বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ১২
TheWall
TheWall

ঘড়ি দিয়ে বাবার পুজো, ভারতের এই মন্দিরে ফুল বেলপাতা লাগে না

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ব্রহ্মা বাবার মন্দির। ভারতে এমন অনেক তীর্থস্থান আছে যেখানে গেল অবাক হতে হয়। উত্তরপ্রদেশের এই মন্দির তেমনই এক বেনজির দেবস্থান। এই মন্দিরে পুজো দিতে গেল নিয়ে যেতে হবে ঘড়ি।

উত্তরপ্রদেশের জৌনপুর জেলার ব্রহ্মা বাবার মন্দির ঘড়ি দিয়ে পুজোর জন্যই বিখ্যাত। ছোট্ট এই মন্দিরে দশকের পর দশক ধরে এই ভাবেই পুজো দিয়ে আসছেন ভক্তরা। স্থানীয় এক ব্যক্তি এই মন্দির প্রতিষ্ঠা করেছিলেন আর সেটাই এখন রীতিমতো বিশ্বখ্যাত। কারণ, আর কোথাও এমন ঘড়ি দিয়ে পুজো দেওয়ার রীতি দেখা যায় না। জাতপাতের উত্তরপ্রদেশে আরও একটি কারণেও এই মন্দির খ্যাত। এখানে সব বর্ণের ও সব ধর্মের মানুষের মন্দিরের দরজা খোলা।

এই মন্দিরে গলে দেখা যাবে সেখানে হাজারে হাজারে ঘড়ি রয়েছে। মন্দির সংলগ্ন গাছের গোড়া থেকে ডালপালা সর্বত্র ঘড়ি আর ঘড়ি। এত ঘড়ি কিন্তু কোনওটাই চুরি হয়ে যায় না। ভক্তরা মন্দিরে এসে বিভিন্ন মানত করে যান। আর মনবাঞ্ছা পূর্ণ হলে বাবার কাছে ঘড়ি দিয়ে যান। এখানে কান পাতলে এমন পরম্পরা নিয়ে অনেক কাহিনি শোনা যায়। তার মধ্যে সব থেকে বেশি যেটা বলা হয় যে, এখানে এক ব্যক্তি গাড়ির ড্রাইভার হওয়ার মানত করেছিলেন। আর তার ইচ্চা পূরণ হয়ে গেলে বছর তিরিশেক আগে একটি ঘড়ি দিয়ে পুজো দিয়ে যান। লোক মুখে সেটা ছড়িয়ে পড়তেই শুরু হয় ঘড়ি দিয়ে পুজো দেওয়ার চল।

এই মন্দিরে ঘুরতে হলে গরম এড়িয়ে অক্টোবর থেকে ফেব্রুয়ারির মধ্যে গেলেই ভালো। বারাণসী থেকে ৪০ কিলোমিটার দূরের এই মন্দিরে যেতে গাড়িতে ঘণ্টাখানেক সময় লাগে। বাসও পাওয়া যায় ঘনঘন। ট্রেনে জৌনপুর স্টেশন থেকেও যাওয়া যায়।

এই মন্দিরের কাছাকাছি আরও কিছু বেড়ানোর জায়গা রয়েছে। ব্রহ্মা বাবার মন্দিরের কাছেই দর্শনীয় জায়গার মধ্যে রয়েছে অটলা মসজিদ, শাহী ব্রিজ, জামা মসজিদ, শঙ্কর মন্দির ও চন্দ্রিকা দেবী ধাম।

আরও পড়ুন

পুজোয় ফুল নয় বই দিতে হয় এই মন্দিরে, প্রসাদে মেলে ডিভিডি

Comments are closed.