রাজ্য সরকারকে ‘সাহায্য’ করতে কুড়ুল হাতে রাস্তায় দিলীপ, ডেকে নিলেন বিজেপি কর্মীদেরও

ঘূর্ণিঝড় উমফানের পরে চার দিন কেটে গেলেও সল্টলেকের বিভিন্ন ব্লকে রাস্তার মধ্যে গাছ পড়ে আছে। বন্ধ হয়ে আছে গাড়ি চলাচল। সোমবার সাতসকালে সেই সব গাছ সরানোর কাজে বেরিয়ে পড়েন দিলীপ ঘোষ।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

    দ্য ওয়াল ব্যুরো: উমফান দুর্গতদের ত্রাণ দিতে যাওয়ার জন্য পরপর দু’দিন উদ্যোগ নিয়েও কলকাতা টপকাতে পারেননি বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। শনি, রবি দু’দিনই পুলিশের বাধায় বাড়ি ফিরতে হয়েছে। তৃতীয় দিন সোমবার আর সেই চেষ্টা করলেন না। উল্টে রাজ্য সরকারকে ‘সবক’ শেখাতে সল্টলেকের বিভিন্ন এলাকায় ভেঙে পড়া গাছ পরিষ্কারে হাত লাগালেন। বললেন, “রাজ্য সরকারকে সাহায্য করার জন্য কর্মীদের নিয়ে গাছ কাটতে বেরিয়েছি।”

    ঘূর্ণিঝড় উমফানের পরে চার দিন কেটে গেলেও সল্টলেকের বিভিন্ন ব্লকে রাস্তার মধ্যে গাছ পড়ে আছে। বন্ধ হয়ে আছে গাড়ি চলাচল। সোমবার সাতসকালে সেই সব গাছ সরানোর কাজে বেরিয়ে পড়েন দিলীপ ঘোষ। সল্টলেকের সিকে, একে, এজে, এসি ব্লকে রাস্তায় যেখানেই গাছ পড়ে থাকতে দেখেছেন তা পরিষ্কার করলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। কোথাও নিজে হাতে কুড়ুল নিয়ে গাছ কাটলেন। কোথাও রাস্তায় পড়ে থাকা গাছের গুঁড়ি সরিয়ে দিলেন। তবে একা নয়, রাস্তা পরিষ্কারের জন্য স্থানীয় বিজেপি কর্মীদের ডেকে নেন তিনি। দিলীপ ঘোষের দেহরক্ষীরাও রাস্তায় পড়ে থাকা গাছ সরানোয় হাত লাগান।

    আরও পড়ুন

    মালদহে আরও ২৩ করোনা আক্রান্ত, সকলেই পরিযায়ী শ্রমিক

    রোজ সকালেই মর্নিংওয়াকে বের হন দিলীপ ঘোষ এদিন অবশ্য অন্য রূপে ছিলেন তিনি। হাফ প্যান্ট আর গেঞ্জি পরে সাতসকালে কুড়ুল হাতে সল্টলেকের রাস্তায় রাস্তায় ঘোরেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। দিলীপ বলেন, “তিনদিন ধরেই সল্টলেকে আমাদের বাড়ির এলাকার গাছপালা কেটে নিজের হাতে পরিষ্কার করতে শুরু করেছি। গোটা পাড়াই গাছ পড়ে বন্ধ হয়ে গিয়েছে। গাড়ি বের হচ্ছে না।” তিনি আরও বলেন, “সল্টলেকে অনেক বয়স্ক মানুষেরা থাকেন। তাঁদের বেশি কষ্ট। কেউ দোকান বাজার করতেও যেতে পারছেন না। কিন্তু সরকার বা পুরসভার হুঁশ নেই। তাই আমি হাত লাগানোর সিদ্ধান্ত নিল‌াম।”

    বিধাননগর AK ব্লকে একটি বিশাল আম গাছ আমফান ঝরে পরে যাবার ফলে গোটা এলাকার যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায় | কার্যকর্তাদের পরিশ্রমের পর আজ রাস্তা একদম পরিষ্কার |

    Dilip Ghosh এতে পোস্ট করেছেন সোমবার, 25 মে, 2020

    এনিয়ে রাজ্য সরকারকে আক্রমণ করতেও ছাড়েননি দিলীপ। তিনি বলেন, “পৌর নিগমের লোকজনকে দেখা যাচ্ছে না। জলের ব্যবস্থা, বিদ্যুতের ব্যবস্থা কিছুই ঠিক নেই। সরকার তাঁর মতো করুক। সাধারণ মানুষের সুবিধা করে দিতে আমিও নিজের মতো করে যাব।” বললেন, সকলেরই নিজেদের এলাকা পরিষ্কারে হাত লাগানো উচিত।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

You might also like

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More