরের শুরুতে যখন লকডাউন শুরু হয়, তখন কেন্দ্রীয় সরকারের কর্মীদের মহার্ঘভাতা সাসপেন্ড করা হয়েছিল। বুধবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা প্রোডাকটিভিটি লিংকড বোনাস ঘোষণা করায় লাভবান হবেন ১৬ লক্ষ ৯৭ হাজার নন গেজেটেড কর্মী। তাঁরা মূলত রেল, পোস্ট অফিস, প্রতিরক্ষা, ইপিএফও এবং ইএসআইসি-র কর্মী।

সরকার নন প্রোডাকটিভিটি লিংকড বোনাস বা অ্যাড হক বোনাসের কথা ঘোষণা করায় লাভবান হবেন ১৩ লক্ষ ৭০ হাজার কর্মী।

এবছর করোনা অতিমহামারীর ফলে যথেষ্ট ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে দেশের অর্থনীতি। সোমবারই অর্থনীতির শোচনীয় অবস্থা নিয়ে ভারতকে সতর্ক করে দিয়েছে আইএমএফ। তাদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, করোনার ধাক্কা সামলে অনেক দেশের অর্থনীতি ক্রমশ চাঙ্গা হয়ে উঠছে।  কিন্তু এশিয়ার মধ্যে সম্ভবত সবচেয়ে খারাপ অবস্থা ভারতের। অর্থনীতিবিদরা মনে করছেন, চলতি আর্থিক বছরে ভারতের অর্থনীতি সংকুচিত হবে ১০.৩ শতাংশ। আইএমএফের হিসাবমতো বাংলাদেশ, ভিয়েতনাম, চিন, নেপাল, পাকিস্তান ও আরও পাঁচটি দেশের তুলনায় পিছিয়ে পড়বে ভারতের অর্থনীতি।

অর্থনীতির এই হাল নিয়ে সরকারকে সতর্ক করেছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রকের প্রাক্তন প্রধান অর্থনৈতিক উপদেষ্টা কৌশিক বসু। তিনি বলেচ্ছেন, “দেশের অর্থনীতি এখন যেখানে পৌঁছেছে, কয়েক বছর আগেও কেউ ভাবতে পারেনি। তার জন্য আংশিকভাবে দায়ী কোভিড। এই অবস্থা থেকে আমাদের শিক্ষা নেওয়া উচিত। তথ্যকে অস্বীকার করলে চলবে না। যদি ভুল হয়ে থাকে, স্বীকার করতে হবে। ভুল সংশোধনের জন্য পদক্ষেপ নিতে হবে। বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ শুনতে হবে।”

এই পরিস্থিতিতে পুজোর মুখে কেন্দ্রীয় সরকারের কর্মীদের জন্য বোনাস ঘোষণা করল মোদী সরকার। এর ফলে যে বিপুল খরচ হবে, তা নিয়ে ইতিমধ্যে অনেকে প্রশ্ন তুলছেন।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More